ই-পেপার মঙ্গলবার ২৩ জুলাই ২০১৯ ৮ শ্রাবণ ১৪২৬
ই-পেপার মঙ্গলবার ২৩ জুলাই ২০১৯

ভারতের ৬ উইকেটের পতন
সময়ের আলো ডেস্ক
প্রকাশ: বুধবার, ১০ জুলাই, ২০১৯, ৩:৩০ পিএম আপডেট: ১০.০৭.২০১৯ ৭:৩৭ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

ভারতের ৬ উইকেটের পতন

ভারতের ৬ উইকেটের পতন

ফাইনালে যেতে ভারতের সামনে কিউইরা লক্ষ্য দাড় করায় ২৪০ রানের। কিন্তু ব্যাটিং এ নেমেই ব্যাটিং বিপর্যয়ে পরেছে কোহলি বাহিনী। দলীয় ৫ রানের মধ্যেই ভারত হারায় রাহুল-রোহিত-কোহলিকে। হেনরির বলে অসাধারণ এক ক্যাচে নিসামের তালুবন্ধি হয়ে সাজ ঘরে ফেরেন কার্তিক(৬)। মাঝে প্যান্টে ভর করে ভারতের রানের চাকা একটু এগিয়ে যেতেই দলীয় ৭১ রানেই থামতে হয় ৩২ রান করা প্যান্টকে । সর্বশেষ হার্দিক পান্ডিয়াকে হারালে ষষ্ঠ উইকেটের পতন হয় ভারতের। মিচেল স্যান্টনারের দ্বিতীয় শিকার পান্ডিয়া কেন উইলিয়ামসনকে ক্যাচ দেন। ৩১তম ওভারে দলীয় ৯২ রানে ও ব্যক্তিগত ৩২ রানে ফেরেন তিনি। ৬২ বলে দুটি চার হাঁকান তিনি।
ভারতের স্কোর ৩৩ ওভারে  ১০৮ রান ৬ উইকেটে ।

ভারতের ৬ উইকেটের পতন

ভারতের ৬ উইকেটের পতন

দলের ব্যাটিংয়ের সবচেয়ে বড় ভরসা রোহিত শর্মা আর বিরাট কোহলি ফিরে গেছেন ইনিংসের ১৬ বল পেরুতেই। ম্যাট হেনরির দুর্দান্ত এক সুইংয়ে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিয়েছেন ভারতের মারকুটে এই ওপেনার। করেছেন মাত্র ১ রান। পরের ওভারে এসে আরেক ব্যাটিং ভরসা বিরাট কোহলিকে এলবিডব্লিউয়ের ফাঁদে ফেলেন ট্রেন্ট বোল্ট। কোহলিও করেন ১ রান। তারপর হেনরির দ্বিতীয় শিকার লোকেশ রাহুল (০)। তাতে ৫ রানেই ৩ উইকেট নেই ভারতের।

এর আগে বৃষ্টিতে থমেক যাওয়া ম্যাচে বুধবার ৪৬.১ ওভার থেকে ব্যাটিং শুরু করে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে কিউইরা সংগ্রহ করেছে ২৩৯ রান।

 বৃষ্টিতে থমকে যাওয়া ম্যাচ গড়ায় রিজার্ভ ডেতে। ম্যানচেস্টারে মঙ্গলবার বিশ্বকাপের প্রথম সেমি-ফাইনালে নিউ জিল্যান্ড ৪৬.১ ওভারে ৫ উইকেটে ২১১ রান তোলার পর নামে বৃষ্টি। এরপর আর খেলা শুরু হতে পারেনি। নিয়ম অনুযায়ী বুধবার রিজার্ভ ডেতে খেলা শুরু হবে এখান থেকেই।

বৃষ্টির শঙ্কা নিয়েই শুরু হয়েছিল দিন। টসের সময়ও আকাশ ছিল মেঘলা। উইকেট নতুন। পরের দিকে বৃষ্টির শঙ্কা নিয়েও টস জিতে ব্যাটিংয়ের চ্যালেঞ্জে নামে নিউ জিল্যান্ড। তবে সেই চ্যালেঞ্জ জয় করার মতো ব্যাটিং তারা করতে পারেনি।

ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে এবারের বিশ্বকাপের ম্যাচগুলি ছিল বেশ রান প্রসবা। সেমি-ফাইনালের উইকেট যদিও মনে হয়ে একটু মন্থর। এরপরও ভারতের শক্তিশালী ব্যাটিং লাইন আপকে চ্যালেঞ্জ জানাতে এই শেষ কয়েক ওভারে ঝড় তুলতে হবে কিউইদের, এরপর বোলিংও হতে হবে দুর্দান্ত।

