ই-পেপার শুক্রবার ৬ ডিসেম্বর ২০১৯ ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
ই-পেপার শুক্রবার ৬ ডিসেম্বর ২০১৯

কোন্দলে পেছাচ্ছে ছাত্রদলের কাউন্সিল
সাব্বির আহমেদ
প্রকাশ: শনিবার, ১৩ জুলাই, ২০১৯, ১২:০০ এএম আপডেট: ১২.০৭.২০১৯ ১০:০৬ পিএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 75

নির্ধারিত ১৫ জুলাইয়ে ছাত্রদলের আসন্ন কাউন্সিল হচ্ছে না। দুপক্ষের কোন্দল মেটাতে হিমশিম খাচ্ছে কাউন্সিলের দায়িত্বে থাকা বিএনপির সিনিয়র নেতারা। পরিস্থিতি অনুক‚লে না থাকায় এক প্রকার ‘বিরক্ত’ হয়েই সরে যাচ্ছেন কাউন্সিলের দায়িত্বে থাকা স্থায়ী কমিটির মির্জা আব্বাস ও গয়েশ্বর চন্দ্র রায়।

ছাত্রদলের একটি সূত্র বলছে, কাউন্সিল ঘিরে পরিস্থিতি দিন দিন ঘোলাটে হচ্ছে। বিক্ষুব্ধ ও কাউন্সিল প্রত্যাশী ছাত্রদল নেতারা কেউ কাউকে মানছে না। এমন অবস্থায় বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশে কিছুদিনের জন্য কাউন্সিল পেছাচ্ছে। এ বিষয়ে রোববার আনুষ্ঠানিক ঘোষণা আসবে। অন্তর্বর্তী সময়ের জন্য সিনিয়রদের নিয়ে আহŸায়ক কমিটি করা হতে পারে। নতুন কমিটিতে নেতা নির্বাচনে ‘২০০০ সালের পরে এসএসসি/সমমানের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে হবে’ মর্মে শর্তারোপ করায় অপেক্ষাকৃত তরুণরা চলে এসেছেন লাইমলাইটে। এ শর্তে বাদ পড়েছেন সদ্য বিলুপ্ত কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদকসহ অধিকাংশ সদস্য। এ নিয়ে শুরু হয় বিক্ষোভ। তবে এ বিক্ষোভে পাত্তা না দিয়ে উল্টো ১২ নেতাকে বহিষ্কার করে বিএনপি। তবে বিএনপির আশ্বাসে আন্দোলন স্থগিত করে বঞ্চিতরা। ক্ষুব্ধ নেতাদের দাবি অনুযায়ী কাউন্সিলের আগে আহŸায়ক কমিটি গঠনে রাজি হয়নি সংগঠনটির সাবেক সভাপতি ও  সাধারণ সম্পাদকদের সমন্বয়ে গঠিত সার্চ কমিটির নেতারা। এ অবস্থায় ফের আন্দোলনে যাওয়ার ইঙ্গিত দিয়েছে ক্ষুব্ধ নেতারা।
এদিকে ছাত্রদলের সংকট সমাধানে দায়িত্বপ্রাপ্ত স্থায়ী কমিটির দুই নেতা মির্জা আব্বাস ও গয়েশ্বর চন্দ্র রায় সরে দাঁড়াতে চাচ্ছেন বলে জানা গেছে। এ বিষয়ে মির্জা আব্বাস সময়ের আলোকে বলেন, ‘আমি ওদের দায়িত্বে নেই।’ আমি তো আর ছাত্রদল করি না। তাদের বিষয়ে আমি কিছুই বলব না। ছাত্রদলের ক্ষুব্ধ একাধিক নেতা সময়ের আলোকে বলেন, সার্চ কমিটির নেতাদের প্রতি আমাদের কোনো আস্থা নেই। আমরা ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের কাছে সরাসরি দাবি তুলে ধরতে চাই। আমাদের বিষয়গুলো ভুলভাবে তুলে ধরা হচ্ছে।
এ বিষয়ে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, তারেক রহমান আমাদের দায়িত্ব দিয়েছিলেন। আমরা ছাত্রদলের সবার সঙ্গে কথা বলে পরিস্থিতি শান্ত করার চেষ্টা করেছি। দেখা যাক কি হয়। সার্চ কমিটির অন্যতম নেতা বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন বলেন, নতুন করে আর কিছু বলতে চাই না। তবে রোববার সংবাদ সম্মেলন করে বিস্তারিত জানানো হবে। আশা করি, ইতিবাচক কিছু হবে। সব বিবাদ মেটানোর চেষ্টা চলছে।
প্রসঙ্গত, দীর্ঘদিন ক্ষমতার বাইরে থাকা বিএনপির সহযোগী সংগঠন ছাত্রদলের সর্বশেষ কমিটি ঘোষণা করা হয় ২০১৪ সালের অক্টোবরে। রাজীব আহসান ও আকরামুল হাসানের নেতৃত্বাধীন কমিটির মেয়াদ শেষ হয় ২০১৬ সালের অক্টোবরে। পরে গেল মাসে ছাত্রদলের নতুন কাউন্সিলের জন্য তিনটি কমিটি করা হয়। এতে ১৫ জুলাই নির্বাচনের শিডিউলও ঘোষণা করা হয়। কিন্তু পরিস্থিতি এখনও বেগতিক থাকায় আদতে তা আর ঠিক থাকছে না।





সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]