ই-পেপার শনিবার ২৩ নভেম্বর ২০১৯ ৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
ই-পেপার শনিবার ২৩ নভেম্বর ২০১৯

লক্ষ্মীপুরে ইউপি চেয়ারম্যানসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে মামলা
লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি
প্রকাশ: বৃহস্পতিবার, ৭ নভেম্বর, ২০১৯, ৭:৫৬ পিএম আপডেট: ০৭.১১.২০১৯ ৮:০২ পিএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 118

লক্ষ্মীপুরে ইউপি চেয়ারম্যানসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে মামলা

লক্ষ্মীপুরে ইউপি চেয়ারম্যানসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে মামলা

লক্ষ্মীপুরে জেলেদের কাছ থেকে চাঁদা দাবীর অভিযোগে ইউসুফ ছৈয়াল নামে এক ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৭ নভেম্বর) সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আমলী (সদর) আদালতে ভুক্তভোগী জেলে শাহজাহান মোল্লা বাদী হয়ে এ মামলা দায়ের করেন।

এতে ওই চেয়ারম্যানসহ ১০ জনের নাম উল্লেখপূর্বক আরো ২০/২৫ জনকে আসামী করা হয়। সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আবদুল কাদের মামলাটি আমলে নিয়ে তদন্তপূর্বক আগামী ১৪ জানুয়ারি তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য লক্ষ্মীপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে দায়িত্ব দেন।

অভিযুক্ত ইউসুফ ছৈয়াল সদর উপজেলার চর রমনী মোহন ইউনিয়ন পরিষদের ইউপি চেয়ারম্যান।

এ ছাড়া অন্য আসামীরা হলেন, ওই ইউপি চেয়ারম্যানের ছেলে ইয়াকুব ছৈয়াল, স্থানীয় আবু ইউছুফ ছৈয়ালের ছেলে কাজল ছৈয়াল, মৃত হামিদ সর্দারের ছেলে জিল্লাল সদ্দার, হামিদ ভূঁইয়ার ছেলে ফিরোজ, এছাহাকের ছেলে অনু, সালা আহম্মদ, এছাহাক বন্দুসির ছেলে সাদ্দাম, কাশেম মিরের ছেলে ইলিয়াছ, আমিন হোসেনের ছেলে এমরান। তারা সবাই একই ইউনিয়নের বাসিন্দা।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, সদর উপজেলার উত্তর চররমনী মোহন হতে হোলার চর, দিঘলা চর, পাতার চর, হটকের চরসহ নতুন মেঘা পর্যন্ত মেঘনা নদীর বিভিন্ন স্থানে মাছ শিকার করে জীবিকা নির্বাহ করে ওই ইউনিয়নের জেলে সম্প্রদায়।

সম্প্রতি মাছ ধরার নিষেধাজ্ঞা শেষে নদীতে মাছ স্বীকার করতে গেলে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ইউছুফ ছৈয়াল ও তার লোকজন অস্ত্র-সস্ত্র নিয়ে জেলেদের কাছে চর প্রতি ৩ লাখ টাকা হারে চাঁদা দাবী করে। দাবীকৃত চাঁদা না দিলে নদীতে মাছ ধরতে না দেওয়ার হুমকি ধমকি দিয়ে আসছে। এ ঘটনায় জেলেরা লক্ষ্মীপুর পুলিশ সুপারসহ বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ করেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে ওই ইউপি চেয়ারম্যান।

গত শনিবার (২ নভেম্বর) দুপুরে মেঘনা নদীর দিঘার চরের পশ্চিম পাড়ে জেলে শাহজাহান মোল্লাসহ কয়েকজন জেলে মাছ শিকারে যায়। এসময় ইউপি চেয়ারম্যান ইউছুফ ছৈয়ালের নেতৃত্বে এক দল সন্ত্রাসী দেশীয় অস্ত্র নিয়ে আক্রমণ করে জেলেদের জিম্মি করে নৌকা প্রতি ৩ লাখ টাকা চাঁদা দাবী করে।

দাবীকৃত টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করায় জেলেদের বেধম মারধর শুরু করে ওই চেয়ারম্যান ও তার লোকজন। এক পর্যায়ে চেয়ারম্যানের লোকজন দেড় লাখ টাকা মূল্যের মাছ ধরার জাল এবং ১ লাখ টাকা মূল্যের মাছ লুট করে নিয়ে যায়। যাওয়ার সময় দাবীকৃত চাঁদার টাকা না দিলে জেলেদের নদীতে মাছ শিকার করতে দেবে না বলে চেয়ারম্যান ও তার লোকজন হুমকি ধমকি দেয় বলে মামলায় অভিযোগ করা হয়। এ ঘটনার পর থেকে নদীতে মাছ শিকারে যেতে না পারায় বর্তমানে কর্মহীন হয়ে পরিবার-পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবন জাপন করছেন তারা। এ ঘটনায় অভিযুক্ত ইউপি চেয়রম্যানের সুষ্ঠু বিচার দাবী করেন ভুক্তভোগীরা।

অভিযোগের বিষয়ের জানতে চাইলে চর মোহন ইউনিয়ন পরিষদের ইউপি চেয়ারম্যান চাদা দাবীর বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, মূলত শাহজাহান মোল্লাসহ কয়েকজন অবৈধ মাছ ঘাটা পরিচালনা করার অভিযোগে উপজেলা অফিসে অভিযোগ দেওয়া হয়। এবিষয়ে আমি তাদের বিরুদ্ধে তদন্ত প্রতিবেদ দেই। তাই আমার বিরুদ্ধে এমব অভিযোগ তুলেছে।

এ ব্যাপারে লক্ষ্মীপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একেএম আজিজুর রহমান মিয়া জানান, আদালতে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে চাঁদা দাবীর অভিযোগ তদন্তের আদেশ এখনও হাতে আসেনি। হাতে পেলে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]