ই-পেপার সোমবার ১৪ অক্টোবর ২০১৯ ২৯ আশ্বিন ১৪২৬
ই-পেপার সোমবার ১৪ অক্টোবর ২০১৯

ইভ্যালির বিরুদ্ধে অবৈধভাবে হ্যান্ডসেট বিক্রির অভিযোগ
সময়ের আলো ডেস্ক
প্রকাশ: বুধবার, ২ অক্টোবর, ২০১৯, ১০:০৩ পিএম আপডেট: ০৩.১০.২০১৯ ১:০৭ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

ইভ্যালির বিরুদ্ধে অবৈধভাবে হ্যান্ডসেট বিক্রির অভিযোগ

ইভ্যালির বিরুদ্ধে অবৈধভাবে হ্যান্ডসেট বিক্রির অভিযোগ

দেশের বাজারে অবৈধ হ্যান্ডসেট বিক্রির বিরুদ্ধে নানা সময় বিভিন্ন পদক্ষেপ নিচ্ছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসি। নিয়ন্ত্রক এই সংস্থাটির চোখ ফাঁকি দিয়ে অবৈধভাবে হ্যান্ডসেট বিক্রির জনপ্রিয় প্ল্যাটফর্ম হয়ে উঠেছে অনলাইন মার্কেটপ্লেস ইভ্যালি।

খোঁজ নিয়ে দেখা গেছে, মার্কেটপ্লেসটি অবৈধ হ্যান্ডসেট বিক্রিতে নিচ্ছে নিত্যনতুন কৌশল।
 
চলতি বছরের ১২ সেপ্টেম্বর প্রতিষ্ঠানটি ফেসবুকে থাকা নিজেদের পেজে অবৈধ হ্যান্ডসেটের বিষয়ে একটি ঘোষণা দেয়। ওই স্ট্যাটাসে প্রতিষ্ঠানটি জানায়, তাদের মার্কেটপ্লেসকে ব্যবহার করে কিছু অসাধু ব্যবসায়ী অবৈধ হ্যান্ডসেট বিক্রি করছে।

স্ট্যাটাসে তারা গ্রাহকদের বৈধ হ্যান্ডসেট অর্ডারের জন্য আহ্বান জানায়। একই সঙ্গে ৩% ক্যাশব্যাক দেওয়া হবে বলেও জানায় প্রতিষ্ঠানটি।
 
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, অবৈধ হ্যান্ডসেট বিক্রি করা থামেনি ইভ্যালি থেকে। প্রতিনিয়তই ইভ্যালি থেকে বিক্রি হচ্ছে অবৈধ হ্যান্ডসেট। মার্কেটপ্লেসটির ওই ঘোষণার পর ক্রেতার ছদ্মবেশে যোগাযোগ করা হয় কয়েকজন ক্রেতার সঙ্গে। ছদ্মনামে রাজিব নামের একজন ইভ্যালির গ্রাহক জানান, তিনি ইভ্যালির রিও ইন্টারন্যাশনাল থেকে এমআই এ৩ ফোনটি ক্রয় করেছেন।

ফোনটি অফিসিয়াল সেট কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমি আনঅফিসিয়াল কিনেছি কিন্তু তারা যে ঘোষণা দিয়েছে তা ছিল সবাইকে আইওয়াশ করা। কারণ তারা জানে আনঅফিসিয়াল বিক্রি করলে সরকারি বিভিন্ন ঝামেলায় পড়তে হতে পারে।’

নজিব (ছদ্মনাম) নামে একজন ইভ্যালির গ্রাহক জানান, তিনি ছয়টা ফোন নিয়েছেন ইভ্যালি থেকে। সবগুলো হ্যান্ডসেট আনঅফিসিয়াল ছিল।

এদিকে ক্রেতার ছদ্মবেশ নিয়ে ইভ্যালি ও সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের যোগাযোগ করলে রাজিব ও নজিবের কথার সত্যতা মেলে।

অবৈধ এসব হ্যান্ডসেট বিক্রির বিষয় জানতে ইভ্যালির জনসংযোগ পরামর্শক শাওন সোলায়মান এর সঙ্গে ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘ইভ্যালি আনঅফিসিয়াল মোবাইল হ্যান্ডসেট বিক্রিতে শুধুমাত্র অনুৎসাহিতই করে না বরং আনঅফিসিয়াল মোবাইল হ্যান্ডসেট বিক্রি বন্ধে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে যাচ্ছে । ইভ্যালি কোনো অবৈধভাবে আমদানিকৃত মোবাইল হ্যান্ডসেট বিক্রি করেনি এবং করবে না ।’

উল্লেখ্য, ই-কমার্স কোম্পানি আগাম টাকা পরিশোধ (প্রি-পেমেন্টে), ক্যাশ ভাউচার, ক্যাশব্যাক অফারসহ বিভিন্ন অভিযোগের কারণে বেশি আলোচিত ও সমালোচিত এই প্রতিষ্ঠানটি ।




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ।
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]