ই-পেপার শুক্রবার ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯ ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
ই-পেপার শুক্রবার ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯

তিতুমীর কলেজের হল গুলোতে ডেঙ্গুর ছড়াছড়ি, আতঙ্কে শিক্ষার্থীরা
ক্যাম্পাস প্রতিনিধি
প্রকাশ: শুক্রবার, ২ আগস্ট, ২০১৯, ৯:২২ এএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 179

তিতুমীর কলেজের হল গুলোতে ডেঙ্গুর ছড়াছড়ি, আতঙ্কে শিক্ষার্থীরা

তিতুমীর কলেজের হল গুলোতে ডেঙ্গুর ছড়াছড়ি, আতঙ্কে শিক্ষার্থীরা


সারা দেশে আশঙ্কাজনক হারে বাড়ছে ডেঙ্গু রোগী। আক্রান্তদের সেবা দিতে হিমশিম পরিস্থিতিতে হাসপাতালগুলো। ডেঙ্গু প্রতিরোধে র‌্যালি, সভা, সেমিনার বক্তব্যের ছড়াছড়ি থাকলেও নিয়ন্ত্রণে আসছে না ডেঙ্গু। হাসপাতালগুলোতে শুধুই ডেঙ্গু রোগী। শয্যা সংখ্যার চেয়ে কয়েকগুণ বেশি রোগীর চিকিৎসা চলছে হাসপাতালে। ডেঙ্গু রোগীদের জন্য আলাদা ওয়ার্ড চালু করা হয়েছে হাসপাতালগুলোতে। কিন্তু সেখানেও স্থান সংকুলান না হওয়ায় মেঝেতে রোগী রেখে চিকিৎসা দিতে হচ্ছে চিকিৎসকদের। দিন দিন বেড়েই চলেছে ডেঙ্গু রোগী ।

এবার পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন অভিযান , সভা সেমিনারের পরেও ডেঙ্গু থেকে রক্ষা পেলো না  রাজধানীর সরকারি তিতুমীর কলেজের আবাসিক হলের শিক্ষার্থীরা। তিতুমীর কলেজে সর্বমোট তিনটি হল রয়েছে। হলে থাকা শিক্ষার্থীদের তথ্য মতে প্রায় ত্রিশ জনের অধিক শিক্ষার্থী ইতমধ্যে ডেঙ্গু রোগে আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্যে অনেকেই হল ছেড়ে গ্রামের বাড়ীতে চলে গেছেন। অনেকেই আবার চিকিৎসা নিতে ভিড় করছেন হাসপাতাল গুলোতে।

কুর্মিটোলা হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা নেওয়া আক্কাসুর রহমান আঁখি হলে থাকা  আশ্রাফুল ইসলাম তুষার নামে এক ডেঙ্গু আক্রান্ত শিক্ষার্থীর সাথে কথা বললে তিনি জানান, তিনি গত দুই দিন আগে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছেন। ইতমধ্যে চিকিৎসা বাবদ তার অনেক টাকা খরচ হয়েছে। অভিবাবকরা সাথে না থাকায় বিপাকে পড়তে  হয়েছে তাকে। হলে অপরিচ্ছন্নাকেই দ্বায়ী করছেন তিনি।

সিরাজ ছাত্রী নিবাসের (বনানী) তাহমিনা তাম্মি নামে এক শিক্ষার্থী বলেন, হল থেকে কমপক্ষে ৫/৬ জন বড় আপুকে জ্বরে আক্রান্ত হয়ে বাড়ি চলে গেছে। তবে পরে যতটুকু জানতে পারি ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত হবার ফলে তারা শঙ্কিত ছিলো।

সুফিয়া কামাল হলের কামরুন্নাহার নামে এক ডেঙ্গু আক্রান্ত ছাত্রী জানান, তিনি গত তিন দিন ধরে জ্বর অনুভব করছেন,গতকাল পরিক্ষা করলে তার ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হওয়া নিশ্চিত হয়। ফলে বর্তমানে সে গ্রামের বাড়ীতে চলে যায়।

এদিকে হলগুলোতে ডেঙ্গু ছড়াছড়ির কারনে আতঙ্কে ভুগছে বাকি শিক্ষার্থীরা। ইতমধ্যে ভয়ে হল ত্যাগ করেছে অনেকে। হলে থাকা কামরুল ইসলাম নামে এক শিক্ষার্থী জানান, তিতুমীরে ডেঙ্গুর প্রভাব বাড়ার অন্যতম প্রধান কারণ হচ্ছে বৃষ্টির কারণে হল গুলোর আশে পাশে বিভিন্ন জায়গায় পানি জমে  রয়েছে। যেখান থেকে এডিস মশার সৃষ্টি হচ্ছে এবং হল গুলোতে ডেঙ্গু ছড়িয়ে পড়েছে।  এছাড়াও হলে পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা কর্মী থাকলেও নিয়মিত পরিষ্কার না করার অভিযোগ উঠেছে। এদিকে আবাসিক হল গুলোতে ডাস্টবিন  না থাকায় যেখানে সেখানে ময়লা ফেলতে হচ্ছে শিক্ষার্থীদের। অধ্যক্ষ বরাবর চিঠি দিলেও এখন পর্যন্ত কোন সমাধান মিলেনি বলে জানান শিক্ষার্থীরা।

উল্লেখ্য এ পর্যন্ত সারা দেশে ২৮ জনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত হওয়া গেছে। এর মধ্যে সরকারি হাসপাতালে মারা গেছে ছয়জন। বাকি ২২ জনই বিভিন্ন বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। স্বাস্থ্য অধিদফতরের ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুমের তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় ৫৪৭ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। জুলাই মাসে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়েছেন ৭ হাজার ১১২ জন। এ বছরের জানুয়ারি থেকে গতকাল পর্যন্ত ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়েছেন ৯ হাজার ২৫৬ জন। এর মধ্যে ঢাকা মেডিকেলে চিকিৎসা নিয়েছেন ১ হাজার ৩২১ জন। ঢাকার বাইরে গতকাল ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়েছেন ১১ জন।




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]