ই-পেপার শুক্রবার ১৮ অক্টোবর ২০১৯ ৩ কার্তিক ১৪২৬
ই-পেপার শুক্রবার ১৮ অক্টোবর ২০১৯

তীব্র স্রোতে শিমুলিয়া-কাঠালবাড়ি নৌরুটে ফেরি বন্ধ
দূর্ভোগে যাত্রী ও শ্রমিকেরা
মাদারীপুর প্রতিনিধি
প্রকাশ: মঙ্গলবার, ৮ অক্টোবর, ২০১৯, ১২:১৫ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

তীব্র স্রোতে শিমুলিয়া-কাঠালবাড়ি নৌরুটে ফেরি বন্ধ

তীব্র স্রোতে শিমুলিয়া-কাঠালবাড়ি নৌরুটে ফেরি বন্ধ

প্রবল স্রোতের কারনে কাঁঠালবাড়ী-শিমুলিয়া রুটে বন্ধ রয়েছে সকল ফেরি চলাচল। সোমবার রাত নয়টা থেকে ফেরি চলাচল বন্ধ রাখে কর্তৃপক্ষ। মঙ্গলবার (৮ অক্টোবর) সকাল পৌনে আটটায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত চলাচল শুরু হয়নি। কখন নাগাদ ফেরি চলাচল শুরু হবে বিআইডবি্রউটিসি জানাতে পারেনি। এদিকে ফেরি বন্ধ থাকায় পারাপারের অপেক্ষায় থাকা পরিবহন চালক ও শ্রমিকদের দূর্ভোগ বেড়েছে।

কাঁঠালবাড়ী ঘাট সূত্র জানিয়েছে, আগষ্ট মাস থেকেই তীব্র স্রোতে ও নাব্যতা সংকটে ফেরি চলাচল ব্যাহত হচ্ছে। সোমবার রাত ৯টা থেকে ফেরি চলাচল বন্ধ থাকায় ঘাট এলাকায় পন্যবাহী পরিবহন আটকে আছে। পদ্মানদীতে নাব্যতা সংকট ও তীব্র স্রোত অব্যাহত থাকায় চলতে পারছে না ফেরিগুলো। কাঁঠালবাড়ী-শিমুলিয়া রুটে ৪ টি রোরোসহ মোট ১৮ টি ফেরি থাকলেও উদ্ভুত সংকটের কারনে মাঝে মাঝেই চলাচল ব্যহত হওয়ার পাশাপাশি দীর্ঘসময় বন্ধও থাকছে ফেরি চলাচল। ফলে দূর্ভোগ পিছু ছাড়ছে না এই নৌরুট ব্যবহারকারীদের।

যশোর থেকে আসা ট্রাক চালক করিম মিয়া জানান, গতরাত থেকে ফেরি বন্ধ। আটকে আছি ঘাটে। নির্ধারিত সময় ঢাকা যেতে পারছি না। এদিকে ঘাটে খাদ্রদ্রব্যের দামও বেশি। সব মিলিয়ে বেশ কষ্টকর হয়ে উঠছে এই রুটের চলাচল। অপর এক ট্রাক চালক ইব্রাহিম হোসেন বলেন, সোমবার বিকেলে এসেও পার হতে পারি নাই। আর এখন ফেরি বন্ধ। কখন চালু হবে তাও জানে না কেউ। পচনশীল পন্যবাহী এক ট্রাকের শ্রমিক জানান, ঘাটে আটকে থেকে ট্রাকে থাকা সবজি নষ্ট হবার পথে। আর ঘাটে বসে থেকে আমাদের খরচও বেড়ে যাচ্ছে।

বিআইডব্লিউটি কাঁঠালবাড়ী ঘাটের ব্যবস্থাপক আব্দুস সালাম মিয়া বলেন,নাব্যতা সংকট ও তীব্র স্রোতের কারনে ফেরি চলাচল বন্ধ গত রাত থেকে। কখন থেকে চলবে তার নির্দেশনা এখনো আসেনি।




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ।
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]