ই-পেপার মঙ্গলবার ২৩ জুলাই ২০১৯ ৭ শ্রাবণ ১৪২৬
ই-পেপার মঙ্গলবার ২৩ জুলাই ২০১৯

পুলিশ কনস্টেবল নিয়োগ
টিউশনি করে ছয় সদস্যের সংসারের হাল ধরা কোহিনূরও এখন পুলিশ
নিজস্ব প্রতিবেদক কুমিল্লা
প্রকাশ: শনিবার, ১৩ জুলাই, ২০১৯, ১২:০০ এএম আপডেট: ১২.০৭.২০১৯ ১১:২৪ পিএম | প্রিন্ট সংস্করণ

কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলা সদরের সাবের আহম্মেদের মেয়ে কাজল রেখা সোমা। হতদরিদ্র পরিবারে আট বোন ও এক ভাইয়ের মধ্যে তিনি পঞ্চম। পুলিশ কনস্টেবল পদে নিয়োগের লিখিত পরীক্ষা দিয়ে কুমিল্লা ইপিজেডের কর্মস্থল গার্মেন্টে চলে যান তিনি। এইচএসসি উত্তীর্ণ সোমা কর্মস্থল থেকে ছুটি না পাওয়ায় লিখিত পরীক্ষার ফলও জানতে পারেননি। মৌখিক পরীক্ষার দিন উপস্থিত না দেখে জেলা পুলিশ সুপারের নির্দেশে এক কর্মকর্তা সোমাকে মোবাইল ফোনে জেলা পুলিশ লাইন্সে ডেকে নেন। এরপর মৌখিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হলে তার নিয়োগ চ‚ড়ান্ত করা হয়।
জেলার হোমনা উপজেলার নিলখী নয়াহাটি গ্রামের কোহিনূর আক্তারের চাকরি পাওয়ার গল্পটি আরও ভিন্ন। ২০১০ সালে সন্ত্রাসীদের হাতে নৃশংসভাবে খুন হন তার বাবা শহিদুল ইসলাম। চার ভাই, এক বোন ও মা নিয়ে তাদের অভাবের সংসার। টিউশনি করে যা পেতেন তা দিয়ে ছয় সদস্যের সংসারের হাল ধরেন কোহিনূর। শুধু কাজল রেখা কিংবা কোহিনূর নন, জেলা পুলিশে নিয়োগ পাওয়া ৩০৭ জনের মধ্যে অনেকেরই রয়েছে এমন আরও ব্যতিক্রমী গল্প।
মঙ্গলবার বিকাল পর্যন্ত কুমিল্লা পুলিশ লাইন্সের শহীদ আরআই এবিএম আবদুল হালিম মিলনায়তনে জেলা পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলামসহ জেলা পুলিশের কর্মকর্তারা নতুন নিয়োগপ্রাপ্তদের ফুল দিয়ে বরণ করে নেন। অনুষ্ঠানে ১০৩ টাকায় চাকরি পাওয়ার অনুভ‚তি ব্যক্ত করে চোখের পানি ফেলেন হতদরিদ্র পরিবারের নিয়োগ পাওয়া অনেকেই। ওই অনুষ্ঠানে নিয়োগপ্রাপ্তদের মা-বাবা, পরিবারের সদস্য এবং নিয়োগ বোর্ডের সদস্য ছাড়াও জেলা পুলিশের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা ও নগরীর বিশিষ্টজনরা উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে দুর্নীতিকে ‘না’ বলে হাত তুলে সবাইকে শপথবাক্য পাঠ করান পুলিশ সুপার।
জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, চ‚ড়ান্ত নিয়োগে ছেলেদের ১৭৩ জনের মধ্যে সাধারণ কোটায় ১১৫, এতিম কোটা ২, আনসার ৩, পোষ্য ৭ ও মুক্তিযোদ্ধা কোটায় ৪৬ এবং মেয়েদের ১৩৪ জনের মধ্যে সাধারণ ১২৯, মুক্তিযোদ্ধা কোটায় ৩, পোষ্য ও এতিম কোটায় ১ জন করে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে নিয়োগপ্রাপ্তদের ফুল দিয়ে বরণ করা হয়। এই নিয়োগে চাকরি পেয়েছেন গার্মেন্ট কর্মী, দিনমজুর, সবজি বিক্রেতা, কৃষক, ভ্যান ও রিকশাচালকের সন্তানসহ ৩০৭ জন। এদিকে চাকরি পেয়ে হতদরিদ্র ওই পরিবারগুলোতে বয়ে চলছে আনন্দের বন্যা।





সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : রফিকুল ইসলাম রতন
আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ।
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]