ই-পেপার রোববার ১৮ আগস্ট ২০১৯ ৩ ভাদ্র ১৪২৬
ই-পেপার রোববার ১৮ আগস্ট ২০১৯

জল-পাথরের মিতালি বিছনাকান্দিতে!
মনোয়ার জাহান চৌধুরী,সিলেট
প্রকাশ: শুক্রবার, ৭ জুন, ২০১৯, ৫:১৪ পিএম আপডেট: ০৭.০৬.২০১৯ ৫:৩৩ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

জল-পাথরের মিতালি বিছনাকান্দিতে!

জল-পাথরের মিতালি বিছনাকান্দিতে!

ভ্রমণপিপাসুরা ঈদ এলেই ছুটে যেতে চান পর্যটন কেন্দ্রে। এবারও তার ব্যত্যয় ঘটাননি পর্যটকরা। তবে ঈদের ছুটিতে কোথায় ভ্রমণ করবেন এমন প্রশ্ন যখন সামনে চলে আসে তখন সিলেটই পছন্দের তালিকায় ঠাঁই পায়। সিলেট যেনো এক প্রাকৃতিক নৈসর্গ, পাহাড়ের অপরূপ সৌন্দর্য্য! তাই দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের পর্যটকরা পা বাড়ান পর্যটন নগরী সিলেটেই। সিলেটই যেনো তাদের বিনোদন ভূবন! সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলার প্রকৃতি কন্যা জাফলং, মিঠা পানির বন ‘রাতারগুল’ এবং পাথুরে রাজ্যে বিছনাকান্দিতে ছুটে যান ভ্রমণপিপাসুরা। এছাড়া জেলার জৈন্তাপুর উপজেলায় রয়েছে ‘নীল নদের’ লালাখাল। এ চারটি বিনোদন কেন্দ্রেই যেনো সিলেটকে আলাদাভাবে পরিচিত করে তুলেছে। তাই ঈদের ছুটিতে এসব স্পটেই সময় কাটান পর্যটকরা। এছাড়া সিলেটের ছোট-বড় বিভিন্ন বিনোদন কেন্দ্রে ভিড় থাকে পর্যটকের।
পর্যটন নগরী হিসেবে খ্যাত পূণ্যভূমি সিলেট প্রতি ঈদেই থাকে লোকে লোকারণ্য। ছুটি কাটানোর জন্য দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে আসা পর্যটকদের পদভারে মুখরিত থাকে সিলেটের পর্যটন স্পটগুলো। এবারও তার ব্যতিক্রম হয়নি। এবারের ঈদে লম্বা ছুটি হওয়ায় নগরীর বেশিরভাগ  হোটেলই আগে থেকেই বুকিং শেষ হয়েছে।
জল-পাথরের মিতালি বিছনাকান্দিতে!

জল-পাথরের মিতালি বিছনাকান্দিতে!

চা-বাগান, হাওর-নদ, নদী, পাথর আর পাহাড়ের মিতালির দেখা মেলে এ অঞ্চলে। দেশের উত্ত-পূর্ব সীমান্ত লাগোয়া পর্যটন কন্যা সিওেলটের গোয়াইনঘাট উপজেলার জাফলং আর স্বচ্ছ জলের নদী জৈন্তাপুরের লালাখালকে ঘিরে পর্যটকদের আনাগোনা সবচেয়ে বেশি থাকে। জল-পাহাড়ের অপরূপ সৌন্দর্যের সঙ্গে দেখা মেলে ভারতের মেঘালয় পাহাড়ের সারি সারি ঝর্ণা ধার। গোয়াইনঘাটের বিছনাকান্দি আর পাংথুমাই এর সঙ্গে দেশের একমাত্র প্রাকৃতিক জলার বন রাতারগুলের আকর্ষণও এবার ঈদে পর্যটকের নজর কেড়েছে। আছে ওলিকুল শিরোমনি হজরত শাহজালাল (র.) ও হযরত শাহপরাণ (র.)’র মাজার। আর তাই বছর জুড়েই পর্যটকের ঢল নামে সিলেটে। যা ঈদ মৌসুমে তা  বেড়ে যায় বহুগুণ! পর্যটকদের সার্বিক নিরাপত্তা দিতে ব্যস্ত থাকেন প্রশাসনের কর্তা-ব্যক্তিরা।
এদিকে প্রতি বছরই জাফলং ও বিছানাকান্দিতে পানিতে ডুবে পর্যটক মৃত্যুর ঘটনা ঘটে। তাই এবারের ঈদে দুর্ঘটনা এড়িয়ে পর্যটকদের ভ্রমণ নিরাপদ করতে পুলিশের পক্ষ থেকে নেয়া হয় বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা। সময়ের আলো’কে এমনটিই জানালেন গোয়াইনঘাট থানার ওসি (তদন্ত) হিল্লোল রায়। তিনি বলেন, দুর্ঘটনা প্রবণ এলাকাগুলোতে ফায়ার সার্ভিসের বিশেষ দলের উপস্থিতি নিশ্চিত করা হয়।
গেলো বৃহস্পতিবার ছিল ঈদের ছুটি। তাই পর্যটকরা ছুটে যান গোয়াইনঘাট উপজেলার পাথুরে রাজ্য বিছনাকান্দিতে। যেখানে দেখা মেলে জল-পাথরের মিতালি। ছোট-বড় পাথর আর জলের সঙ্গে মিশে পর্যটকরা হই হুল্লুর করে আনন্দ ভাগাভাগি করে নেন। জল-পাথরের অপূর্ব মিলন দেখে অভিভূত হন সিলেট থেকে পরিবার নিয়ে ঘুরতে যাওয়া ব্যাংক কর্মকর্তা নিশাত জাহান চৌধুরী মনি। তিনি সময়ের আলো’কে বলেন, স্বচ্ছ জলের সঙ্গে ছোট বড় পাথরের আলিঙ্গন দেখে সত্যিই নয়নজুড়ানো। এছাড়া এখান থেকে মেঘের সঙ্গে পাহাড়ের মিতালিও বেশ উপভোগ করার মতো। তার সঙ্গে সুর মেলান আরেক পর্যটক ব্যবসায়ী শাহ জসিম আলীও। তিনিও পরিবার নিয়ে জল-পাথরের রাজ্যে ঘুরতে এসেছেন।




এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : রফিকুল ইসলাম রতন
আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ।
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]