ই-পেপার  বুধবার ১৬ অক্টোবর ২০১৯ ১ কার্তিক ১৪২৬
ই-পেপার  বুধবার ১৬ অক্টোবর ২০১৯

ঢাবিতে আবরারের গায়েবানা জানাজা
ঢাবি প্রতিনিধি
প্রকাশ: মঙ্গলবার, ৮ অক্টোবর, ২০১৯, ৭:০৭ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

ঢাবিতে আবরারের গায়েবানা জানাজা

ঢাবিতে আবরারের গায়েবানা জানাজা

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ছাত্র আবরার ফাহাদের গায়েবানা জানাজা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

মঙ্গলবার দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যের পাশে এ জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। জানাজায় ইমামতি করেন ডাকসুর সমাজসেবা বিষয়ক সম্পাদক আকতার হোসেন।

এতে ডাকসু ভিপি নুরুল হক নুরসহ কয়েক হাজার শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করেন। জানাজা শেষে মিছিল নিয়ে স্লোগান দিতে দিতে তারা ক্যাম্পাসের দিকে যান। তারা আবরারের হত্যাকারীদের ফাঁসি দাবি জানান।

জানাজার পূর্বে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন শিক্ষার্থীরা। তারা এ ঘটনায় বুয়েট প্রশাসনের তীব্র সমালোচনা করে হত্যাকারীদের শাস্তি নিশ্চিতের দাবি জানান। আর বিচার কার্যে কোনো অবহেলা লক্ষ্য করা গেলে কঠোর আন্দোলনে যাওয়ার ঘোষণা দেন শিক্ষার্থীরা। তারা আববারকে শহীদ হিসেবে অবহিত করেন। তারা বলেন, আবরার দেশের পক্ষে কথা বলে শহীদ হয়েছেন।

নিজের বক্তব্যে ডাকসু ভিপি নুরুল হক নুর দাবি করেন, খুনিদের আড়াল করতেই প্রশাসন সিসিটিভি ফুটেজ দেখাতে চায়নি। তিনি বলেন, আমরা বারবার বলেছি, কিন্তু আমাদের কথা আমলে নেয়নি প্রশাসন । ছাত্রসমাজ বারবার নির্যাতিত হচ্ছে। দীর্ঘদিন ধরে আমরা এটি বন্ধের দাবি জানিয়ে আসছি।

তিনি বলেন, ‘ছাত্রসমাজ রাজপথে এলে তড়িঘড়ি করে বিচার করা হয়। কিন্তু প্রতিবাদ থেকে সরে গেলে বিচার পাওয়া যায় না। হত্যাকারীদের আড়াল করতে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ফুটেজ দেখাতে চায়নি। ছাত্ররা রাস্তায় নেমে এসে বাকবিতণ্ডা করে ভিডিও ফুটেজ নিয়েছে।’
ডাকসু ভিপি বলেন, ‘অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদী চেতনা থেকে প্রতিবাদ করুন। ভারতের আগ্রাসনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করতে গিয়ে আবরার নিহত হয়েছে আমরা তার প্রতিবাদ জানাই।’

ডাকসুর সমাজসেবা সম্পাদক আকতার হোসেন বলেন, ‘আবরার ফাহাদের মৃত্যু প্রথম ঘটনা, বিষয়টা এমন নয়। আবাসিক হলগুলো একটি ছাত্র সংগঠনের দখলে আছে। প্রশাসন স্বায়ত্ত্বশাসনের ভান ধরে পড়ে থাকে।’

তিনি বলেন, ‘এর আগে আক্রমণ করে বকর ভাইকে হত্যা করা হয়েছে। আমরা কোনো বিচার পাইনি। আমরা খুব স্পষ্টভাবে বলে দিতে চাই, আবরার ফাহাদ যে কারণে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েছে, সেই একই প্রতিবাদ বাংলার জনগণের হৃদয়ে আছে। বাংলার কোনো মানুষ আপনাদের এই তালবাহানা মেনে নিতে পারেনি।’

আকতার হোসেন বলেন, ‘আপনাদের হলে একটা ছেলেকে হত্যা করা হয়েছে, আপনারা থানায় গিয়ে জিডি করেছেন। এর চেয়ে দুঃখজনক ঘটনা আর নেই।’

জানাজা শেষে আববারের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করে মোনাজাত করা হয়।  একই সাথে তার স্বজনদের জন্যও বিশেষ মোনাজাত করা হয়।




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ।
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]