ই-পেপার  বুধবার ১৯ জুন ২০১৯ ৫ আষাঢ় ১৪২৬
ই-পেপার  বুধবার ১৯ জুন ২০১৯

প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার
আশান্বিত ঘরমুখো মানুষ
প্রকাশ: সোমবার, ২৭ মে, ২০১৯, ১২:০০ এএম আপডেট: ২৬.০৫.২০১৯ ১১:৪৯ পিএম | প্রিন্ট সংস্করণ

প্রতি ঈদে ঘরমুখো মানুষের মনে থাকে শঙ্কা। প্রিয়জনের সঙ্গে আনন্দ ভাগাভাগি করতে প্রতিবারই মানুষকে পোহাতে হয় ভোগান্তি। টিকেট প্রাপ্তি থেকে শুরু করে রাস্তার যানজট নির্ধারিত সময়ে মানুষের ঘরে পৌঁছার পথে বাধা হয়ে দাঁড়ায়। এবারও ঈদের আগে যানবাহনের টিকেট সংগ্রহ করার অনিশ্চয়তা এবং মহাসড়কে যানজট মানুষকে শঙ্কায় ফেলে দিয়েছে। এ ছাড়া রাজধানীতে মেট্রোরেলসহ অনেকগুলো উন্নয়ন প্রকল্প চালু থাকায় পথের প্রশস্ততা কমে গেছে, যা ঢাকা থেকে বেরুনোর পথে যাত্রীদের দুর্ভোগের আশঙ্কা বাড়িয়েছে। সেই সঙ্গে সংবাদমাধ্যমেও ঈদের ভোগান্তি নিয়ে নানামুখী প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে। তবে সব শঙ্কাকে পেছনে ফেলে সরকার ঈদে ঘরমুখী মানুষের জন্য আন্তরিকভাবে কাজ করছে। মানুষের দুর্ভোগ কমাতে সরকার গ্রহণ করেছে নানামুখী উদ্যোগ। ঘরমুখী মানুষের দুর্ভোগ কমাতে, তাদের দুর্ভোগ লাঘব করতে প্রধানমন্ত্রী উদ্বোধন করেছেন বেশ কয়েকটি প্রকল্পের। এই প্রকল্পগুলোর অধীনে চালু হয়েছে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে বহুল প্রতীক্ষিত দ্বিতীয় মেঘনা ও দ্বিতীয় গোমতী সেতু। গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে তিনি সেতু দুটি উদ্বোধন করেন। দ্বিতীয় মেঘনা ও দ্বিতীয় গোমতী সেতুর পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রী উদ্বোধন করেছেন জয়দেবপুর-চন্দ্রা-টাঙ্গাইল-এলেঙ্গা মহাসড়কে কোনাবাড়ী ও চন্দ্রা ফ্লাইওভার, কালিয়াকৈর, দেওহাটা, মির্জাপুর ও ঘারিন্দা আন্ডারপাস এবং কড্ডা-১ সেতু ও বাইমাইল সেতু। এই প্রকল্পগুলোর উদ্বোধন শেষে প্রধানমন্ত্রী গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বাঁশিতে ফুঁ দিয়ে ও পতাকা নেড়ে দেশের দীর্ঘতম রেলপথ পঞ্চগড়-ঢাকা রুটে স্বল্প বিরতির ‘পঞ্চগড় এক্সপ্রেস’ ট্রেনের উদ্বোধন করেন। সাধারণ মানুষের দুর্ভোগ কমাতে সরকারের নেওয়া উন্নয়ন প্রকল্পগুলো বাস্তবায়নের পর এগুলোকে জনগণের জন্য সরকারের ঈদ উপহার হিসেবে উল্লেখ করেছেন প্রধানমন্ত্রী। কারণ এসব সেতু, চার লেনের সড়ক, আন্ডারপাস এবং নতুন ট্রেনের মাধ্যমে এই পথের যাত্রী সাধারণ স্বচ্ছন্দে চলাচল করতে পারবেন। এ জন্যই প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, ঈদের আগে যে কাজগুলো করলাম তা দেশবাসীকে ঈদ উপহার দিলাম। ঈদে নিরাপদে তারা বাড়ি যেতে পারবেন। এ ছাড়াও মানুষের ঈদযাত্রা সহজ ও স্বস্তির করতে বিআরটিসির বহরে নতুন গাড়ি সংযুক্ত করার কথা ঘোষণা করেছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী। তিনি ঈদের আগেই বিআরটিসির বহরে ২৭১টি বাস যুক্ত হবার কথা জানিয়ে বলেছেন, নতুন গাড়িগুলো যুক্ত হওয়ায় এবার এই গাড়িগুলো ছাড়াও ঈদে সর্বমোট ১ হাজার ৮৯টি গাড়ি চলবে। সরকার মানুষের দুর্ভোগ কমাতে নানা উদ্যোগ নিয়েছে। যাত্রাপথে যেসব স্থানে ঈদের সময় যানজট তৈরি হয়, সেসব জায়গায় সরকার উদ্যোগী হয়ে যানজট কমানোর উদ্যোগ নিয়েছে। ঢাকা থেকে বেরুনোর পথে বিমানবন্দর সড়কে উন্নয়ন কাজের জন্য যাত্রীদের যে ভোগান্তি হবার আশঙ্কা রয়েছে, সড়কে চলাচলকারী পরিবহনগুলোর মাঝে শৃঙ্খলা থাকলে তা কমার আশা ব্যক্ত করেছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী। সরকার সড়কপথে সাধারণ মানুষের ভ্রমণকে স্বস্তিদায়ক করতে উদ্যোগ নিয়েছে। আমরা আশাবাদী ঘরমুখো মানুষ কোনো সমস্যায় পড়বে না।




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : রফিকুল ইসলাম রতন
আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ।
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]