ই-পেপার বৃহস্পতিবার ২৭ জুন ২০১৯ ১৩ আষাঢ় ১৪২৬
ই-পেপার বৃহস্পতিবার ২৭ জুন ২০১৯

দেশে দেশে রমজান
ইউরোপের মুসলিমরা রমজান কাটান যেভাবে
মুফতি আবদুল্লাহ তামিম
প্রকাশ: সোমবার, ২৭ মে, ২০১৯, ১২:০০ এএম | প্রিন্ট সংস্করণ

বিশ্বের সবচেয়ে দীর্ঘতম রোজা রাখার দেশ ইউরোপের একটি দ্বীপ রাষ্ট্র আইসল্যান্ড। প্রায় ২২ ঘণ্টা রোজা রাখতে হয় দেশটির মুসলিম অধিবাসীদের। এ ছাড়াও ইউরোপের অন্য দেশে প্রায় ১৮ থেকে ১৯ ঘণ্টা রোজা রাখতে হয়। পৃথিবীর অনেক মুসলিম দেশের বহু মুসলমানের বসবাস ইউরোপে। বিশেষ করে ব্রিটেনে জনসংখ্যা প্রায় ৮৫ লাখের মধ্যে মুসলমান ১২ লাখ। জনসংখ্যার ১৩ শতাংশ মুসলিম। দীর্ঘ সময় রোজা রাখতে হলেও রমজান মাস ঘিরে তাদের আয়োজনের শেষ নেই। ইবাদতে আর সিয়াম সাধনায় ব্যস্ত হয়ে পড়ে রমজান এলেই। মসজিদগুলো হয়ে উঠে আরও ব্যস্ত। উৎসবমুখর প্রাণবন্ত।

ইউরোপে প্রায় ৮ লাখ বাঙালির বসবাস। যাদের বেশিরভাগের বসবাস ইস্ট লন্ডনে। রমজান এলেই এ এলাকা মেতে ওঠে উৎসবে। মেতে ওঠে ইবাদতে আর তারাবির সুন্দর সুরে। ইস্ট লন্ডন মসজিদ ইউরোপের সবচেয়ে বড় মসজিদ। এখানে রমজান মাস জুড়ে চলে নানা ইসলামিক অনুষ্ঠান। বিভিন্ন দেশের কারিরা নামাজ পড়ান তাতে। তারাবির নামাজের সময় হলেই দূর-দূরান্ত থেকে পায়ে হেঁটে, সাইকেলে চড়ে, গাড়িতে করে, বাসে চড়ে হাজারো মানুষ তারাবির নামাজ পড়তে ছুটে আসেন। শ্বেতাঙ্গ, কৃষ্ণাঙ্গ, এশিয়ানসহ বিভিন্ন জাতিগোষ্ঠী, বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ এক কাতারে তারাবিতে শরিক হন। তারাবি শেষ হলে ইস্ট লন্ডন এলাকায় মুসলিমদের ঢল নামে। মনে হয় কোনো মাহফিল থেকে হাজারো মানুষ বাড়ি ফিরছে।আবার ইফতারির সময়ে দেখা যায় ভিন্ন চিত্র। সবাই ছুটছে মসজিদের দিকে। নারীরাও তাদের কাতারে শামিল হয়। সবাই যার যার মতো ইফতার তৈরি করে নিয়ে চলে মসজিদে। একসঙ্গে ইফতার করার স্বাদ আনন্দ সত্যিই উপভোগের। মসজিদগুলোয় নারী-পুরুষদের আলাদা আলাদা ইফতারির আয়োজনে মুখর হয় পরিবেশ। শুধু তাই নয়, যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে এ মহিমান্বিত মাসের শুরুতে মুসলিমদের উদ্দেশে রমজানের এক বার্তা দেন। টুইট বার্তায় তিনি বলেন, রমজান শান্তি, গভীর সাধনা, আত্মোৎসর্গ ও দানশীলতার বৈশ্বিক মূল্যবোধের প্রকাশ ঘটায়। ‍তিনি যুক্তরাজ্য ও বিশ্বব্যাপী সব মুসলিমকে রমজান করিমের শুভেচ্ছা জানান। এ মাস উপলক্ষে নানান কর্মসূচিও ঘোষণা করে থাকেন যুক্তরাজ্যের সরকার। অন্যদিকে এ মহিমান্বিত মাস উপলক্ষে ইংল্যান্ডের ১৫০টিরও বেশি মসজিদে ভিন্ন ধর্মাবলম্বী দর্শনার্থীদের জন্য খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় যুক্তরাজ্যের সরকার। ইসলাম ধর্মে মসজিদের কার্যক্রম সম্পর্কে ধারণা লাভের জন্যই এ উদ্যোগ।
গত বছর ৮০টির মতো মসজিদ এ প্রক্রিয়ার অন্তর্ভুক্ত হয়েছিল বলে জানা যায়। এক্সপ্রেস নিউজে আরও বলা হয়, যুক্তরাজ্য মুসলিমদের সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা দিতে প্রস্তুত। যুক্তরাজ্যে শুধু টাওয়ার হ্যামলেটসে মসজিদের সংখ্যা হচ্ছে ৫০-এরও বেশি। প্রতিটি গলিতে একটি করে মসজিদ রয়েছে। টাওয়ার হ্যামলেটসের বাইরে বেশি মুসলমান বাস করেন নিউহাম ও রেডব্রিজ বারাতে। যুক্তরাজ্যে মসজিদের সংখ্যা দেড় সহ¯্রাধিকের ও বেশি। লন্ডনে এ সংখ্যা ৪ শতাধিক। এর মধ্যে বিখ্যাত মসজিদ আরবদের তৈরি রিজেন্ট পার্ক মসজিদ, হ্যাকনি বারাতে তুর্কিদের তৈরি সোলায়মানিয়া মসজিদ। এ ছাড়া বার্মিংহাম, মানচেস্টার, লুটন, কার্ডিফ এবং এডিনবরায় বিপুলসংখ্যক বাঙালি মুসলমানের বসবাস রয়েছে। প্রতিটি মসজিদে এ মহিমান্বিত মাসে পুরো কোরআন খতম করা হয়। ২০ রাকাত তারাবি পড়ে নিজ নিজ অবস্থানে পবিত্র রমজান মাসকে যথাযোগ্য মর্যাদায় পালন করছে তারা। রমজান মাসে লন্ডন মেট্রোপলিটন পুলিশ স্কটল্যান্ড ইয়ার্ডের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, যুক্তরাজ্য জুড়ে মসজিদগুলোয় সরকার নিরাপত্তার জোরদার করার ঘোষণা দিয়েছে। সব মিলিয়ে বহুজাতিক মানুষের দেশ যুক্তরাজ্যে মুসলিম সম্প্রদায় রমজান মাস পালন করে থাকে যথাযোগ্য মর্যাদায়। এমনকি ভোররাতের সাহরির সময়েও দেখা যায় সৌহার্দ্য আর সম্প্রীতির মেলবন্ধন। বাতিগুলো জ্বলে ওঠে মুসলিম এলাকাগুলোয়। সারা বছর প্রতিবেশীর খোঁজ না নিলেও এ মাসে সাহরি খেতে ঠিকই জাগিয়ে দিচ্ছে একে অন্যকে। এভাবেই যুক্তরাজ্য জুড়ে মুসলিমদের অনন্য এক মাস অতিবাহিত করা হয়।

সূত্র : আই নিউজ, মিডল ইস্ট আই, এক্সপ্রেস নিউজ অ্যাবাউট ইসলাম






সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : রফিকুল ইসলাম রতন
আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ।
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]