ই-পেপার  বুধবার ২০ নভেম্বর ২০১৯ ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
ই-পেপার  বুধবার ২০ নভেম্বর ২০১৯

প্রাক-প্রাথমিক থেকে দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের জন্য ‘ইউনিক’ আইডি
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশ: শনিবার, ১৩ জুলাই, ২০১৯, ১২:০০ এএম আপডেট: ১২.০৭.২০১৯ ১০:২৬ পিএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 12

দেশের তিন কোটির বেশি স্কুল শিক্ষার্থীর জন্য ইউনিক আইডি বা একক পরিচয় তৈরি করছে সরকার। পাঁচ বছর বয়সি প্রাক-প্রাথমিকের শিক্ষার্থী থেকে ১৭ বছর বয়সের দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত সব শিক্ষার্থী এই পরিচয়পত্র পাবে। এতে ১০ বা ১৬ ডিজিটের শিক্ষার্থী শনাক্ত নম্বর থাকবে, যা পরবর্তীতে হবে ওই শিক্ষার্থীর জাতীয় পরিচয়পত্রের নম্বর।  জাতীয় পরিচয়পত্র তৈরিতে আলাদা করে তথ্য সংগ্রহের প্রয়োজন হবে না। ২০২০ সাল থেকে শিক্ষার্থী শনাক্ত করার ইউনিক আইডি দেওয়া শুরু হবে।
জানা গেছে, ২০১০ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একটি সমন্বিত ও কার্যকর সিআরভিএস ব্যবস্থা গড়ে তোলার নির্দেশ দিয়েছিলেন। প্রত্যেক নাগরিকের একটি ইউনিক আইডি তৈরি করার নির্দেশনার আট বছর পর এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। শিক্ষার্থীর ইউনিক আইডিতে বিদ্যমান জাতীয় পরিচয়পত্রের চেয়ে বেশি তথ্যের সংযোজন থাকবে। ‘সিভিল রেজিস্ট্রেশন অ্যান্ড ভাইটাল স্ট্যাটিসটিকস’ (সিআরভিএস) বাস্তবায়নের আলোকে এই আইডি দেবে সরকার।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় ‘প্রাথমিক শিক্ষার্থীদের জন্য প্রোফাইল প্রণয়ন’ এবং শিক্ষা তথ্য ও পরিসংখ্যান ব্যুরোর (ব্যানবেইস) ‘এস্টাবলিশমেন্ট অব ইন্টিগ্রেটেড এডুকেশনাল ইনফরমেশন ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম’ শীর্ষক দুটি প্রকল্পের আওতায় এই কার্যক্রম বাস্তবায়ন করবে। স্থানীয় সরকার বিভাগের জন্ম-মৃত্যু নিবন্ধন জেনারেলের কার্যালয় ও নির্বাচন কমিশনের জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) অনুবিভাগসহ সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও সরকারি দফতরের সহায়তায় এই কার্যক্রম পরিচালিত হবে।

এ প্রসঙ্গে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আকরাম-আল-হোসেন বলেন, ৫ বছর বয়সি প্রাক-প্রাথমিক শ্রেণির শিক্ষার্থীদের একটা ডাটাবেইসের আওতায় নেওয়া হবে। জন্ম নিবন্ধন অনুযায়ী শিশুর বয়স যখন পাঁচ বছর হবে তখন থেকেই একটি সিস্টেমে নেওয়া হবে। পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত সব শিক্ষার্থীকে এর আওতায় আনা হবে। শিক্ষার্থীরা একটি আইডেন্টিফিকেশন নাম্বার পাবে। এই নাম্বারটিই পরবর্তী সময় জাতীয় পরিচয়পত্রের নাম্বারে রূপান্তরিত হবে। তিনি বলেন, প্রাথমিকের যারা আইডেন্টিফিকেশন নাম্বার পাওয়ার পর মাধ্যমিকে ভর্তি হবে এবং মাধ্যমিকের পর কলেজে ভর্তি হবে তখন পর্যায়ক্রমে মাধ্যমিক ও কলেজের কাছে এই তথ্য চলে যাবে। শিক্ষার্থীর বয়স ১৮ বছর হলে এনআইডির অনুবিভাগের আওতায় চলে যাবে তার তথ্য।





সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]