ই-পেপার শুক্রবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ৪ আশ্বিন ১৪২৬
ই-পেপার শুক্রবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯

আরেকটি প্রথম তাইজুলের
ক্রীড়া প্রতিবেদক
প্রকাশ: শনিবার, ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১২:০০ এএম আপডেট: ১৪.০৯.২০১৯ ১২:৪৮ এএম | প্রিন্ট সংস্করণ

আরেকটি প্রথম তাইজুলের

আরেকটি প্রথম তাইজুলের

বলের লেংথটাই বুঝতে পারেননি ব্রেন্ডন টেলর। স্লগ সুইপ খেলতে গিয়েছিলেন জিম্বাবুইয়ান ওপেনার। বল তার ব্যাটের ওপরের অংশে লেগে ভাসল হাওয়ায়। শর্ট থার্ডম্যানে থাকা মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ অনায়াসেই বলটা তালুবন্দি করলেন। ব্যাস, বাংলাদেশের ক্রিকেটে আরেকটা ‘প্রথম’-এ নাম উঠে গেল তাইজুল ইসলামের।

সচারচর সাদা পোশাকে লাল বলেই হাত ঘুরাতে দেখা যায় তাইজুলকে। ক্যারিয়ারের সূচনালগ্ন থেকেই এ বাঁহাতি স্পিনারের গায়ে সেটে দেওয়া হয়েছে ‘টেস্ট স্পেশালিস্ট’ তকমা। ক্রিকেটের এ অভিজাত সংস্করণে তার পারফরম্যান্সও বিশেষজ্ঞেরই মতো। ২৫ টেস্ট খেলেই ঝুলিতে জমা করে ফেলেছেন ১০৫ উইকেট। কদিন আগেই আফগানিস্তানের বিপক্ষে চট্টগ্রাম টেস্টে বাংলাদেশের বোলারদের মধ্যে সব থেকে কম টেস্ট খেলে ১০০ উইকেট নেওয়ার কীর্তি গড়েছেন তিনি।

টেস্ট ক্রিকেটে সফল হলেও বরাবরই উপেক্ষিত থেকে গেছেন সীমিত ওভারের দলে। অথচ ‘লিস্ট-এ’ ক্রিকেটে এই বাঁহাতি স্পিনারের পারফরম্যান্স যথেষ্টই আশা জাগানিয়া। কিন্তু সেসব খুব একটা আমলে নেননি নির্বাচকরা। ইলিয়াস সানি, আরাফাত সানি, মোশাররফ হোসেন রুবেল, নাজমুল ইসলাম অপুদের মধ্যেই আব্দুর রাজ্জাকের বিকল্প খুঁজেছেন তারা। সবাই যখন প্রত্যাশা পূরণে ব্যর্থ, তখন আবার তাইজুলেরই শরণাপন্ন টিম ম্যানেজমেন্ট।

তাইজুলকে নিয়েই সীমিত ওভারের সবশেষ দুটো সিরিজে দল সাজিয়েছেন নির্বাচকরা। বিশ্বকাপের পর শ্রীলঙ্কা সফরের ওয়ানডে দলে ছিলেন। দুই ম্যাচ খেলে মাত্র একটি উইকেট নিলেও বাঁহাতি স্পিনার ছিলেন বেশ মিতব্যায়ী। এরই ধারাবাহিকতায় ঘরের মাঠে এবার ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজের দলে তিনি। শুক্রবার জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে উদ্বোধনী ম্যাচে টাইগারদের সেরা একাদশেও জায়গা পেয়ে যান। খেলতে নামেন ক্যারিয়ারের প্রথম টি-টোয়েন্টি।

ম্যাচের দ্বিতীয় ওভারেই অভিষিক্ত তাইজুলের হাতে বল তুলে দেন অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। এরপরই ম্যাজিক। প্রথম বলেই আউট জিম্বাবুয়ের ব্যাটিংয়ের অন্যতম স্তম্ভ টেলর। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে নিজের প্রথম বলেই উইকেট শিকার করে তাইজুল ঢুকে যান রেকর্ডের পাতায়। অতীতে বাংলাদেশের কোনো বোলারই টি-টোয়েন্টিতে নিজের প্রথম বলেই শিকার ধরতে পারেননি। আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টির ইতিহাসেও এমন নজির বিরল।

অভিষেক রাঙানো তাইজুলের জন্য নতুন কিছু নয়। এই মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামেই ২০১৪ সালের পহেলা ডিসেম্বর ক্যারিয়ারের প্রথম ওয়ানডে খেলতে নেমেছিলেন তিনি। সেই ম্যাচে প্রতিপক্ষ ছিল এই জিম্বাবুয়ে। সেদিন তো ক্রিকেট ইতিহাসেই ঢুকে গিয়েছিলেন বাঁহাতি স্পিনার। অভিষেকেই করেছিলেন হ্যাটট্রিক। বাংলাদেশের তো বটেই, ওয়ানডে ক্রিকেটের ইতিহাসেই অভিষেকে হ্যাটট্রিক করা প্রথম বোলার তিনি। সেই তাইজুলই কিনা পরের পাঁচ বছরে আর মাত্র পাঁচটি ওয়ানডে খেলার সুযোগ পেয়েছেন! বিস্ময়করই বটে।

টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট নিজের প্রথম বলে উইকেট পেলেও শুক্রবার তাইজুল ছিলেন কিছুটা খরুচে। অতীত বিবেচনায় বিষয়টা নিয়ে কিছুটা খচখচানি থাকতেই পারে বাঁহাতি স্পিনারের মনে। তবে দুদিন আগে প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গো স্পষ্টতই বলে দিয়েছেন, আগামী বছর অস্ট্রেলিয়ায় অনুষ্ঠেয় টি-টোয়েন্টি বিশ^কাপের ‘রোডম্যাপ’ শুক্রবার শুরু হওয়া ত্রিদেশীয় সিরিজ দিয়েই শুরু হচ্ছে। সেই শুরুতে তাইজুল ছিলেন, থাকতে পারেন শেষতকও।





সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : রফিকুল ইসলাম রতন
আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ।
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]