ই-পেপার রোববার ২১ জুলাই ২০১৯ ৫ শ্রাবণ ১৪২৬
ই-পেপার রোববার ২১ জুলাই ২০১৯

সাকিবের জোড়া আঘাত
ক্রীড়া ডেস্ক
প্রকাশ: সোমবার, ২৪ জুন, ২০১৯, ৮:৪৩ পিএম আপডেট: ২৫.০৬.২০১৯ ৩:১২ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

সাকিবের জোড়া আঘাত

সাকিবের জোড়া আঘাত

বাংলাদেশের দেওয়া ২৬৩ রানের টার্গেটে ব্যাটিং করছে আফগানিস্তান। তবে ভালো ব্যাট করতে থাকা আফগানদের দলীয় ১১তম ওভারে ছন্দপতন হয়। যেখানে নিজের প্রথম ওভারের পঞ্চম বলে রহমত শাহকে তামিম ইকবালের ক্যাচে ফেরান সাকিব আল হাসান। ৩৫ বলে তিনটি চারে ২৪ রান করেন রহমত।
২১তম ওভারে মোসাদ্দেক হোসেনের অফ স্পিনে ভারসাম্য রাখতে না পেরে মুশফিকুর রহিমের কাছে স্টাম্পিং হন হাসমত। ১১ রান করে বিদায় নেন তিনি।


এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ২৩ ওভার শেষে ২ উইকেট হারিয়ে ৮৭ রান করেছে আফগানরা।

 এর আগে সোমবার ইংল্যান্ডের সাউদাম্পটনে বিশ্বকাপের ৩১তম ম্যাচে আফগানদের বিপক্ষে টস হেরে ব্যাট করে বাংলাদেশ। প্রথমে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুতেই লিটন দাসের উইকেট হারায় টাইগাররা। দলীয় ২৩ রানে লিটন সাজঘরে ফেরার পর দলের হাল ধরেন সাকিব-তামিম।

বাঁচা-মরার লড়াইয়ের ম্যাচে সাকিব-তামিম সাবধানি ব্যাটিং করে দ্বিতীয় উইকেটে ৫৯ রানের পার্টনারশিপ গড়েন। তাদের জুটিতে বড় স্কোরের স্বপ্ন দেখেছিল টাইগার সমর্থকরা। কিন্তু দলীয় ৮২ রানে মোহাম্মদ নবীর ঘূর্ণিতে বিভ্রান্ত হয়ে বোল্ড হয়ে বিদায় নেন তামিম ইকবাল। তার আগে ৫৩ বলে ৩৬ রান করেন দেশসেরা এ ওপেনার।

তামিম আউট হলেও অনবদ্য ব্যাটিং করে যান সাকিব আল হাসান। তৃতীয় উইকেটে মুশফিকুর রহিমকে সঙ্গে নিয়ে ৬১ রানের জুটি গড়েন সাকিব। আর এই জুটিতেই ফিফটির পর মুজিব-উর-রহমানের বলে এলবিডব্লিউ হয়ে সাজঘরে ফেরেন সাকিব। তার আগে ৬৯ বলে ৫১ রান করেন তিনি। আর এই রান করার মধ্য দিয় এবারের বিশ্বকাপে ছয় ম্যাচে ৪৭৬ রান নিয়ে শীর্ষে উঠে যান বিশ্বসেরা এ অলরাউন্ডার।

সাকিবের বিদায়ের পর সুবিধা করতে পারেননি সৌম্য সরকার। ওপেনিংয়ের পরিবর্তে পাঁচ নম্বর পজিশনে ব্যাটিংয়ে নেমে মাত্র ৩ রানে ফেরেন সৌম্য। দলীয় ৩২ ওভারে ১৫১ রানে লিটন দাস, তামিম ইকবাল, সাকিব আল হাসান ও সৌম্য সরকারের উইকেট পতনের পর দলের হাল ধরেন মুশফিকুর রহিম ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

পঞ্চম উইকেটে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের সঙ্গে ৫৬ রানের জুটি গড়েন মুশফিক। দ্রুত সাকিব আল হাসান ও সৌম্য সরকারের বিদায়ের পর থমকে গিয়েছিল রানের গতি। ছক্কায় রানের চাকা সচল করলেন মুশফিকুর রহিম। তুলে নিলেন ক্যারিয়ারের ৩৫তম ফিফটি। ৫৬ বলে দুই চার ও এক ছক্কায় পঞ্চাশ স্পর্শ করেন আগের ম্যাচের সেঞ্চুরিয়ান। দৌলত জাদরানের ওভারে তার ছক্কায় ৭৩ বল পর কোনো বাউন্ডারি পায় বাংলাদেশ। ম্যাচে এটাই তাদের প্রথম ছক্কা।

 উইকেটে সেট হয়ে যাওয়ার পর নিজের ইনিংসটা লম্বা করতে পারেননি রিয়াদ। গুলবাদিন নাইবের বলে ক্যাচ তুলে দিয়ে ফেরেন তিনি। তার আগে ৩৮ বলে দুটি চারের সাহায্যে ২৭ রান করেন মাহমুদউল্লাহ।

তবে লিটন-তামিমের বিদায়ের পর ১৮তম ওভারে ব্যাটিংয়ে নামা মুশফিক শুরু থেকেই দায়িত্বশীলতার পরিচয় দেন। সাকিব ও মাহমুদউল্লাহর সঙ্গে ৬১ ও ৫৬ রানের জুটি গড়া মুশফিক, ষষ্ঠ উইকেটে মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতের সঙ্গেও পার্টনারশিপ গড়ে তোলেন।

ইনিংসের শেষ দিকে যত দ্রুত সম্ভব রান তোলার চেষ্টায় ছিলেন মুশফিকুর রহিম। দৌলত জাদরানের বলে ক্যাচ দিয়ে ফিরে গেলেন সেই চেষ্টাতেই।

কাভার দিয়ে উড়িয়ে মারতে চেয়েছিলেন মুশফিক। টাইমিং করতে পারেননি। এক্সট্রা কাভারে মোহাম্মদ নবির হাতে ধরে পড়েন তিনি। ভাঙে দ্রুত এগোনো ৪৪ রানের জুটি।

৮৭ বলে চারটি চার ও একটি ছক্কায় ৮৩ রান করেন মুশফিক।

বাংলাদেশ: তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম, লিটন দাস, মাহমুদউল্লাহ, মোসাদ্দেক হোসেন, মোহাম্মদ সাইফ উদ্দিন, মেহেদী হাসান মিরাজ, মাশরাফি বিন মুর্তজা, মুস্তাফিজুর রহমান।

আফগানিস্তান: গুলবাদিন নাইব, সামিউল্লাহ শিনওয়ারি, রহমত শাহ, হাশমতউল্লাহ শাহিদি, আসগর আফগান, নাজিবউল্লাহ জাদরান, মোহাম্মদ নবি, রশিদ খান, ইকরাম আলি খিল, দৌলত জাদরান, মুজিব উর রহমান।




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : রফিকুল ইসলাম রতন
আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ।
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]