ই-পেপার সোমবার ৯ ডিসেম্বর ২০১৯ ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
ই-পেপার সোমবার ৯ ডিসেম্বর ২০১৯

‘কীর্তিমান’ উইলিয়ামসনই টুর্নামেন্ট সেরা
ক্রীড়া প্রতিবেদক
প্রকাশ: সোমবার, ১৫ জুলাই, ২০১৯, ১২:০০ এএম আপডেট: ১৫.০৭.২০১৯ ১২:৩৮ পিএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 107

‘কীর্তিমান’ উইলিয়ামসনই টুর্নামেন্ট সেরা

‘কীর্তিমান’ উইলিয়ামসনই টুর্নামেন্ট সেরা

প্রাপ্তি আর অপ্রাপ্তি দুটো নিয়েই বিশ্বকাপ মিশন শেষ হলো কেন উইলিয়ামসনের। দারুণ ছন্দে থেকেও তিনি নিউজিল্যান্ডকে উপহার দিতে পারলেন না প্রথম বিশ্বকাপ জয়ের মুহূর্ত। তবে ইংল্যান্ডের মাটিতে ব্যাটিং জাদুতে ‘অধিনায়ক’ উইলিয়ামসন ঠিকই গড়েছেন বিশ্বরেকর্ড। পেছনে ফেলেছেন শ্রীলঙ্কার সাবেক অধিনায়ক মাহেলা জয়াবর্ধনেকে। কীর্তিমান এই কিউই অধিনায়ককে পুরস্কৃত করেছে আইসিসিও। উইলিয়ামসনের হাতে তুলে দিয়েছে টুর্নামেন্ট সেরার খেতাব।

বিশ্বকাপে ফাইনালে রেকর্ডের হাতছানি ছিল উইলিয়ামসনের সামনে। সেটা হলো, অধিনায়ক হিসেবে বিশ্বকাপের এক আসরে সর্বোচ্চ রানের মাইলফলক স্পর্শ। যা করতে মাত্র এক রানই প্রয়োজন ছিল নিউজিল্যান্ডের অধিনায়কের। লন্ডনের লর্ডসে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সেই দূরত্ব ঘুচান উইলিয়াসমসন। অধিনায়ক হিসেবে বিশ্বকাপের এক আসরে সর্বোচ্চ ৫৭৮ রান সংগ্রহ করে তিনি নিজেকে নিয়ে গেলেন নতুন এক উচ্চতায়। পেছনে ফেললেন শ্রীলঙ্কার মাহেলা জয়াবর্ধনেকে।

ইংল্যান্ডের চলমান টুর্নামেন্ট জুড়েই রানখরায় ভুগেছে নিউজিল্যান্ডের ওপেনাররা। এতে উইলিয়ামসনের কাঁধেই আসে বাড়তি চাপ। যা দারুণভাবেই সামলে নিয়েছেন তিনি। দুই ম্যাচ ছাড়া বাকি ম্যাচগুলোতে ব্যাট হাতে নিজের দায়িত্বটা পালন করে গেছেন উইলিয়ামসন। ওই ম্যাচ দুটোর একটিতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে কিউইরা ১০ উইকেটে জিতলে ব্যাটিং করার প্রয়োজন পড়েনি দলপতির। আর লিগপর্বে ভারতের বিপক্ষে অপর ম্যাচটি ভেসে যায় বৃষ্টিতে। তবে ফাইনালসহ দশ ম্যাচে দুর্দান্ত পারফর্ম করেই উইলিয়ামসন ভেঙেছেন জয়াবর্ধনের রেকর্ড।
ক্রিকেটের মেগা ইভেন্টে অধিনায়ক হিসেবে এক আসরে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড এতদিন ছিল জয়াবর্ধনের দখলে। লঙ্কান অধিনায়ক দলের হাল শক্ত হাতে ধরেছিলেন ২০০৭ বিশ্বকাপে। ১১ ম্যাচে ৬০.৮৮ গড়ে রেকর্ড ৫৪৮ রানে দলকে তুলেছিলেন ফাইনালে। এবার ইংল্যান্ডে একই ভ‚মিকায় আবির্ভূত উইলিয়ামসন। নেতৃত্বদানের পাশাপাশি ব্যাট হাতে দলকে পথ দেখালেন টুর্নামেন্ট জুড়ে। নিউজিল্যান্ডকে তুললেন বিশ্বকাপের ফাইনালে। ৮২.৫৭ গড়ে দুটি করে সেঞ্চুরি এবং হাফসেঞ্চুরিতে ৫৭৮ রান করে পেছনে ফেললেন জয়াবর্ধনেকে।

