ই-পেপার রোববার ১৭ নভেম্বর ২০১৯ ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
ই-পেপার রোববার ১৭ নভেম্বর ২০১৯

মেধাবীদের তুলে ধরা প্রয়োজন
মোহাম্মদ তারেক
প্রকাশ: বৃহস্পতিবার, ১৭ অক্টোবর, ২০১৯, ১২:০০ এএম আপডেট: ১৭.১০.২০১৯ ১২:৪৯ এএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 223

মেধাবীদের তুলে ধরা প্রয়োজন

মেধাবীদের তুলে ধরা প্রয়োজন

চ্যানেল আই খুদে গানরাজের মাধ্যমে সংগীতের ভুবনে আসেন জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী সাবরিনা পড়শী। ২০১০ সালে পড়শীর প্রথম একক অ্যালবাম প্রকাশ হয়। দিন দিন তার জনপ্রিয়তা বাড়ছে। যুক্ত আছেন রেডিও জকি হিসেবে। বর্তমান ব্যস্ততা ও অন্যান্য বিষয় নিয়ে দৈনিক সময়ের আলোর সঙ্গে কথা বলেছেন তিনি। সাক্ষাৎকার নিয়েছেন মোহাম্মদ তারেক

বর্তমানে কী নিয়ে ব্যস্ত সময় কাটছে?
আমার চারটি গানের মিউজিক ভিডিও নিয়ে ব্যস্ত সময় কাটছে। তা ছাড়া কনসার্ট তো আছেই, রেকর্ডিংও করছি নিয়মিত। জাগো রেডিওতে শো চলছে, আর নিজের বিজনেস নিয়ে একটু ব্যস্ত সময় কাটছে।

রেডিওতে কাজ করছেন কয়েক বছর হয়ে গেল, কেমন উপভোগ করছেন?
রেডিওতে ভিন্নরকম একটি ভালে‌া লাগা কাজ করে। সেখানে কথা বলার জন্যই যাওয়া হয়। দেখা যায় আমাদের প্রফেশনের বাইরে তেমন একটা কথা বলা হয় না। ওখানে গেলে অতিথিরা তাদের ব্যক্তিগত জীবনের কথা আমার সঙ্গে শেয়ার করেন, সাধারণত এই সুযোগ খুব কমই মেলে। ওখানে গিয়ে আমি অনেক বন্ধু পেয়ে গেছি।

ইদানীং গান শোনার চেয়েও দেখার বিষয় হয়ে গেছে, ব্যাপারটা কীভাবে দেখছেন?
আগে আমরা অ্যালবাম রিলিজ করতাম, এখন একটা-দুটো গান রিলিজ করি। আগে ইউটিউবের ব্যাপারটা এত বেশি ছিল না। এখন তো এটা ট্রেন্ড হয়ে গেছে। সময়ের সঙ্গে আমাদের চলতে হবে। এখন সময়ই তো সিঙ্গেল ট্র্যাক বা মিউজিক ভিডিওর। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে এই ট্রেন্ড আরও আগে শুরু হলেও আমরা এখন এতে যুক্ত হয়েছি। আগে আমরা শুধু গান, মিউজিক নিয়ে ভাবতাম। কিন্তু বর্তমানে মিউজিক ভিডিও কেমন হচ্ছে তা নিয়েও ভাবতে হয়।  আরেকটা ব্যাপার হলো, দর্শক কণ্ঠশিল্পীকে মিউজিক ভিডিওতে দেখতে চায়, তখন অভিনয়ের মানুষ না হয়েও মিউজিক ভিডিওতে মডেল হতে হয়। অর্থাৎ দর্শকের চাহিদা মাথায় রেখেই আমাদের কাজ করতে হয়। বিষয়টি ইতিবাচকভাবে নেওয়াই উচিত।

অ্যালবামের দিনগুলো মিস করেন?
অবশ্যই মিস করি। অ্যালবাম প্রকাশের একটি অনুষ্ঠান হতো, সবাই থাকত। সবাই অপেক্ষা করত একটি অ্যালবামের জন্য, সেখানে আগ্রহটা অন্যরকম থাকত। আবার অ্যালবামের গানগুলোর জন্য বছর ধরে ব্যস্ত থাকতাম। আমি ব্যক্তিগতভাবে সময় নিয়ে কাজ করতে পছন্দ করি। নিজের সন্তুষ্টি যতক্ষণ পর্যন্ত না আসে ততক্ষণ পর্যন্ত গানটিকে আমার হাত থেকে ছাড়ি না।

বাংলাদেশের মিউজিক ইন্ডাস্ট্রি কোন অবস্থানে আছে?
আগের তুলনায় আমাদের ইন্ডাস্ট্রি ভালো রয়েছে। আমরা নিজেদের সেক্টরে প্রত্যেকেই কাজগুলো এগিয়ে নিতে চাচ্ছি। আমরা বাইরের দেশের গান, মিউজিক ভিডিওকে পেছনে ফেলার চেষ্টা করছি। আমাদের ইচ্ছা যেহেতু আছে, উপায়টাও বের হয়ে যাবে। আমরা একটু ধৈর্য ধরলে আরও এগিয়ে যাবে।

মিউজিক নিয়ে আপনার কী পরিকল্পনা?
বাংলা ভাষার গানগুলো বিশ্বে পৌঁছে দেওয়ার একটি ইচ্ছে আমার আছে। প্রত্যেক ক্ষেত্রেই তো বাংলাদেশ এগিয়ে গেছে, আমার মনে হয় মিউজিকের ক্ষেত্রটা আরেকটু যদি ছড়িয়ে যায় তাহলে ভালো হবে। আমাদের দেশে মনে হয় না কোনো কিছুর কমতি আছে। দেশের মেধাবীদের তুলে ধরা প্রয়োজন।





সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]