ই-পেপার শনিবার ২৩ নভেম্বর ২০১৯ ৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
ই-পেপার শনিবার ২৩ নভেম্বর ২০১৯

বিদ্যুতের আলো পাবে যমুনার চরাঞ্চলের ছয় ইউনিয়নবাসী
সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি
প্রকাশ: শুক্রবার, ৮ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:০০ এএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 21

অবশেষে সিরাজগঞ্জের যমুনা নদীর চরাঞ্চলের ছয়টি ইউনিয়নবাসী বিদ্যুতের আলো দেখতে পাবেন। ইতোমধ্যে বিদ্যুতের লাইন স্থাপনের কাজ শুরু হয়েছে। সিরাজগঞ্জের কাজিপুর উপজেলা ১২টি ইউনিয়ন ও পৌরসভা নিয়ে গঠিত। উপজেলাটি যমুনা নদী বিধৌত হওয়ায় ছয়টি ইউনিয়নÑ মনসুরনগর, নাটুয়ারপাড়া, নিশ্চিন্তপুর, খাসরাজবাড়ী, তেকানী ও খাসরাজবাড়ী কাজিপুর উপজেলা পরিষদ থেকে বিচ্ছিন্ন। এই ছয়টি ইউনিয়ন যোগাযোগের একমাত্র ভরসা শ্যালোচালিত নৌকা। যা দিয়েই এসব ইউনিয়নের লক্ষাধিক মানুষ কাজিপুর উপজেলা পরিষদ ও সিরাজগঞ্জ জেলার সঙ্গে যোগাযোগ করে থাকে। এসব ইউনিয়নে কখনও বিদ্যুৎ পৌঁছায়নি। সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম কাজিপুরের চরাঞ্চল উন্নয়ন বৈষম্য ঘোচাতে এই প্রকল্প পাস করাতে সচেষ্ট হন।
সরেজমিনে দেখা যায়, গত সপ্তাহে জামালপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির লোকজন জরিপ শেষে খুঁটি পোতার কাজ শুরু করেছে। এই কাজের উদ্বোধন করেছেন সিরাজগঞ্জ-১ আসনের সাবেক জাতীয় সংসদ সদস্য প্রকৌশলী তানভীর শাকিল জয়। ইতোমধ্যে জামালপুর জেলার সীমানা ঘেঁষা মনসুরনগর এবং চরগিরিশ ইউনিয়নে আংশিক বিদ্যুৎ সংযোগের কাজ প্রায় শেষের দিকে।
মনসুরনগর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক রাজমহর জানান, যমুনা নদীর ভাঙা-গড়ার মধ্য দিয়ে জীবনযাপন করছে চরাঞ্চলের মানুষ। যেখানে ছিল না যোগাযোগ ব্যবস্থার ভালো কোনো পথ, ছিল না আধুনিকতার কোনো ছোঁয়া। সেখানে বিদ্যুতের কথা চিন্তাও কখনও মাথায় আসেনি। সেই দুর্গম চরাঞ্চল এখন বিদ্যুতের আলো জ্বলবে। নতুন নতুন গ্রামে পৌঁছে গেছে বৈদ্যুতিক খুঁটি ও লাইন। এটা সত্যিই আমাদের অনেক বড় পাওয়া।
কাজিপুর উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ মোজাম্মেল হক বকুল সরকার জানান, চরাঞ্চলের অনেক স্থানে এখন যোগাযোগের জন্য নির্মিত হয়েছে পাকা রাস্তা। পাকাকরণ কাজ হয়েছে অনেক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। ফলে চরাঞ্চলের মানুষের জীবনযাত্রার মান বেড়েছে অনেকখানি। কিন্তু বিদ্যুৎ ব্যবস্থা না থাকায় তাদের সব উন্নয়ন যেন থমকে ছিল।
কাজিপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান খলিলুর রহমান সিরাজ জানান, আগামী ছয় মাসের মধ্যে ছয়টি ইউনিয়নের বিদ্যুতের লাইনের কাজ সমাপ্ত হবে। এই প্রকল্প সমাপ্ত হওয়ার পরই ছয়টি ইউনিয়নের প্রায় লক্ষাধিক জনগণ বিদ্যুতের আলোর মুখ দেখবে। আর চরাঞ্চলের যেসব স্থান এখনও সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন সেখানে সড়ক তৈরির কাজও চলছে। ব্রিজ হচ্ছে ও কালভার্ট হচ্ছে। বর্তমান সরকারের সময়ে চরাঞ্চলের মানুষের উন্নয়নের জন্য কাজ করা হচ্ছে। আর এই জন্য চরাঞ্চলের ছয়টি ইউনিয়নবাসী শহীদ ক্যাপ্টেন এম মনসুর আলীর পরিবারের
প্রতি চির কৃতজ্ঞ।





সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]