এই তালিকার তৃতীয় স্থানে আছেন অস্ট্রেলিয়ার বিশ^কাপজয়ী অধিনায়ক রিকি পন্টিং। শিরোপা জেতা ২০০৭ বিশ্বকাপের আসরে ১১ ম্যাচে ৬৭.৩৭ গড়ে ৫৩৯ রান করেছিলেন বর্তমান অস্ট্রেলিয়া দলের সহকারী কোচ পন্টিং। আর চলতি আসরে ১০ ম্যাচে ৫০৭ রান করে তালিকার চতুর্থ স্থানে নিজের নাম লিখিয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ। পঞ্চম স্থানে আছেন সাবেক দক্ষিণ আফ্রিকার অধিনায়ক এবি ডি ভিলিয়ার্স। গত আসরে (২০১৫ বিশ^কাপে) ৮ ম্যাচে ৪৮২ রান করেন এই প্রোটিয়া।

তবে শিরোপার লড়াইয়ে রেকর্ড গড়তে ১ রান করতেই ১২টি বল খেলতে হয়েছে উইলিয়ামসনকে। লর্ডসের সবুজ উইকেটে জোফরা আর্চারের বলে ব্যাটের খোঁচায় কোনো রকমে একটি সিঙ্গেল নিয়ে জয়াবর্ধনেকে পেছনে  ফেলেন কিউই দলপতি। তবে দেখেশুনে শুরু করলেও ইনিংস লম্বা করতে পারেননি উইলিয়ামসন। আর্চারের বলে রানের খাতা খোলা উইলিয়ামন রানের খাতা বন্ধ করেন লিয়াম প্লাঙ্কেটের বলে। সাজঘরে ফেরার আগে ৫৩ বলে ২ চারে সাজান নিজের ৩০ রানের ইনিংস।

নিজের আউটের জন্য অবশ্য প্রযুক্তিকে দোষারোপ করতে পারেন উইলিয়ামসন। কেননা ইনিংসের ২৩তম ওভারে প্লাঙ্কেটের চতুর্থ বলে ব্যাট চালাতে গিয়ে ব্যর্থ হন কিউই দলপতি। যা গøাভসবন্দি করেন উইকেটের পেছনে ওঁৎ পেতে থাকা জস বাটলার। এরপরই জোরালো আবেদন করে ইংলিশরা। কিন্তু সেটা যৌক্তিক মনে হয়নি আম্পায়ার কুমার ধর্মসেনার। শ্রীলঙ্কার এই আম্পায়ার তুলেননি তর্জনী। এতে প্রযুক্তির সাহায্য নেন উইয়ন মরগান। রিভিউয়ে স্পষ্টভাবেই বোঝা যায়, ব্যাট-বলে ঘটেছিল সংঘর্ষ। ফলাফল, মাঠছাড়া উইলিয়ামসন।

তবে সাজঘরে ফেরার আগে দলকে শক্ত অবস্থানেই তুলেন অধিনায়ক। দলীয় ২৯ রানে এক ওপেনার মার্টিন গাপটিল আউট হলেও আরেক ওপেনার হেনরি নিকোলসকে সঙ্গে নিয়ে ওই ধাক্কা সামলে নেন উইলিয়ামসন। ২২তম ওভারে নিউজিল্যান্ড শতকের কোটা অতিক্রম করে আর কোনো উইকেট না হারিয়েই। কিন্তু পরের ওভারেই নিকোলস-উইলিয়ামসনের জুটি ভাঙলে ফাইনালের চাপটা ঠিকমতো সামলে নিতে পারেনি মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যানরা। এতে শেষতক নির্ধারিত ৫০ ওভারে কিউইদের সংগ্রহ দাঁড়ায় ৮ উইকেটে ২৪১।
চ্যালেঞ্জিং এই পুঁজি নিয়ে দারুণ লড়েছিলেন ফার্গুসন-বোল্টরা। কিন্তু সুপার ওভারের লড়াইয়ে পেরে ওঠেনি নিউজিল্যান্ড। এতে টুর্নামেন্ট সেরা হলেও শিরোপা হাতছাড়া হওয়ার কষ্টটা সহজে ভুলতে পারবেন না উইলিয়ামসন এমনটা বলাই যায়।




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]