ই-পেপার বৃহস্পতিবার ২১ নভেম্বর ২০১৯ ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
ই-পেপার বৃহস্পতিবার ২১ নভেম্বর ২০১৯

ইতিবাচক এ উদ্যোগকে স্বাগত
প্রকাশ: বুধবার, ১৯ জুন, ২০১৯, ১২:০০ এএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 63

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অধীনে বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী পুলিশ। পুলিশে চাকরি অনেক চাকরিপ্রার্থীর কাছেই অগ্রাধিকার পেয়ে থাকে। যারা পুলিশের বিভিন্ন পদে চাকরি করতে আগ্রহী তারা বাংলাদেশ পুলিশে নিয়োগের জন্য অপেক্ষায় ছিল। তাদের সেই স্বপ্ন পূরণ হতে চলছে খুব কাছাকাছি সময়ে। ইতোমধ্যে আইজিপির দফতরে এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ২২ জুন থেকে সারা দেশে ৯ হাজার ৬৮০ জন পুলিশ কনস্টেবল নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু হবে। বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীতে কনস্টেবল পদে ৮ হাজার ৫০০ পুরুষ ও ১ হাজার ৫০০ নারীসহ সর্বমোট ১০ হাজার প্রার্থী বাছাই করা হবে। বলা হয়েছে, এই নিয়োগ প্রক্রিয়াটি হবে ঘুষ-দুর্নীতিমুক্ত ১০০ ভাগ স্বচ্ছতার ভিত্তিতে। শুধু ৩ টাকা মূল্যের একটি ফরম এবং ১০০ টাকার ব্যাংক ড্রাফট করে প্রার্থীকে যোগ্যতার বিবেচনায় পুলিশ কনস্টেবল হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হবে। কনস্টেবল নিয়োগ একটি চলমান প্রক্রিয়া। আমাদের অতীত অভিজ্ঞতা বলে, যেকোনো পুলিশি নিয়োগে লাখ লাখ টাকার ঘুষ-দুর্নীতির কলঙ্ক জড়িয়ে আছে। যা পুলিশ প্রশাসনের যেকোনো নিয়োগকে প্রশ্নবিদ্ধ করে রেখেছে।
এসব নিয়োগে এমপি, মন্ত্রী, এসপিসহ সংশ্লিষ্ট সবাই জড়িত বলে আমরা গণমাধ্যমে জানতে পারি। এই বিষয়টি অনেকটা ‘ওপেন সিক্রেট’। তারপরও এসব নিয়োগে দুর্নীতি ছিল বহমান। তা থেকে পুলিশ প্রশাসন মুক্ত হতে পারেনি। এবারেই প্রথম পুলিশের পক্ষ থেকে কনস্টেবল নিয়োগের ঘোষণা দিয়ে প্রার্থীকে বলা হয়েছে, কোনো রকম ঘুষ-দুর্নীতি নয়, যোগ্যতার ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া হবে। সম্পূর্ণ স্বচ্ছতায় পুলিশ কনস্টেবল নিয়োগে মন্ত্রণালয় এবং আইজিপির শক্ত অবস্থান থাকায় বাংলাদেশ পুলিশে নিয়োগ অতীতের সব দুর্নামমুক্ত হওয়ার প্রত্যাশা করছে। আমরা লক্ষ করছি, ইতোমধ্যে অনেক জেলায় এসপি পদে রদবদল করা হচ্ছে। অতীতে যাদের বিরুদ্ধে ঘুষ-দুর্নীতির অভিযোগ রয়েছে তাদের এই নিয়োগ থেকে দূরে রাখা হয়েছে। বাছাইকৃত কর্মকর্তাদের পাঠানো হচ্ছে। পুলিশের পক্ষ থেকে দালাল-প্রতারক চক্রকে ধরার ধন্য ফাঁদও পাতা আছে। এমনকি জেলায় জেলায় পুলিশের পক্ষ থেকে মাইকিংসহ নানা প্রচার-প্রচারণা চালানো হচ্ছে। যাতে করে প্রার্থীরা প্রতারিত না হয়। এমনকি কোনোরূপ রাজনৈতিক তদবির ব্যতিরেকে এই পুলিশ কনস্টেবল নিয়োগে উচ্চ পর্যায়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। বিষয়টি আমরা ইতিবাচক হিসেবে দেখছি। আমাদের দেশে এমন নিয়োগ প্রক্রিয়া বিরল ঘটনা। আমরা আশাবাদী। আমাদের দেশে সর্ব ক্ষেত্রে এই প্রক্রিয়ায় নিয়োগ হোক এটাই আমাদের প্রত্যাশা। পুলিশের এই কনস্টেবল নিয়োগ স্বচ্ছতার দৃষ্টান্ত হয়ে দুর্নীতির শেকড়ে আঘাত করুক। দেশকে দুর্নীতিমুক্ত ধাপ হিসেবে কনস্টেবল নিয়োগ প্রত্যয়ী ভ‚মিকা রাখবে।




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]ail.com