ই-পেপার বৃহস্পতিবার ২১ নভেম্বর ২০১৯ ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
ই-পেপার বৃহস্পতিবার ২১ নভেম্বর ২০১৯

আবরার হত্যা মামলায় পছন্দের আইনজীবী রাখতে চায় পরিবার
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশ: বুধবার, ৬ নভেম্বর, ২০১৯, ৫:০০ পিএম আপডেট: ০৬.১১.২০১৯ ৫:১৪ পিএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 666

আবরারের মামা মোফাজ্জল হোসেন  এবং মামাতো ভাই মো জহিরুল ইসলাম । ছবি আলী আজম

আবরারের মামা মোফাজ্জল হোসেন এবং মামাতো ভাই মো জহিরুল ইসলাম । ছবি আলী আজম

বহুল আলোচিত বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ রাব্বী হত্যা মামলায় ২৪ জনকে আসামি করে অভিযোগপত্র (চার্জশিট) চূড়ান্ত হয়েছে। চার্জশিটে যাদের নাম আসছে তারা বুয়েটের ছাত্র ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মী বলে জানা গেছে। ঢাকা মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার (ডিবি) আব্দুল বাতেন জানান, আগামী দু-এক দিনের মধ্যে আদালতে চার্জশিট দাখিল করা হবে।

অভিযোগপত্র পাওয়ার পর আবরার হত্যা মামলা দ্রুত নিষ্পওির জন্য আইনজীবীদের বিশেষ যে প্যানেল থাকবে সেখানে আবরারের পরিবারের পছন্দের আইনজীবীও রাখার দাবি জানিয়েছেন আবরারের মামা মোফাজ্জল হোসেন।

বুধবার ১টার দিকে বুয়েট উপাচার্য (ভিসি) অধ্যাপক ড. সাইফু্ল ইসলামের সাথে আবরারের মামা মোফাজ্জল হোসেন  এবং মামাতো ভাই মো জহিরুল ইসলাম বৈঠক করে বের হওয়ার পরে সাংবাদিকদের এ কথা জানান।

আবরারের মামা মোফাজ্জল হোসেন বলেন, যেহেতু বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ আবরার হত্যাকাণ্ডের মামলার ব্যয়ভার ও মামলা পরিচালনা করবেন। তাই এই হত্যাকাণ্ডের বিচার কার্যক্রম পরিচালনা করার জন্য তারা যে আইনজীবী প্যানেল রাখবেন সেখানে আমাদের পছন্দের দু’একজন আইনজীবী রাখার কথা বলেছি উপাচার্যকে।

মোফাজ্জল হোসেন বলেন, আমরা আবরারকে চাই, ক্ষতিপুরণ না। সেটি যেহেতু হবে না, তাই ক্ষতিপূরণের ব্যাপারে আমাদের কোন মন্তব্য নেই। তবে উপাচার্য আমাদের বলেছেন এ ব্যাপারে তারা নিজেরা বসে সিদ্ধান্ত নেবেন।

এদিকে আবরার হত্যা মামলার তদন্ত কর্মকর্তা লালবাগ জোনাল টিম, গোয়েন্দা (দক্ষিণ) বিভাগের পুলিশ পরিদর্শক মো. ওয়াহিদুজ্জামান মামলার তদন্ত শেষ করে তদন্ত প্রতিবেদন বা চার্জশিট প্রস্তুত করেছেন। সাক্ষীদের জবানবন্দি, আসামিদের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দির ওপর ভিত্তি করে চার্জশিট প্রস্তুত করা হয়। ইতিমধ্যে এই মামলায় ২১ জন গ্রেপ্তার হয়েছে। তারা সবাই কারাগারে আছেন। এ ছাড়া আরো তিনজন পলাতক রয়েছেন। এই পলাতক তিনজন এজাহারনামীয়। সবার বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রাথমিকভাবে প্রমাণিত হয়েছে বলে সূত্র জানায়। 

প্রসঙ্গত, গত ৬ অক্টোবর রাতে বুয়েটের শেরে বাংলা হলের ১০১১ নম্বর কক্ষ থেকে ডেকে নিয়ে পিটিয়ে হত্যা করা হয় বুয়েটের ১৭তম ব্যাচের ইলেকট্রিক অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ছাত্র আবরার ফাহাদ রাব্বীকে। রাত ৩টার দিকে হলের দ্বিতীয় তলা থেকে আবরারের মরদেহ উদ্ধার করে কর্তৃপক্ষ। এ ঘটনায় একাধিক ভিডিও ফুটেজ পাওয়া যায়। আবরারকে হত্যার ঘটনায় তার বাবা বরকত উল্লাহ বাদী হয়ে ১৯ জনকে আসামি করে হত্যা মামলা করেন। পরে হত্যায় সংশ্লিষ্ট থাকার অভিযোগে বুয়েট ছাত্রলীগের ১৩ নেতাকর্মীসহ ২১ জনকে গ্রেফতার করা হয়।




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]