ই-পেপার শনিবার ২৩ নভেম্বর ২০১৯ ৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
ই-পেপার শনিবার ২৩ নভেম্বর ২০১৯

স্কুলে যাওয়ার পথে অপহরণের পর ৬ষ্ঠ শ্রেনীর ছাত্রী ধর্ষণ !
ইউপি সদস্য সহ ৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা
ফরিদগঞ্জ (চাঁদপুর) প্রতিনিধি
প্রকাশ: বৃহস্পতিবার, ৭ নভেম্বর, ২০১৯, ৫:১৪ পিএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 45

স্কুলে যাওয়ার পথে অপহরণের পর ৬ষ্ঠ শ্রেনীর ছাত্রী ধর্ষণ !

স্কুলে যাওয়ার পথে অপহরণের পর ৬ষ্ঠ শ্রেনীর ছাত্রী ধর্ষণ !

চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ উপজেলার স্কুলের ৬ষ্ঠ শ্রেনীর পিতৃহারা ছাত্রীকে ধর্ষন করেই ক্ষান্ত হয়নি ধর্ষক ওমর উকিল। ধর্ষনের পর বিয়ের মিথ্যা আশ্বাস দিয়ে ধর্ষিতার কাছ থেকে ৫ টি সাদা ষ্ট্যাম্পে সই স্বাক্ষর নিয়েছে। এ ঘটনায় এক ইউপি সদস্য ও এক যুবলীগের নেতা সহ মোট ৬ জনের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে ফরিদগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে।

মামলার এজাহার ও এলাকাবাসী জানায়, উপজেলার বালিথুবা আবদুল হামিদ উচ্চ বিদ্যালয়ের ৬ষ্ট শ্রেনীর ছাত্রীটি গত বুধবার তার স্কুলে রওনা দেয়। পথিমধ্যে ওই ইউনিয়নের রাজাপুর গ্রামের আবদুল মালেক উকিলের ছেলে ফারুক উকিল (২৪) ওই ছাত্রীটকে রাস্তা থেকে জোরপূর্বক অপহরন করে একটি সিএনজিতে করে প্রথমে চাঁদপুরের লঞ্চ ঘাটে নিয়ে আসে। পরে রাতে লঞ্চের কেবিনে নিয়ে ঢাকা যাওয়ার সময় ছাত্রীটিকে একাধিকবার ধর্ষন করেছে। পরে বাড়িতে আসার পর ঘটনাটি জানাজানি হলে এলাকার ইউপি সদস্য হারিছের সহযোগিতায় ছাত্রীটির কাছ থেকে ৫টি ষ্ঠ্যাম্পে সই স্বাক্ষর নিয়ে তাকে ছেড়ে দেয়া হয় বলে
বলে এজাহারে উল্লেখ রয়েছে।

তবে এ বিষয়ে অভিযুক্ত হারিছ মেম্বার নিজেকে নির্দোষ দাবী করে বলেন, আমার সামনে কোন ষ্ট্যাম্প নেয়া হয়নি। আমাদের ইউনিয়ন পরিষদের চৌকিদার শাহাদাত উক্ত বিষয়টি এলাকার ইউপি চেয়ারম্যান হারুনুর রশিদকে জানিয়ে তারপর ধর্ষিতার কাছ থেকে ষ্ট্যাম্প নিয়েছে শুনেছি।

উক্ত ঘটনায় অভিযোগে গত মংগলবার (৪ নভেম্বর) ধর্ষিতার মা বাদী হয়ে ওমর উকিলকে প্রধান আসামী করে এলাকার ইউপি সদস্য হারিছ মেম্বার ও ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি মহসিন তফাদার সহ ৬ জনের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে ফরিদগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে। ধষিতা ছাত্রীটি আসামীদের বিরেদ্ধে আদালতে ২২ ধারায় স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দী দিয়েছে।

উক্ত মামলার তদন্তকারী পুলিশ অফিসার ফরিদগঞ্জ থানার এস আই মোঃ নাজমুল গতকাল বৃহস্পতিবার এ প্রতিনিধকে বলেন, ৬ষ্ঠ শ্রেনীকে জোরপূর্বক অপহরনের পর ধর্ষনের অভিযোগে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে একটি মামলা দায়ের হয়েছে। ধর্ষিতার
স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দী আদালতে দিলেও ধর্ষনের ডাক্তারী পরীক্ষার রিপোর্ট পাওয়া যায়নি। আসামীদেরকে গ্রেফতারের প্রচেষ্টা রয়েছে।




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]