ই-পেপার শনিবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ৬ আশ্বিন ১৪২৬
ই-পেপার শনিবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯

মন্ত্রী যখন কণ্ঠশিল্পী
আনন্দ সময় প্রতিবেদক
প্রকাশ: মঙ্গলবার, ১১ জুন, ২০১৯, ১২:০০ এএম | প্রিন্ট সংস্করণ

চৌষট্টি কলার প্রথম কলা হচ্ছে সংগীত। আর যিনি সংগীত ভুবনে বিচরণ করেন তার মধ্যে চর্চিত কণ্ঠ থাকবে এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু যিনি রাজনীতি করেন, মানুষের ভালো-মন্দ নিয়ে সারাক্ষণ চিন্তায় ও কাজে ব্যস্ত থাকেন তার পক্ষে সুরের ভুবনে বিচরণ করা খুবই দুরূহ ব্যাপার। কিন্তু বর্তমান তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ সম্প্রতি সবাইকে চমকে দিয়েছেন। এই চমক কোনো কথার কারুকাজে নয়, কোনো রাজনীতির বক্তব্য নয়, চমক হচ্ছে সুরের ভেলায় চড়ে শ্রোতামনকে ছুঁয়ে যাওয়ার, মুগ্ধ করার। বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল আরটিভিতে ঈদের বিশেষ অনুষ্ঠান ‘রাজনীতি ছন্দে, ঈদ আনন্দে’ অনুষ্ঠানে তথ্যমন্ত্রী তার পরিশীলিত কণ্ঠে গাইলেনÑ ‘এই মেঘলা দিনে একলা ঘরে থাকে না তো মন’। অর্কেস্ট্রার সঙ্গে তাল মিলিয়ে তিনি যখন সুর মেলালেন, তখন মনে হয়নি তিনি একজন মন্ত্রী। নিয়মিত কণ্ঠশীলন করা এক সংগীতশিল্পী বলেই তাকে মনে হয়েছে। অনেকের কাছে আবিষ্কার হলো হাছান মাহমুদ একজন সত্যিকার অর্থেই কণ্ঠশিল্পী। গানের অন্তর্নিহিত বাণীকে তিনি যেভাবে সুরের মূর্ছনায় ছড়িয়ে দিলেন, তা অবাক হওয়ার মতো। কণ্ঠের কারুকাজ, তাল, লয়, মাত্রায় তিনি যেন একজন দক্ষ সংগীত প্রেমিক। গৌরীপ্রসন্ন মজুমদারের লেখা ও বিখ্যাত সুরকার-শিল্পী হেমন্ত মুখোপাধ্যায়ের গাওয়া গানটি নিজের কণ্ঠে তুলে নেওয়া একজন সাধারণ গায়কের পক্ষে বেশ কঠিন। সুর, লয় ও মাত্রায় ড. হাছান মাহমুদ যেভাবে আবেগ দিয়ে গাইলেন তাতে দর্শক-শ্রোতাদের কাছে নতুন মাত্রায় পরিচিত হলেন তিনি। এই পরিচয়কে সামনে রেখে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ আগামীতে আরও নতুন গান উপহার দেবেন এই প্রত্যাশা সবার।





সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : রফিকুল ইসলাম রতন
আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ।
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]