ই-পেপার মঙ্গলবার ১৫ অক্টোবর ২০১৯ ৩০ আশ্বিন ১৪২৬
ই-পেপার মঙ্গলবার ১৫ অক্টোবর ২০১৯

আবরারের বাড়ির উদ্দেশে বুয়েটের ভিসি
সময়ের আলো ডেস্ক
প্রকাশ: বুধবার, ৯ অক্টোবর, ২০১৯, ১২:২৭ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

আবরারের বাড়ির উদ্দেশে বুয়েটের ভিসি

আবরারের বাড়ির উদ্দেশে বুয়েটের ভিসি

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক সাইফুল ইসলাম কুষ্টিয়ায় আবরারের বাড়ির উদ্দেশে রওনা দিয়েছেন। ভিসি সাইফুল ইসলামের পিএস কামরুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এর আগে গত রোববার রাতে আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যা করা হয় বুয়েটের শেরেবাংলা হলে।

সোমবার ভোরে তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। ছাত্রলীগের মারধরে নিহত বুয়েটের ছাত্র আবরার ফাহাদকে একটি বারের জন্যও দেখতে আসেননি বুয়েটের ভিসি সাইফুল ইসলাম। রাতে আবরারকে হত্যা করা হয়। সারাদিন লাশ ঢাকা মেডিকেল মর্গে ছিল। রাতে ক্যাম্পাসে জানাজার জন্য আনা হয়। কিন্তু আবরারের জানাজাতেও আসেননি ভিসি। এটা নিয়ে সর্বত্র সমালোচনার ঝড় ওঠে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও এতে ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

ক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা বারবার উপচার্যের সঙ্গে সাক্ষাতের কথা বললেও তা আমলে নেননি হল প্রাধ্যক্ষ। মঙ্গলবার সকালে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা বিকেল ৫টার মধ্যে উপাচার্যকে ক্যাম্পাসে আসার আলটিমেটাম দেন। পরে ৬টার দিকে তিনি শিক্ষার্থীদের সামনে আসেন।

এদিকে সর্বশেষ পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, ছয়জন মিলে তিন দফায় পাঁচ ঘণ্টা বেধড়ক পিটিয়ে হত্যা করে আবরার ফাহাদকে। ইফতি মাহবুব সকালের নেতৃত্বে বুয়েটের শেরেবাংলা হলের ২০১১ নম্বর রুমে রোববার রাত নয়টার দিকে শুরু হয় মারপিট।

সূত্র জানায়, আবরারকে মারধর শুরু করেন বুয়েট ছাত্রলীগের বহিষ্কৃত সাংগঠনিক সম্পাদক মেহেদী হাসান রবিন। পরে যোগ দেন আরও পাঁচজন। এরা হলো, অনিক, সকাল, জিওন, মনির ও মোজাহিদুল। দ্বিতীয় দফায় মারপিট শুরু করেন অনিক। সেই ছিলো সবচেয়ে মারমুখী। আবরারের শরীরের উপর ক্রিকেট স্ট্যাম্প ভাঙ্গে সে। এরপর তৃতীয় দফায় মেরে নীথর দেহটিকে টেনে হিচেড় নিচে নামানোর চেষ্টা করেন ঘাতকরা। মাঝ সিড়িতে যেতেই তারা বুঝতে পারে আবরার মারা গেছে। সেখানেই মরদেহটি ফেলে যায় তারা।




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ।
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]