ই-পেপার শুক্রবার ১৮ অক্টোবর ২০১৯ ৩ কার্তিক ১৪২৬
ই-পেপার শুক্রবার ১৮ অক্টোবর ২০১৯

সময়ের আলো সাক্ষাৎকার
দিনাজপুরকে আধুনিক পৌরসভা হিসেবে গড়ে তোলা হবে
সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলম মেয়র, দিনাজপুর পৌরসভা
আব্দুর রাজ্জাক দিনাজপুর
প্রকাশ: বৃহস্পতিবার, ১০ অক্টোবর, ২০১৯, ১২:০০ এএম আপডেট: ১০.১০.২০১৯ ১:৪৮ পিএম | প্রিন্ট সংস্করণ

দিনাজপুরকে আধুনিক পৌরসভা হিসেবে গড়ে তোলা হবে

দিনাজপুরকে আধুনিক পৌরসভা হিসেবে গড়ে তোলা হবে

দৈনিক সময়ের আলোকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে দিনাজপুর পৌরসভা মেয়র সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলম বলেছেন, দিনাজপুর পৌরসভাকে একটি পরিকল্পিত আধুনিক নগরী হিসেবে গড়ে তোলা হবে। দিনাজপুরকে একটি পরিচ্ছন্ন-সর্বাধুনিক পৌরসভা হিসেবে গড়ে তোলার লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছি।

মেয়র সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলম তার সাক্ষাৎকারে জানান, ছাত্রজীবনেই তিনি রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়েন। একাধারে দিনাজপুর জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক থেকে সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। এ ছাড়াও কেন্দ্রীয় বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদকের (রংপুর বিভাগীয়) দায়িত্ব পালন করেন। এখন তিনি জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির অন্যতম সদস্য।

মেয়র সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ১৮৬৯ সালে প্রায় চার বর্গমাইল এলাকা নিয়ে দিনাজপুর পৌরসভা প্রতিষ্ঠিত হয় এবং পদাধিকার বলে এর প্রথম চেয়ারম্যান ছিলেন তৎকালীন জেলা ম্যাজিস্ট্রেট প্যাটারসন। তখন জনসংখ্যা ছিল আনুমানিক ১০-১২ হাজার। ১৮৭২ সালে প্রথম সরকারিভাবে আদমশুমারিতে জনসংখ্যা ১৩ হাজার ৭৮২ জন গণনা করা হয়। ১৮৯৮ সালে সরকারি নিয়ন্ত্রণমুক্ত পৌরসভার সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। করদাতাদের ভোটাধিকারের ভিত্তিতে দিনাজপুরের তৎকালীন মহারাজা গিরিজানাথ রায় পৌরসভার প্রথম চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। প্রাথমিক পর্যায়ে বাংলা স্কুলের একটি কক্ষে পৌরসভার দাফতরিক কার্যক্রম পরিচালিত হলেও ১৯০৩ সালে বর্তমান পৌরভবনটি নির্মিত হয়। বর্তমানে দিনাজপুর পৌরসভা ১২টি ওয়ার্ড সমন্বয়ে গঠিত একটি প্রথম শ্রেণির পৌরসভা। এর আয়তন ২৪.৫০ বর্গকিলোমিটার, লোকসংখ্যা প্রায় দুই লাখ, ভোটার সংখ্যা ১ লাখ ১৬ হাজার ৭৯০ জন।

মেয়র বলেন, ০.৭৬ একর জমির ওপর স্থাপিত অতি পুরনো তিনটি ভবনে পৌরসভার কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছেÑ এর আগে ঐতিহ্যবাহী জিলা স্কুল, পশ্চিমে রেলস্টেশন, উত্তরে জেলা সদর হাসপাতাল, দক্ষিণে জেলা প্রশাসক কার্যালয় ও বিচারিক ভবনসমূহ অবস্থিত। দিনাজপুর পৌরসভায় বিনোদনের জন্য একটি শিশু পার্ক রয়েছে। এখানে একটি বাস টার্মিনাল, একটি ট্রাক টার্মিনাল, একটি খেয়াঘাট ও চারটি হাট-বাজার আছে।

