ই-পেপার শনিবার ২৩ নভেম্বর ২০১৯ ৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
ই-পেপার শনিবার ২৩ নভেম্বর ২০১৯

পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের দালাল সোহাগ কাজীর বিরুদ্ধে গ্রাহক হয়রানির অভিযোগ
প্রতিকারের আশায় পুলিশ সুপারের কাছে অভিযোগ করেছে এলাবাসী
নড়াইল প্রতিনিধি
প্রকাশ: শনিবার, ২৬ অক্টোবর, ২০১৯, ৭:২২ পিএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 268

পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের দালাল সোহাগ কাজীর বিরুদ্ধে গ্রাহক হয়রানির অভিযোগ

পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের দালাল সোহাগ কাজীর বিরুদ্ধে গ্রাহক হয়রানির অভিযোগ

নড়াইলে সোহাগ কাজীর বিরুদ্ধে সন্ত্রাসী ,জালিয়াতি,প্রতারণা ও চাঁদাবাজীর অভিযোগ পাওয়া গেছে। অভিযোগকারিরা নিরুপায় হয়ে পুলিশ সুপার বরাবর অভিযোগ পত্র দায়ের করেছে। গত ২১ অক্টোবর আউড়িয়া ইউনিয়নের ভুক্তভোগী ১৬ জন পল্লী বিদ্যুৎ গ্রাহক পুলিশ সুপারের কাজে এ আভিযোগ দায়ের করে।

লিখিত অভিযোগে জানাযায়, এলাকার কুখ্যাত রাজাকার পুত্র সোহাগ কাজী পল্লী বিদ্যুতের ঠিকাদার না হয়েও নিজেকে ঠিকাদার পরিচয় দিয়ে থাকেন। বাড়িতে বিদ্যুৎ সংযোগ দেবার কথা বলে বহু সহজ সরল মানুষের কাছ থেকে লক্ষ লক্ষ টাকা আত্মসাৎ করেছে বলে এ অভিযোগে জানা যায় । গ্রামের সাধারণ মানুষের কাছ থেকে প্রতি মিটার বাবদ ৩ থেকে ৪ হাজার টাকা নিয়েছেন । ভুত্তভোগীরা সংযোগ দেয়ার কথা বললে আওয়ামীলীগ ক্যাডার দাবী করে হাত পা ভেঙ্গে ফেলাসহ খুন করবেন বলে হুমকি দিয়ে থাকেন। সোহাগ কাজীর নিজের কোন জমি জায়গা নেই, বাবার রেখে যাওয়া যা ছিল একাধিক বিবাহ করে সব বিক্রী করে দিয়েছেন। জালিয়াতি,প্রতারণা, সন্ত্রাসী ও চাঁদাবাজী এখন তার আয়ের মুল উৎস । ইতিমধ্যে কয়েক লক্ষ টাকা দিয়ে নিজ গ্রাম তালতলায় সুন্দর একটি বাড়ি নির্মাণ করেছে অভিযোগকারিরা অভিযোগে উল্লেখ করেছে।

এ বিষয়ে পল্লী বিদ্যূতের ডিজিএম দীলিপ কুমার গাইন এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, পল্লি বিদ্যুতের নাম ভাংগিয়ে বাইরের যদি কেউ প্রতারণা করে তাহলে অফিসের কি করার আছে। তবে যারা হয়রানির শিকার হয়েছে তারা আইনের আশ্রয় নিলে সুফল পাবে। তবে দালালের কোন স্থান হবে না এই অফিসে।

এ দিকে পুলিশ সুপার মোহাম্মাদ জসিম উদ্দিন পিপিএম বার বলেন, ভুক্তভোগীরা ন্যায় বিচার যাতে দ্রুত পাই সেই ব্যবস্থা করা হবে এবং দোষীকে শীগ্রই আইনের আওতায় আনা হবে।

অপরদিকে অভিযোগের বিষয়ে সোহাগ কাজী বলেন, আমি এক বছর আগে পল্লী বিদ্যুতের ওয়ারিং এর কাজ করতাম এখন এ কাজ ছেড়ে দিয়েছি। তবে কাজ করতে গেলে ভুলত্রুটি হয় । যদি আমার কাছে কারো কোন দেনাপাওনা থাকে আমাকে জানালে আমি সমাধান করে দেয়ার চেষ্ঠা করবো।

পুলিশ সুপারের কাছে অভিযোগ দেবার ব্যাপারে তিনি বলেন, আমার প্রতিপক্ষ হয়রানি করার জন্য পুলিশ সুপারের কাছে এ অভিযোগ করেছে।





সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]