ই-পেপার শনিবার ২৩ নভেম্বর ২০১৯ ৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
ই-পেপার শনিবার ২৩ নভেম্বর ২০১৯

ইবিতে কর্মকর্তাদের দু’পক্ষের হাতাহাতি
ইবি প্রতিনিধি
প্রকাশ: শনিবার, ৯ নভেম্বর, ২০১৯, ৮:২৯ পিএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 91

ইবিতে কর্মকর্তাদের দু’পক্ষের হাতাহাতি

ইবিতে কর্মকর্তাদের দু’পক্ষের হাতাহাতি

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মকর্তা সমিতির দুই পক্ষের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে। শনিবার বিকেল ৪টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসিসিতে সমিতির এক সাধারণ সভায় এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, ইবি কর্মকর্তাদের দীর্ঘ এক বছরের আন্দোলনের মুখে গত ২ অক্টোবর বিশ্ববিদ্যালয়ের ২৪৭ তম সিন্ডিকেট সভায় সহকারী রেজিস্ট্রারদের ৩৫ হাজার ৫০০ এবং উপ রেজিস্ট্রারদের ৫০ হাজার টাকার বেতন স্কেলের বিষয়টি শর্তসাপেক্ষে মেনে নেয় কতৃপক্ষ। সাথে কিছু নীতিমালা জুড়ে দেয় কর্তৃপক্ষ। কিন্তু কর্মকর্তাদের একাংশ কোন শর্ত ছাড়াই সার্বজনীন ভাবে এই বেতন স্কেল দাবি করেন। ফলে কর্মকর্তাদের দাবির মুখে সিন্ডিকেটের এই সিদ্ধান্তটি উপাচার্য নিজ ক্ষমতা বলে স্থগিত রাখেন। এদিকে এই সিদ্ধান্ত পর্যালোচনা করতে শনিবার সাধারণ সভার আয়োজন করেন কর্মকর্তা সমিতি।

সভায় সিনিয়র কর্মকর্তারা প্রশাসনের সিদ্ধান্ত মেনে নিয়ে সকলকে তা মেনে নেয়ার পরামর্শ দেয়। সাথে কর্মকর্তা সমিতির নেতাদের দোষারোপ করে সভায় বক্তব্য দেয়। এসময় এর বিরোধীতা করে কর্মকর্তা বাদল, সেলিম, গোলাম, জাহিদসহ বেশ কয়েকজন উত্তেজিত হয়ে উঠতে দেখা যায়। এসময় তারা স্টেজে উঠে ডায়েজ ও মাইক ফেলে দেয়। এসময় পরাগ, আলমগীর হোসেন খান, জামিরুলসহ কিছু কর্মকর্তা তাদের নিবৃত্ত করতে চাইলে তাদেরও লাঞ্ছিত করে তারা। ঘটনার একপর্যায়ে হাতাহাতিতে রূপ নেয়। এসময় পদোন্নতি পাওয়া কর্মকর্তাদের হাতে উপ রেজিস্ট্রার আলমগীর হোসেন খান শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত হয় বলে জানা যায়। 

এ বিষয়ে একাধিক সিনিয়র কর্মকর্তা বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাশ করা একজন কর্মকর্তা আর চতুর্থ শ্রেণী থেকে আপগ্রেডিং নিয়ে কর্মকর্তা হওয়া কখনো এক নয়। যে কর্মচারী এক সময় আমাদের পিয়ন ছিল সে এখন আমাদের সমান স্কেল দাবি করছে যা সম্পূর্ণ অযৌক্তিক। তাই বেতন স্কেল বিষয়ক সিন্ডিকেট সভার এ সিদ্ধান্ত সম্পূর্ণ যৌক্তিক। এসব কথা যখনই বলতে গেছি তখনই চতুর্থ শ্রেণী থেকে পদোন্নতি প্রাপ্তরা আমাদের উপর চড়াও হয়।’  

এদিকে সিন্ডিকেট সভায় গৃহীত সিদ্ধান্ত বাতিলের পক্ষে মত দিয়ে কর্মকর্তারা। পাশাপাশি পরবর্তী সিন্ডিকেট সভায় তাদের দাবি মেনে না নিলে কঠোর কর্মসূচীর ঘোষণা দেওয়ার হুশিয়ারি দেন কর্মকর্তা সমিতির সাধারণ সম্পাদক মীর মোর্শেদুর রহমান। এসময় তিনি  বলেন, ‘প্রশাসন নীল নকশার মাধ্যমে কর্মকর্তাদের মধ্যে বিভেদ সৃষ্টি করছে। কিছু প্রশাসনের অনুগত কর্মকর্তারা তাদের এজেন্ডা বাস্তবায়নের চেষ্টা চালালে সাধারণ কর্মকর্তারা এতে বাঁধা দেয়।’




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]