ই-পেপার শুক্রবার ১৫ নভেম্বর ২০১৯ ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
ই-পেপার শুক্রবার ১৫ নভেম্বর ২০১৯

স্বাস্থ্য পরামর্শ
ওয়াই-ফাই স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর
ডা. মো. নুরুজ্জামান
প্রকাশ: রোববার, ১০ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:০০ এএম আপডেট: ১০.১১.২০১৯ ১:১৭ এএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 248

ওয়াই-ফাই স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর

ওয়াই-ফাই স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর

যেভাবে ক্ষতি করে : শিশুদের ক্ষেত্রে ওয়াই-ফাই-এর কুপ্রভাবে তাদের মানসিক বিকাশ ব্যাহত হয়। নারীদের এনার্জি লেভেল অনেক কমে যায়। বয়স্কদের ক্ষেত্রে মনঃসংযোগের অভাব দেখা দেয়।

ওয়াই-ফাই বিকিরণের মারাত্মক প্রভাবে পুরুষদের স্পার্ম ও ডিএনএতে ব্যাপক প্রভাব পড়ে। কোষের বৃদ্ধিতে প্রতিবন্ধক হয়ে দাঁড়ায় ওয়াই-ফাই বিকিরণ।  কোনো ঘরে ওয়াই-ফাই চালু থাকলে সেই বিকিরণের প্রভাবে অনেকের হৃৎস্পন্দন বেড়ে যেতে পারে।

হার্টের দুর্বলতা রয়েছে যাদের, তাদের এ ক্ষেত্রে সমস্যা বেশি হতে পারে।

মাত্রাতিরিক্ত বিকিরণের কারণে যে কারোর মাথাব্যথা হওয়া খুব স্বাভাবিক। প্রথমে বোঝা না গেলেও পরের দিকে তা জটিল আকার ধারণ করতে পারে।

দিনের অনেকটা সময় ওয়াই-ফাই রেডিয়েশনের মধ্যে থাকলে অনিদ্রার সমস্যা হয়। এ ছাড়া কাজকর্মে মনোযোগের অভাব, কান ব্যথা, শরীরে ক্লান্তি ভাব থাকা ইত্যাদি ঘটতে পারে।

করণীয় : ওয়াই-ফাইয়ের ক্ষতিকর প্রভাব থেকে নিরাপদ থাকতে কিছু সতর্কতা মেনে চলা যেতে পারে। এতে ওয়াই-ফাইয়ের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া অনেকাংশে কমানো সম্ভব হবে। এ জন্য কিছু করণীয় হলো
যতটা সম্ভব কম পরিমাণে ওয়াই-ফাই ব্যবহার করুন। পারতপক্ষে বর্জন করুন।

রাতে বা ঘুমের সময় রাউটারটি অফ করে রাখুন। এতে অল্প সময়ের জন্য হলেও তড়িতচুম্বকীয় তরঙ্গপ্রবাহ বন্ধ থাকবে।

ওয়াই-ফাইয়ের রাউটারের সিগন্যাল লেভেল সব সময় কমিয়ে রাখুন।

শোবারঘরে কখনও রাউটার রাখবেন না।

শিশু ও গর্ভবতী নারীদের রাউটারের আশপাশ থেকে দূরে রাখুন।

ইন্টারনেট ব্যবহার শেষে রাউটারের সুইচ অফ করে দিন।

লেখক : সহযোগী অধ্যাপক, মেডিসিন বিভাগ এম আব্দুর রহিম
মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, দিনাজপুর।





সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]