ই-পেপার  বুধবার ২০ নভেম্বর ২০১৯ ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
ই-পেপার  বুধবার ২০ নভেম্বর ২০১৯

সুখবর
স্বপ্ন বুনতে শুরু করেছে তুত চাষিরা
ঠাকুরগাঁও রেশম কারখানা চালুর উদ্যোগ
ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি
প্রকাশ: শনিবার, ১৩ জুলাই, ২০১৯, ১২:০০ এএম আপডেট: ১২.০৭.২০১৯ ১০:২৬ পিএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 11

দের যুগ ধরে বন্ধ থাকা ঠাকুরগাঁও রেশম কারখানা চালুর উদ্যোগ গ্রহণ করেছে ঠাকুরগাঁও জেলা প্রশাসক ড. কেএম কামজ্জামান সেলিমসহ রেশম উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকতারা। কারখানাটি প্রতিষ্ঠিত হয় আশির দশকে। তখন থেকে এই কারখানাটি বেশ ভালোই চলছিল কিন্তু ২০০১ সালের দিকে ততকালীন সরকার কারখানাটি বন্ধ ঘোষণা করেন। ক্রমাগত লোকসানের ফলে এটি বন্ধ ঘোষণা করার পর আর চালু করা হয়নি। এতে কারখানাটির ১৩৪ জন শ্রমিক বেকার হয়ে যান। ১০ হাজার রেশম চাষি বেকায়দায় পড়ে যান।
পুনরায় কারখানাটি চালু করার লক্ষ্যে সম্প্রতি কারখানাটি পরিদর্শন করেন ঠাকুরগাঁওয়ে জেলা প্রশাসক ড. কেএম কামরুজ্জামান সেলিম। এ বিষয়ে ঠাকুরগাঁও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মুহা. সাদেক কুরাইশী বলেন, আকস্মিকভাবে বিএনপি জামায়াত সরকার ক্ষমতায় আসার পরে এই রেশম কারখানটি বন্ধ করে দেন। ফলে কারখানার অনেক শ্রমিক বেকার হয়ে যায়। যারা গুটি পোকার চাষ করত তারাও আজ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বতর্মান সরকার অনেক রুগ্ন ও বন্ধ হয়ে যাওয়া শিল্প প্রতিষ্ঠানগুলো পুনরায় চালু করার উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন। এর আগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঠাকুরগাঁওয়ে সফরকালে এই কারখানাটি দ্রæত চালু করা যায় সে বিষয়ে পরামর্শ দিয়েছিলেন। তার ফলশ্রæতিতে অচিরেই এ কারখানাটি চালু করবেন বলে আমরা আশা করছি। ঠাকুরগাঁও সরকারি মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ আবু বক্কর ছিদ্দিক স্মৃতিচারণ করে বলেন, ঠাকুরগাঁওয়ে রেশম কারখানা থেকে ১৯৮৫ সালে আমি আমার নতুন বউয়ের জন্য একটি রেশমের শাড়ি ক্রয় করেছিলাম। এই কারখানাটি বন্ধ হয়ে যাওয়ায় অনেক শ্রমিক কর্মহীন হয়ে যায়। এ কারখানাটি পুনরায় চালুর যে উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে তাতে এখানকার তুত চাষিরা আবারও স্বপ্ন বুনতে শুরু করেছে। এই কারখানাটি চালু হলে ঠাকুরগাঁওসহ সমগ্র বাংলাদেশ উপকৃত হবে।

কারখানা চালুর বিষয়ে বাংলাদেশ রেশম উন্নয়ন বোর্ড ঠাকুরগাঁও জোনাল কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক আকবর হোসেন বলেন, বর্তমান সরকার রাজশাহী রেশম কারখানাটি চাল করেছেন তার পরিপ্রেক্ষিতে ঠাকুরগাঁওয়ের কারখানাটিও চালু করার উদ্যোগ নিয়েছেন জেলা প্রশাসক ড. কেএম কামরুজ্জামান সেলিম। এ বিষয়ে তিনি বলেন, ঐতিহ্য ও সম্ভাবনার জনপদ ঠাকুরগাঁও নামটি যেমন কৃষি পণ্যের জন্য অত্যন্ত পরিচিত নাম। তেমনি একসময় এখানে রেশম শিল্পও বিখ্যাত ছিল। সে কারণেই ১৯৮১ সালে এখানে রেশম কারখানা স্থাপন হয় এবং কারখানাটি খুব সফলতার সঙ্গেই ২০০১ সাল পর্যন্ত চলমান ছিল। এ কারখানটি যদি আমরা চালু করতে পারি তাহলে এখানে কর্মসংস্থান ও আর্থসামাজিক উন্নয়নে কারখানাটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। ঠাকুরগাঁওবাসীর জন্য যেমন ভ‚মিকা রাখবে তেমনি সমগ্র বাংলাদেশের জন্যও ভূমিকা রাখবে।




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]