ই-পেপার বৃহস্পতিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ৪ আশ্বিন ১৪২৬
ই-পেপার বৃহস্পতিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯

আটকে রেখে কিশোরীকে ধর্ষন, অভিযুক্ত ডাক্তার আটক
নরসিংদী প্রতিনিধি
প্রকাশ: শুক্রবার, ৩১ মে, ২০১৯, ৪:০৩ পিএম আপডেট: ৩১.০৫.২০১৯ ৪:১৭ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

আটক ডাক্তার জুলফিকার আলী

আটক ডাক্তার জুলফিকার আলী

নরসিংদীতে নার্সিং কলেজে ফ্রি ভর্তি করার প্রলোভন দেখিয়ে কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগ এসেছে এক ডাক্তারের ওপর। ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে গাজীপুর জেলার হোতা পাড়া থানার মনিপুর গ্রামের আবুল কাশেমের পুত্র এমবিবিএস ডাক্তার নামধারী জুলফিকার আলী কে আটক করেছে পুলিশ।

ভুক্তভোগী কিশোরী ময়মনসিংহ জেলার পাগলা থানার গোয়ালবড় গ্রামের দিনমুজুর আঃ জলিলের কন্যা শারমিন সুলতানা (১৬)। 
শারমিনকে ২ মাস যাবত একটি বাসা ভাড়া নিয়ে ঘড়ে আটকে রেখে শারীরিক ও পাশবিক নির্যাতন করেছে ওই ডাক্তার।

বৃহস্পতিবার রাত ১১ টায় নরসিংদী সদর উপজেলার দঃশীলমান্দী গ্রামের সিরাজ উদ্দিনের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। নরসিংদী সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি সৈয়দুজ্জামান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে নির্যাতিতা কিশোরীকে উদ্বার করা সহ এতে জড়িত থাকায় ডাক্তার জুলফিকার আলী নামক এক জনকে আটক করা হয়েছে। কিশোরীর অভিবাবকরা ময়মনসিংহ থেকে নরসিংদী আসলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্র জানায়, উত্তর শীলমান্দীস্থ ছনিয়া নিটওয়ার মিলসে (ছনিয়া মিল) কর্মরত এমবিবিএস ডাক্তার জুলফিকার আলী বিগত ২ মাস পূর্বে দঃশীলমান্দী এলাকার সিরাজ উদ্দিনের বাড়ীতে পরিবার নিয়ে ভাড়া থাকার শর্তে একটি রুম ভাড়া করেন। পরিবার না এনে শারমীন সুলতানা নামের এক কিশোরীকে ভাগ্নি পরিচয় দিয়ে বাসায় নিয়ে আসে তিনি। বিগত দুইমাসে তাদের আচরন রহস্যজনক হলে বাড়ীর মালিকপক্ষ ডাক্তারের অনুপুস্থিতিতে কিশোরীকে চাপ প্রয়োগ করলে ঘটনার রাতে সে কান্নাকাটিকরে বাড়ীর সবাইকে বলে দেয় যে, এই ডাক্তার তার মামা নয়। তাকে জোড় পূর্বক ময়মনসিংহ থেকে নরসিংদী এনে নার্সিং কলেজে ফ্রি ভর্তি করে দিবে এবং বিভিন্ন ভয় দেখিয়ে তার উপর প্রতিনিয়ত পাশবিক নির্যাতন করে যাচ্ছে।

পরে বাড়ির মালিক অভিযুক্ত ডাক্তারকে বাসায় ডেকে এনে স্থানীয় শেকেরচর পুলিশ ফাঁড়িতে খবর দেয়। পুলিশ এসে নির্যাতিতার বক্তব্য শুনে ডাক্তার কে আটক করে। কিশোরী পুলিশকে আরও জানায়, ২০১৮ সালে ওই এলাকার শহীদ নগড় উচ্চবিদ্যালয় থেকে এস এস সি পাশ করে। তার সেবিকা (নার্স) হওয়ার স্বপ্ন ছিল এবং সে লিভার রোগেও অসুস্থ। তাকে চিকিৎসার জন্য কিশোরীর মা এই ডাক্তারের নিকট তাকে নিয়ে যায় এবং তারা গরীব বলে জানায়। বাবার বয়সী জুলফিকার তাদের দূর্বলতার সুযোগে এ আচরন করে বলে সে অভিযোগ করে।




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : রফিকুল ইসলাম রতন
আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ।
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]