ই-পেপার রোববার ১৭ নভেম্বর ২০১৯ ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
ই-পেপার রোববার ১৭ নভেম্বর ২০১৯

জেলার রাজনীতি : যশোর
কমিটি গঠন নিয়ে আ.লীগ সরগরম বিএনপি তাকিয়ে কেন্দ্রের দিকে
নিজস্ব প্রতিবেদক যশোর
প্রকাশ: সোমবার, ১৪ অক্টোবর, ২০১৯, ১২:০০ এএম আপডেট: ১৪.১০.২০১৯ ১২:০৬ এএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 29

কমিটি গঠন নিয়ে আ.লীগ সরগরম বিএনপি তাকিয়ে কেন্দ্রের দিকে

কমিটি গঠন নিয়ে আ.লীগ সরগরম বিএনপি তাকিয়ে কেন্দ্রের দিকে

জেলা সম্মেলনকে সামনে রেখে বিভিন্ন উপজেলার মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটি পুনর্গঠন করতে যশোর আওয়ামী লীগ সরগরম হয়ে উঠেছে। এর মধ্যে চারটি কমিটি করতে সম্মেলনের তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে। জেলা কমিটির নির্ধারিত পদে আসন পেতে উপজেলার সম্মেলনকে গুরুত্ব দিচ্ছেন নেতারা।

অন্যদিকে ১০ বছর পর জেলা বিএনপির কমিটি ভেঙে আহ্বায়ক কমিটি গঠনের পর পাঁচ মাস চলে গেছে। কিন্তু এখনও কাউন্সিলের কোনো লক্ষণ নেই।

গত ৯ অক্টোবর আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য এসএম কামাল হোসেনের উপস্থিতিতে জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে মেয়াদোত্তীর্ণ উপজেলাগুলোর কমিটি গঠনের লক্ষ্যে সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় ৯ নভেম্বর অভয়নগর, ১০ নভেম্বর বাঘারপাড়া, ১১ নভেম্বর সদর উপজেলা ও ১৩ নভেম্বর যশোর শহর আওয়ামী লীগের সম্মেলন করার সিদ্ধান্ত হয়। এর আগে সিদ্ধান্ত অনুযায়ী শহর শাখার সম্মেলনের তারিখ ছিল ১২ নভেম্বর।

জেলা আওয়ামী লীগের কমিটিতে সভাপতির পদের দিকে তাকিয়ে রয়েছেন বর্তমান সভাপতি শহিদুল ইসলাম মিলন, সাবেক এমপি খালেদুর রহমান টিটো, সাবেক পৌর মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি কামরুজ্জামান চুন্নু, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মহিত কুমার নাথ ও যশোর-২ আসনের সংসদ সদস্য নাসির উদ্দিন।

সাধারণ সম্পাদক পদে জেলা যুবলীগের সভাপতি মোস্তফা ফরিদ আহম্মেদ চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র জহিরুল ইসলাম চাকলাদার রেন্টু, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক ও সাবেক সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট মনিরুজ্জামান মনির, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক অ্যাডভোকেট আলী রায়হান ও বর্তমান সম্পাদক শাহিন চাকলাদার আলোচনায় রয়েছেন।
কেন্দ্রের নির্দেশ আগামী ১০ ডিসেম্বরের মধ্যে যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন সম্পন্ন করতে হবে। জেলা কমিটি নিয়ে বইছে উত্তপ্ত হাওয়া। চায়ের দোকান থেকে শুরু করে সর্বত্র খোশগল্পের বিষয় হয়ে উঠেছে এটি।
সংগঠনের একাধিক নেতাকর্মী নাম না প্রকাশ না করার শর্তে জানান, নানা কারণে যশোর জেলা আওয়ামী লীগ নিয়ে কেন্দ্র নানা ধরনের ভাবনা-চিন্তা করছে।
আওয়ামী লীগের সাবেক সংকৃৃতি বিষয়ক সম্পাদক জয়ন্ত বিশ^াস ও সাবেক সংসদ সদস্য খালেদুর রহমান টিটোকে কমিটিতে না রাখায়ও কেন্দ্র হতাশা প্রকাশ করে।
জানতে চাইলে জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি শহিদুল ইসলাম মিলন বলেন, আমি পুনরায় সভাপতি হতে চাই। তবে দলীয় সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যাকে দলের দায়িত্ব দেবেন আমি তার নেতৃত্বেই দল করব। জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আলী রায়হান জানান, আমি জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পদপ্রার্থী।
অন্যদিকে জেলা বিএনপির ৫৩ সদস্যের আহ্বায়ক কমিটির আহ্বায়ক হলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী প্রয়াত তরিকুল ইসলামের স্ত্রী নার্গিস বেগম। আহ্বায়ক কমিটির সদস্য সচিব করা হয়েছে বিলুপ্ত জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ সাবেরুল হককে।
জেলা বিএনপি সূত্র জানায়, ২০০৯ সালে যশোর জেলা বিএনপির কমিটি গঠন করা হয়। ১৪০ সদস্যের কমিটিতে শহিদুল ইসলাম নয়ন চৌধুরীকে সভাপতি এবং সৈয়দ সাবেরুল হককে সাধারণ সম্পাদক করা হয়। এরপর এক দশক পেরিয়ে গেলেও জেলা সম্মেলন করা হয়নি। ইতোমধ্যে শহিদুল ইসলাম নয়নসহ কমিটির ১৮ জন সদস্য মারা গেছেন। বহিষ্কার রয়েছেন তিনজন। জেলা সম্মেলন সম্পর্কে সৈয়দ সাবেরুল হক বলেন, আমরা থানা পর্যায় থেকে কমিটি গঠন করছি। এর মধ্যে পাঁচটি থানা কমিটি সম্পন্ন হয়েছে। বাকিগুলো সম্পন্ন করে জেলা কমিটি গঠন করব।
অন্যদিকে অবস্থাদৃষ্টে মনে হয়, স্থানীয় বিএনপি নেতারা সম্মেলন করতে করণীয় নির্ধারণে কেন্দ্রের দিকে তাকিয়ে রয়েছেন। দৃশ্যত এ বিষয়ে কোনো কার্যক্রম নেই।




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]