ই-পেপার  বুধবার ২০ নভেম্বর ২০১৯ ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
ই-পেপার  বুধবার ২০ নভেম্বর ২০১৯

ক্ষমা করুন ক্ষমা পাবেন
ড. একেএম ইয়াকুব হোসাইন
প্রকাশ: রোববার, ২৬ মে, ২০১৯, ১২:০০ এএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 61

বিদায় নিচ্ছে মাগফেরাতের দশক। মাগফেরাতের দশক হলো ক্ষমার দশদিন। মহান আল্লাহ তায়ালা তাঁর আদরের বান্দাদের বিশেষভাবে এই দশকে ক্ষমা করে দিয়ে থাকেন। বান্দাও ক্ষমা-প্রার্থনার মধ্য দিয়ে এ দশক অতিবাহিত করেন। তবে যারা ক্ষমার এ সুযোগ পেয়েও গাফেল হয়ে আছে তারাই দুর্ভাগা। রাসুল (সা.) বলেন, ‘মাহে রমজান হলো গুনাহ ক্ষমা করার মাস। যে ব্যক্তি পবিত্র মাহে রমজান মাসে উপনীত হওয়ার পরও তার গুনাহসমূহ ক্ষমা করতে পারল না তার নাক ধুলায় ধূসরিত হোক।’ তাই এ মাসের প্রতিটি সময় কাটাতে হবে ইবাদত-বন্দেগির মধ্য দিয়ে।
মহান আল্লাহ তায়ালা বান্দাদের ক্ষমা করার জন্য সর্বদা প্রস্তুত থাকেন। ফলে ক্ষমা পাওয়ার জন্য খাঁটি মনে জীবনের যত গুনাহ রয়েছে তার জন্য অনুতপ্ত হওয়া প্রয়োজন। গুনাহের জন্য যদি আমি মনে মনে অনুতপ্ত না হই, শুধু মুখে মুখে আল্লাহর কাছে ক্ষমা চাই, তাহলে খাঁটি তওবা হবে না। তওবা করতে হবে আন্তরিকভাবে। মহান আল্লাহ তায়ালা বলেন, ‘তোমরা আল্লাহর কাছে তওবা কর উত্তম তওবা।’ (সুরা তাহরিম : আয়াত ৮)
মহান আল্লাহর কাছে ক্ষমা পেতে হলে অন্য মানুষকেও ক্ষমা করে দিতে হবে।
যে ব্যক্তি মানুষকে ক্ষমা করে দেয় আল্লাহ তায়ালাও তাকে ক্ষমা করে দেন। নিজের কৃতকর্মের জন্য মহান আল্লাহর কাছে কাকুতি-মিনতি করে তওবা এবং দোয়া করতে হবে। তওবার মাধ্যমে সফলতা অর্জন করা সম্ভব। মহান আল্লাহ তায়ালা বলেন, ‘তোমরা সবাই আল্লাহর সমীপে তওবা কর, যাতে তোমরা সফলতা অর্জন করতে পার।’ (সুরা নুর : আয়াত ৩১)
মাগফেরাতের দশকের মধ্যে মহান আল্লাহর কাছে তওবা ইস্তেগফার ও দোয়ার মাধ্যমে জীবনের সব গুনাহের জন্য ক্ষমা চেয়ে নিতে হবে। যারা মহান আল্লাহর কাছে গুনাহের জন্য ক্ষমা চাইবে তাদের গুনাহগুলোকে নেকি দ্বারা পরিবর্তন করে দেন। এ বিষয়ে মহান আল্লাহ তায়ালা বলেন, ‘আল্লাহ তাদের (তওবাকারীদের) গুনাহকে পুণ্য দ্বারা পরিবর্তিত করে দেন।’ (সুরা ফুরকান : ৭০)
সুতরাং মহান আল্লাহ নিকট আমাদের সবার মাগফেরাত কামনা করে নিজেদের নিষ্পাপ করে নেওয়ার সুযোগ এখনই। আল্লাহর নিকট ক্ষমা চাওয়ার পাশাপাশি মহান আল্লাহর অন্য বান্দাদের সঙ্গেও ভালো আচরণ করতে হবে। আমরা অন্যের সঙ্গে যেমন আচরণ করব আল্লাহ তায়ালাও আমাদের সঙ্গে তেমন আচরণ করবেন। আমরা অপরকে কষ্ট থেকে মুক্তি দেব, আল্লাহ তায়ালাও আমাদের কষ্ট থেকে মুক্তি দেবেন। রাসুল (সা.) বলেন, ‘তোমরা দুনিয়াবাসীদের প্রতি দয়া কর তাহলে আসমানবাসী আল্লাহপাকও তোমাদের প্রতি দয়া করবেন।’ (আবু দাউদ)

লেখক : সাবেক অধ্যক্ষ সরকারি মাদ্রাসা-ই-আলিয়া ঢাকা





সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]