বিশ্বকাপে এবার এই মাঠে আগের সব ম্যাচই জিতেছে আগে ব্যাট করা দল। তবে দিনের প্রেক্ষাপটে নিউ জিল্যান্ডের সিদ্ধান্ত জাগাল প্রশ্ন। বিশেষ করে,শুরুর সহায়ক কন্ডিশনে ভারতের টপ অর্ডারে ছোবল মারার সুযোগ যেখানে ছিল।

আগে ব্যাট করে বড় স্কোর করে ভারতকে চাপে ফেলার কাজটিও করতে পারেনি তারা। বরং শুরুতে ভুগেছে তারা জাসপ্রিত বুমরাহ ও ভুবনেশ্বর কুমারের আগুনে বোলিংয়ে।

নিউ জিল্যান্ডের ভোগান্তির শুরু ম্যাচের প্রথম বল থেকেই। ভুবনেশ্বরের বলে জোরালো আবেদনে বেঁচে যান মার্টিন গাপটিল। ভারত হারায় রিভিউ। তবে ভারতীয় বোলাররা হারায়নি ছন্দ। বুমরাহ ও ভুবনেশ্বরের দুর্দান্ত প্রথম স্পেলে হাঁসফাঁস করতে থাকে কিউই ব্যাটসম্যানেরা।

প্রথম ৩ ওভারে রান ছিল ১। চতুর্থ ওভারে বুমরাহ বলে বিরাট কোহলির দারুণ ক্যাচে ফেরেন গাপটিল। প্রথম ম্যাচের পর থেকে নিজেকে হারিয়ে খোঁজা অভিজ্ঞ ওপেনার এই ম্যাচেও করেছেন ১৪ বলে ১ রান।

৭ ওভার শেষে নিউ জিল্যান্ডের রান ছিল ১০। বুমরাহর বলে হেনরি নিকোলসের ড্রাইভে অষ্টম ওভারে আসে ইনিংসের প্রথম বাউন্ডারি।

নতুন বলের দুই বোলারের স্পেল শেষে একটু স্বস্তি পায় নিউ জিল্যান্ড। নিকোলস ও উইলিয়ামসন আস্তে আস্তে রান বাড়াতে থাকেন। গড়ে ওঠে জুটি।

৮৯ বলে দুজনের ৬৮ রানের জুটি ভাঙে রবীন্দ্র জাদেজার দারুণ ডেলিভারিতে। ২৮ রান করে ব্যাট-প্যাডের ফাঁক গলে বোল্ড হন নিকোলস।

টেইলরের সঙ্গে মিলে এরপর উইলিয়ামসন গড়েছেন আরেকটি জুটি। তবে ভারতের আঁটসাঁট বোলিং ও উইকেটের মন্থরতা মিলিয়ে গতি খুব বাড়াতে পারছিলেন না তারা। ১৪তম ওভারের পর টানা ১৩ ওভারে আসেনি কোনো বাউন্ডারি।

১০২ বলে ৬৫ রানের জুটি শেষ হয় উইলিয়ামসনের বিদায়ে। ৯৫ বলে ৬৭ করে কিউই অধিনায়ক ক্যাচ দেন যুজবেন্দ্র চেহেলের থমকে আসা একটি বলে।

এরপর লড়াই চালিয়ে গেছেন টেইলর। জিমি নিশাম, কলিন ডি গ্র্যান্ডহোমরা পারেননি লম্বা সময় সঙ্গ দিতে। ইনিংসের একমাত্র ছক্কায় চেহেলকে গ্যালারিতে পাঠিয়ে টেইলর ফিফটি স্পর্শ করেন ৭৩ বলে।

বৃষ্টিতে খেলা বন্ধের সময় টেইলরের রান ছিল ৮৫ বলে ৬৭। রানটা আরও বাড়াতে কিউইদের ভরসা তিনিই। ভারতও জানে, টেইলরকে দ্রুত ফেরাতে পারলে নিউ জিল্যান্ড থমকে যাবে অল্পতেই। ম্যাচে তাই লড়াইয়ের রসদ আছে এখনও, যদি না আবার বাগড়া দেয় বৃষ্টি!






সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : রফিকুল ইসলাম রতন
আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ।
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]