ই-পেপার সোমবার ১৪ অক্টোবর ২০১৯ ২৯ আশ্বিন ১৪২৬
ই-পেপার সোমবার ১৪ অক্টোবর ২০১৯

আবরারকে বেশি পেটায় রাজশাহীর অনিক, ছিল মদ্যপ
শ.ম সাজু রাজশাহী
প্রকাশ: বুধবার, ৯ অক্টোবর, ২০১৯, ১২:০০ এএম আপডেট: ০৯.১০.২০১৯ ১০:১৩ এএম | প্রিন্ট সংস্করণ

আবরারকে বেশি পেটায় রাজশাহীর অনিক, ছিল মদ্যপ

আবরারকে বেশি পেটায় রাজশাহীর অনিক, ছিল মদ্যপ

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যার অভিযোগে গ্রেফতারকৃত আসামিদের একজন অনিক সরকারের বাড়ি রাজশাহীর মোহনপুর উপজেলার বরইকুড়ি গ্রামে। তার বাবার নাম আনোয়ার হোসেন সরকার। তিনি মোহনপুরের একজন বিশিষ্ট ব্যবসায়ী। রাজশাহী জেলা যুবলীগের সহ-সভাপতি বেলাল হোসেন অনিকের চাচা। আর উপজেলার বাকশিমইল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও মোহনপুর উপজেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোমিন শাহ গাবরু তার মামা। তবে অনিক সরকার এলাকায় ছাত্র রাজনীতিতে পরিচিত মুখ নন। তিনি ঢাকায় গিয়ে ছাত্র রাজনীতি শুরু করেন।

পুলিশ, প্রত্যক্ষদর্শী ও ছাত্রলীগ সূত্রে জানা গেছে, বুয়েটের শের-ই-বাংলা হলের ২০১১ নাম্বার কক্ষে রোববার রাত ৮টা থেকে ১২টা পর্যন্ত আবরার ফাহাদের ওপর চলে নির্যাতন। এ সময় আবরারকে পিটিয়ে হত্যায় ছাত্রলীগের সকাল, মনির, তানভীর, জেমি, তামিম, সাদাত, রাফিদ, তোহা, অনিকসহ ১০-১২ জন নেতাকর্মীরা জড়িত থাকার খবর পাওয়া গেছে। এদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি মারধর করেছে মদ্যপ অনিক।

অনিক সরকার মোহনপুর উপজেলার বড়ইকুড়ি গ্রামের আনোয়ার হোসেনের ছেলে। তার মায়ের নাম শাহিদা বেগম। এই ঘটনায় নিহতের বাবা বরকত উল্লাহর দায়ের করা মামলার ৩ নাম্বার আসামি অনিক সরকার। বুয়েট শিক্ষার্থী অনিক সরকার থাকতেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শের-ই-বাংলা হলে। অভিযুক্ত অনিক বুয়েট ছাত্রলীগের তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক পদে ছিলেন।

বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যায় গ্রেফতার কৃত আসামি অনিক সরকারের পরিবার মুখ খুলতে চাচ্ছে না। মঙ্গলবার সকালে মোহনপুর উপজেলার বরইকুড়ি গ্রামে অনিকের বাসায় গিয়ে তার বাবা-মাকে পাওয়া যায়নি। বাড়িতে যারা ছিল তারা অনিকের বিষয়ে কথা বলতে রাজি হননি।

তবে অনিকের চাচাত ভাই রাসেল সরকার জানান, দুই ভাইয়ের মধ্যে অনিক সরকার ছোট। মোহনপুর সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পাস করার পর ঢাকার একটি বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে এইচএসসি পাস করেন। এরপর বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদালয়ের (বুয়েট) মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে ভর্তি হন। অনেক আগে থেকেই অনিক সরকারের পরিবার আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। বুয়েটে ভর্তির পর অনিক সরকার বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের তথ্য ও গবেষণা সম্পাদকের দায়িত্ব নিয়ে শুরু করেন ছাত্রলীগের রাজনীতি। তিনি এলাকায় কম থাকায় উপজেলা ছাত্রলীগের পরিচিত মুখ নন।

অনিক সরকারের বিরুদ্ধে মোহনপুর থানায় এর আগে কোনো অভিযোগ রয়েছে কিনা জানতে চাইলে ওসি মোস্তাক আহম্মেদ জানান, অনিকের বিরুদ্ধে কোনো মামলা নেই। মোহনপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আব্দুর রাজ্জাকের সঙ্গে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, উপজেলা ছাত্রলীগ কমিটির কোনো পদে নেই অনিক সরকার। তবে এলাকায় এলে ছাত্রলীগের স্থানীয় রাজনীতি সম্পর্কে তথ্য নিতেন তিনি।

উল্লেখ্য, রোববার রাত ৩টার দিকে বুয়েটের শের-ই-বাংলা হলের নিচ তলা থেকে আবরার ফাহাদের লাশ উদ্ধার করা হয়। শিবির সন্দেহে ছাত্রলীগের কর্মীরা তাকে পিটিয়ে হত্যা করে বলে অভিযোগ করেছে শিক্ষার্থীরা। ফাহাদের গ্রামের বাড়ি কুষ্টিয়া। তিনি থাকতেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শেরে-ই-বাংলা হলের ১০১১ নাম্বার কক্ষে।







সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ।
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]