ই-পেপার শুক্রবার ১৫ নভেম্বর ২০১৯ ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
ই-পেপার শুক্রবার ১৫ নভেম্বর ২০১৯

বশেমুরবিপ্রবি ভিসি
বিশ্ববিদ্যালয়ের কাজ তোমাদের মতো বেয়াদব তৈরি করা (ভিডিও)
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশ: বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৬:৩৮ পিএম আপডেট: ১৮.০৯.২০১৯ ৬:৪৩ পিএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 583

বিশ্ববিদ্যালয়ের কাজ তোমাদের মতো বেয়াদব তৈরি করা (ভিডিও)

বিশ্ববিদ্যালয়ের কাজ তোমাদের মতো বেয়াদব তৈরি করা (ভিডিও)

গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের  ভিসি খন্দকার নাসির উদ্দিন। তার নির্দেশে এক ছাত্রীকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। ছাত্রীর অপরাধ গুরুতর। সে ফেসবুকে শুধু একটা প্রশ্ন লিখেছে, “একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান কাজ কি হওয়া উচিত?”

এতেই ক্ষীপ্ত হন ভিসি খন্দকার নাসির উদ্দিন। ভিসির সাথে সেই ছাত্রী যার নাম ফাতেমা তুজ জিনিয়া, তার কথোপকথন রেকর্ড প্রকাশ হয়। সেখানে শুনতে পাওয়া যায়, ভিসি উত্তপ্ত কন্ঠে ছাত্রীটিকে জিজ্ঞেস করছেন এবং ধমকাচ্ছেন এই বলে, বিশ্ববিদ্যালয়ের কাজ কি তুমি জানো না? ফাজিল কোথাকার। বেয়াদব। বিশ্ববিদ্যালয়ের কাজ তোমাদের মতো বেয়াদব তৈরি করা।



ছাত্রীটি বলছিল, সে এই প্রশ্নের উপর মতামত ভিত্তিতে একটি প্রতিবেদন লিখবে। তাই এই প্রশ্ন করেছে। উল্লেখ্য, ফাতেমা তুজ জিনিয়া একটি পত্রিকার ক্যাম্পাস প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছেন।

গোপালগঞ্জে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (বশেমুরবিপ্রবি)-র আইন বিভাগের ছাত্রী ফাতেমা-তুজ-জিনিয়াকে সাময়িক বহিষ্কারের কারণ জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়টির উপাচার্য৷ মঙ্গলবার সংবাদ সম্মেলনে উপাচার্য খোন্দকার নাসির উদ্দিন ওই বিষয়ে ব্যাখ্যা দেন৷

সংবাদ সম্মেলনে নাসির উদ্দিন বলেন, একাধিক অপরাধে ফাতেমা-তুজ-জিনিয়াকে বহিষ্কার করা হয়েছে৷ জিনিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের নিয়ে ফেসবুকে অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ কথাবার্তা লিখেছেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট, শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের ফেসবুক ও ই-মেল আইডি হ্যাক করেছেন৷ এছাড়া তিনি ভর্তি পরীক্ষার ওয়েবসাইট হ্যাক করে পরীক্ষা বানচালের ষড়যন্ত্র করেছেন৷ উপাচার্যের দাবি, ওই ছাত্রী দুবার তার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট হ্যাক করেছেন৷ উপাচার্য জানান, ফাতেমা-তুজ-জিনিয়া যদি ভুল স্বীকার করে তাঁর কাছে আবেদন করেন, তাহলে বহিষ্কারাদেশ তুলে নেওয়া হবে৷


১১ সেপ্টেম্বর ফাতেমা-তুজ-জিনিয়াকে সাময়িকভাবে বহিষ্কার করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন৷ সেই সময় ফাতেমা-তুজ-জিনিয়া বলেছিলেন, ‘‘কীভাবে ফেসবুক আইডি হ্যাক করতে হয়, আমি তো সেটাই জানি না৷ তাছাড়া উপাচার্য স্যারের ফেসবুক হ্যাক করতে যাব কেন? আমি কোনো দিন বিশ্ববিদ্যালয়কে নিয়ে কোনো মন্তব্য করিনি৷ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসন নিয়ে তো প্রশ্নই ওঠে না৷''

গোপালগঞ্জে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাত শিক্ষার্থীকে গত ছয় মাসে সাময়িক বহিষ্কার করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন৷ বহিষ্কৃত ওই শিক্ষার্থীদের ‘অপরাধ', ফেসবুকে বিরুদ্ধ মত জানিয়ে স্ট্যাটাস দিয়েছিলেন তাঁরা৷ পরে অবশ্য উপাচার্যের কাছে ক্ষমা চাওয়ায় তিনজনের বহিষ্কারাদেশ তুলে নেওয়া হয়৷




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]