ই-পেপার শুক্রবার ১৯ জুলাই ২০১৯ ৪ শ্রাবণ ১৪২৬
ই-পেপার শুক্রবার ১৯ জুলাই ২০১৯

শ্মশানঘাটে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের সময় ম্যাজিস্ট্রেটের ওপর হামলা
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশ: বৃহস্পতিবার, ১১ জুলাই, ২০১৯, ১২:২১ পিএম আপডেট: ১১.০৭.২০১৯ ১২:৩৬ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

শ্মশানঘাটে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের সময় ম্যাজিস্ট্রেটের ওপর হামলা

শ্মশানঘাটে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের সময় ম্যাজিস্ট্রেটের ওপর হামলা

রাজধানীর বুড়িগঙ্গার শ্মশানঘাটে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের সময় বিআইডব্লিউটি’র ম্যাজিস্ট্রেট ও কর্মকর্তাদের ওপর হামলার ঘটনা ঘটেছে।

বৃহস্পতিবার সকালে উচ্ছেদের সময় এ হামলা করেন স্থানীয়রা।


প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয় লোকজন জানান, সকাল সাড়ে নয়টায় অভিযান শুরুর আগেই স্থানীয় প্রভাবশালী ইব্রাহিম আহমেদ ওরফে রিপন তাঁর কয়েক শত অনুসারীকে নিয়ে শ্মশানঘাট এরাকায় অবস্থান নেন। অভিযান শুরুর পরপরই কর্মকর্তাদের ওপর তাঁরা চড়াও হন। একপর্যায়ে শারীরিকভাবেও লাঞ্ছিত করেন। এ সময় অভিযানে থাকা পুলিশ সদস্যদের ভূমিকা নিয়েও অনেকে প্রশ্ন তুলেছেন। হামলার সময় পুলিশ সদস্যদের নির্লিপ্ত থাকতে দেখা যায়। অবশ্য পরে ওই ঘটনার পর অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এখন পুলিশি পাহারায় এখানে অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে।

পোস্তগোলা শ্মশানঘাট এলাকায় স্থানীয় প্রভাবশালী ইব্রাহিম আহমেদ নদী ভরাট করে দীর্ঘদিন ধরে বালুর ব্যবসা করে আসছেন। গতকাল বুধবার বিকেলে বালুর ওই গদি অপসারণ করতে গেলে বিআইডব্লিউটিএকে বাধা দেওয়া হয়। বিআইডব্লিউটিএ বলছে, পোস্তগোলা শ্মশানঘাট ও এর আশপাশের এলাকায় শুল্ক আদায় ও মালামাল ওঠানো-নামানোর জন্য স্থানীয় ইকবাল আহমেদকে ইজারা দেওয়া হয়েছিল। ইকবাল স্থানীয় প্রভাবশালী ইব্রাহিম আহমেদের ছোট ভাই। এর আগেও ইকবাল আহমেদের বাধার কারণে সেখানে অভিযান চালানো সম্ভব হয়নি।

গতকাল অভিযান-সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা দাবি করেন, পোস্তগোলা শ্মশানঘাটে অভিযান চালাতে গেলে দলবল নিয়ে সেখানে হাজির হন ইব্রাহিম ও তাঁর অনুসারীরা। একপর্যায়ে তাঁরা বিআইডব্লিউটিএর দুজন কর্মকর্তার সঙ্গে দুর্ব্যবহারও করেছেন। যদিও এ অভিযোগ অস্বীকার করেন ইব্রাহিম আহমেদ।




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : রফিকুল ইসলাম রতন
আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ।
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]