তিনি সময়ের আলোকে বলেন, দলের নেতাকর্মীসহ পৌরসভার দলমতের ঊর্ধ্বে থেকে জাতি, ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে আমাকে সমর্থন এবং ভোট দিয়ে পরপর দুবার মেয়র নির্বাচিত করায় সবাইকে আমি কৃতজ্ঞতা জানাই। তিনি বলেন, উন্নয়নের ধারা চলমান রাখতে পৌরবাসীর সহযোগিতায় একযোগ হয়ে কাজ করব।

নির্বাচনে দেওয়া প্রতিশ্রুতি রক্ষার বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলম বলেন, দিনাজপুর পৌরসভার দায়িত্ব গ্রহণ করার পর থেকে সার্বিক উন্নয়নে কাজ শুরু করি। ইতোমধ্যে জলবায়ু ট্রাস্ট বোর্ডের অধীনে দিনাজপুর পৌরসভায় তিন কোটি টাকার একটি প্রকল্প অনুমোদন পেয়েছে। অর্থ বরাদ্দ পেলেই পৌর এলাকার ড্রেন ও সোলার সিস্টেমের কাজ শুরু হবে। নগর উন্নয়ন প্রকল্পের আওতাধীন দিনাজপুর পৌরসভায় প্রথম ধাপে সাত কোটি টাকার উন্নয়ন কার্যক্রম সম্পন্ন হলে দ্বিতীয় পর্যায়ে আট কোটি টাকার বরাদ্দ পাওয়া যাবে। এ ছাড়াও নৌপ্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী এমপির সার্বিক সহযোগিতায় আগামী বছরের জুলাই মাসে এমজিএসপি প্রকল্পের মাধ্যমে দিনাজপুর পৌরসভার সার্বিক উন্নয়নে প্রায় ৩০০ কোটি টাকা বরাদ্দ পাওয়া যাবে।

মেয়র বলেন, আমি বিভিন্ন সেমিনার ও ট্রেনিংয়ের মাধ্যমে সেলাই প্রশিক্ষণ দিয়ে বেকার, বিধবা, দুস্থ-অসহায় নারীদের মধ্যে তাদের মধ্যে বিতরণের জন্য সেলাই মেশিন ও ক্ষুদ্রঋণ প্রদান করেছি। এ ছাড়াও বেকার যুবকদের বেকারত্ব দূর করতে মৎস্য ও গবাদি পশুর খামার বিষয়ে প্রশিক্ষণ দিয়েছি। এ ছাড়াও মাদক, সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ ও বাল্যবিয়ে বন্ধের জন্য যুবকদের নিয়ে বিভিন্ন সেমিনারের আয়োজন করেছি। এ বিষয়ে সচেতনতা বাড়ানোর জন্য টাউন লেভেল কমিটি ও ওয়ার্ড লেভেল কমিটি গঠন করেছি।
সম্প্রতি রেজিস্ট্রেশনবিহীন অটোবাইকের দৌরাত্মে যানজটে নাকাল পৌরবাসী। এ সমস্যা সমাধানের বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে মেয়র বলেন, দিনাজপুর পৌরসভা চার হাজার অটোবাইকের রেজিস্ট্রেশন দিয়েছে। কিন্তু রেজিস্ট্রেশনবিহীন অনেক অটোবাইক শহরে প্রবেশ করে যানজটের সৃষ্টি করছে। তা নিরসনে জেলা প্রশাসন, পুলিশ বিভাগ ও পৌরসভা একত্রিতভাবে কাজ করছে।

দিনাজপুর পৌর মেয়র সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলম বলেছেন, পৌরসভার উন্নয়ন ও নাগরিক সেবা নিশ্চিত করতে আমি জনগণের সেবক হতে চাই। সাক্ষাৎকারের শেষপর্যায়ে এ পৌরপিতা বলেন, যোগ্যতা ও অভিজ্ঞতা থাকলে যেকোনো সমস্যা সমাধানসহ ভালো কাজ করা সম্ভব।





সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ।
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]