ই-পেপার মঙ্গলবার ২২ অক্টোবর ২০১৯ ৬ কার্তিক ১৪২৬
ই-পেপার মঙ্গলবার ২২ অক্টোবর ২০১৯

বিদায়মঞ্চে মাসাকাদজাই নায়ক
ক্রীড়া প্রতিবেদক চট্টগ্রাম থেকে
প্রকাশ: শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১২:০০ এএম | প্রিন্ট সংস্করণ

ড্রেসিং রুমের সামনে সীমানার দড়ি ঘেঁষে দুই সারিতে দাঁড়িয়ে পড়লেন জিম্বাবুয়ের ক্রিকেটাররা, তাদের পাশাপাশি প্রতিপক্ষ আফগানিস্তানের ক্রিকেটারাও দাঁড়িয়ে গেলেন। ব্যাট হাতে ড্রেসিং রুম থেকে বেরিয়ে এলেন হ্যামিল্টন মাসাকাদজা, দুই দলের খেলোয়াড়রা মিলেই জিম্বাবুয়ের অধিনায়ককে গার্ড অব অনার দিলেন। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে শেষবারের মতো ব্যাট হাতে মাঠে নামা মাসাকাদজাকে সম্ভাষণ জানাতে ভুল করেননি জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে হাজির হওয়া হাজার তিনেক দর্শকও।
জিম্বাবুয়ের ১৫৫ রান তাড়ায় মাসাকাদজা যখন দারুণ সব শট খেলছিলেন, দর্শকরা গলা ফাটিয়েছেন তখনও। ক্যারিয়ারের শেষ ইনিংসে ছিলেন দুর্দান্ত। ৪টি চার আর ৫টি ছক্কায় ৪২ বলে ৭১ রান করেছেন এই ডানহাতি। বলতে গেলে তিনি একাই জয়ের পথে টেনে নিয়েছেন জিম্বাবুয়েকে। বাকি কাজটা সেরেছেন রেগিস চাকাভা (৩৯) আর শন উইলিয়ামস (২১*)। ৩ বল হাতে রেখে ৭ উইকেটে জিতেছে জিম্বাবুয়ে। যে জয়টা শুধু এই সিরিজেই নয়, টি-টোয়েন্টিতে আফগানিস্তানের বিপক্ষেই জিম্বাবুয়ের প্রথম। দুই দলের আগের আট ম্যাচেই হেরেছিল মাসাকাদজা-টেলররা।
অথচ ম্যাচে জিম্বাবুয়ের শুরুটা ছিল দুঃস্বপ্নের মতো। আফগান দুই ওপেনার রেহমতউল্লাহ গুরবাজ আর হজরতউল্লাহ জাজাই রীতিমতো তাÐব শুরু করেন। গড়েন ৮৩ রানের জুটি, সেটাও ৯.৩ ওভারে। ২৪ বলে ৩১ রান করা জাজাইয়ের বিদায়ে ভাঙে জুটি। তবে গুরুবাজ আর শফিকুল্লাহর (১৬) ব্যাটে আফগানদের রানের চাকা বেশ সচলই ছিল। সমান চারটি করে চার আর ছক্কায় ৪৭ বলে ৬১ রান করে গুরবাজ যখন সাজঘরমুখী, ১৪ ওভার শেষে আফগানদের রান তখন ১১৬। সেখান থেকে দলটির রান দুইশর কাছাকাছি যাবে, এমন ভাবনায় ছিল সবার। কিন্তু শেষ ৬ ওভার থেকে মাত্র ৩৯ রানই নিতে পেরেছে তারা।
৩০ রানে ৪ উইকেট তুলে নেওয়া ক্রিস এমপফু এবং ১৮ রানে ২ উইকেট নেওয়া টিনোটেন্ডা মাতম্বুজির দুর্দান্ত বোলিংয়ে দারুণভাবে আফগানিস্তানের রাশটা টেনে ধরে জিম্বাবুয়ে। অতি আত্মবিশ^াসে উচ্চাভিলাসী শট খেলতে গিয়ে মোহাম্মদ নবী, নাজিবুল্লাহ জাদরান, গুলবাদিন নাইবরা বেছে নেন আত্মহননের পথ। জিম্বাবুয়ে ম্যাচে ফেরে দারুণভাবে। ফেরার গল্পটা শেষ হয়েছে জয়ের ঠিকানায়। ক্রিকেট বিধাতাই ঠিক করে রেখেছিলেন এমন চিত্রনাট্য, সাজিয়ে রেখেছিলেন মাসাকাদজার জন্য।
২০০১ সালের ২৭ জুলাই হারারেতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টেস্ট দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে পা রেখেছিলেন মাসাকাদজা। ওই ম্যাচে সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে টেস্ট অভিষেকে সর্বকনিষ্ঠ সেঞ্চুরিয়ান বনে গিয়েছিলেন তিনি। পরবর্তীতে রেকর্ডটা ভেঙে দেন বাংলাদেশের মোহাম্মদ আশরাফুল। প্রায় দুই দশকের ক্যারিয়ারে ৩১৩টি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছেন তিনি। মাঝে জিম্বাবুয়ে টেস্ট ক্রিকেট থেকে স্বেচ্ছায় নির্বাসনে না গেলে ম্যাচের সংখ্যা বাড়তে পারত আরও, মাসাকাদজার অর্জনের ঝুলিটাও হতো আরও সমৃদ্ধ। কিছুটা আক্ষেপ নিয়েই তাই বিদায় নিলেন তিনি।




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ।
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]