ই-পেপার সোমবার ৯ ডিসেম্বর ২০১৯ ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
ই-পেপার সোমবার ৯ ডিসেম্বর ২০১৯

জাবি ভিসি অপসারনের আন্দোলন স্থগিত
জাবি প্রতিনিধি
প্রকাশ: বুধবার, ১৩ নভেম্বর, ২০১৯, ৬:৩৪ পিএম আপডেট: ১৩.১১.২০১৯ ৬:৪২ পিএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 150

জাবি ভিসি অপসারনের আন্দোলন স্থগিত

জাবি ভিসি অপসারনের আন্দোলন স্থগিত

*২১ নভেম্বরের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল আবাসিক হল খুলে দেয়ার আল্টিমেটাম জানিয়ে আন্দোলনে বিরতি। আল্টিমেটাম না মানা হলে ২২ নভেম্বর সমাবেশের ঘোষণা।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলামকে অপসারণের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল করেছে আন্দোলনরত শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।

বুধবার দুপুর সাড়ে ১২ টায় পূর্বঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে বিশ্ববিদ্যালয়ের মুরাদ চত্বর থেকে ‘দুর্নীতির বিরুদ্ধে জাহাঙ্গীরনগর’ ব্যানারে একটি মিছিল বের হয়। মিছিলটি ক্যাম্পাসের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক ঘুরে পুরোনো প্রশাসনিক ভবনের সামনে গিয়ে শেষ হয়। পরে সেখানে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ অনুষ্ঠত হয়।

এসময় শিক্ষার্থীদের ‘হামলা করে আন্দোলন, বন্ধ করা যাবে না’, ‘অবিলম্বে হল ভ্যাকেন্ট বাতিল কর, করতে হবে’, ‘যেই ভিসি ছাত্র মারে, সেই ভিসি চাই না’, ‘যেই ভিসি সন্ত্রাস করে, সেই ভিসি চাই না’- স্লোগান দিতে দেখা যায়।

সংক্ষিপ্ত সমাবেশে ছাত্র ইউনিয়নের বিশ্ববিদ্যালয় সংসদের সহ-সভাপতি অলিউর রহমান বলেন, ‘দুর্নীতিবিরোধী চলমান আন্দোলনে হামলা করে ফারজানা ইসলাম তার দুর্নীতিবাজ চরিত্রের প্রকাশ ঘটিয়েছেন। তিনি শুধু উপাচার্যই নন, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক হিসেবেও নিজের অবস্থান হারিয়েছেন।’

অধ্যাপক কামরুল আহসান বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ হয়ে আছে। যারা আন্দোলন করছেন তারা অনেক কষ্ট করে বিশ্ববিদ্যালয় রক্ষার আন্দোলন করছেন। মনে রাখতে হবে, যদি ভুল পথে হাঁটি আমরা, যে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীদের হল খালি করে বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে, তারা আবার আন্দোলনে যোগ দিতে আসবে।’

বাংলা বিভাগের শিক্ষক শামীমা সুলতানা বলেন, ‘শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে জাবি ভিসির বিরুদ্ধে অভিযোগ জমা দেয়া হয়েছে, এখন যত দ্রুত তদন্তের ব্যবস্থা করা হয় ততই বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য মঙ্গল। কিন্তু তা না করে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের বাড়িতে বাড়িতে পুলিশ পাঠিয়ে ভয় দেখানো হচ্ছে। যা অভিযোগের সুষ্ঠু তদন্তের বিষয়ে সংশয় তৈরি করে।’

সন্ধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা ও মানবিক অনুষদ ভবনে সাংবাদিক সম্মেলনে আগামী ২১ নভেম্বরের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয় খুলে দেওয়ার দাবি জানিয়ে, ২১ নভেম্বর পর্যন্ত আন্দোলন স্থগিত রাখার ঘোষণা দেন ‘দুর্নীতির বিরুদ্ধে জাহাঙ্গীরনগর’ ব্যানারে আন্দোলনকাীরদের সমন্বয়ক ও মুখপাত্র অধ্যাপক রাইয়ান রাইন। তিনি আরও বলেন, ২১ নভেম্বরের মধ্য প্রশাসন যদি বিশ্ববিদ্যালয় না খুলে অন্যথায় ২২ নভেম্বর বিশ্ববিদ্যালয়ে সমাবেশে  করা হবে।




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : shomoyera[email protected]