ই-পেপার সোমবার ৯ ডিসেম্বর ২০১৯ ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
ই-পেপার সোমবার ৯ ডিসেম্বর ২০১৯

পূরণ হয়নি শামির হ্যাটট্রিকের স্বপ্ন
ক্রীড়া ডেস্ক
প্রকাশ: শুক্রবার, ১৫ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:০০ এএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 25

শুরু হয়ে গেল বাংলাদেশ-ভারত টেস্ট সিরিজের লড়াই। প্রথম টেস্টে দু’দল মুখোমুখি হয়েছে ইন্দোরে। বৃহস্পতিবার দিন শেষে স্বাগতিকদের মুখে চওড়া হাসি। কেননা, বোলারদের কাঁধে চড়ে প্রথম দিনটা বিরাট কোহলিরা রাঙিয়েছেন নিজেদের মতো করেই। ভারতীয় বোলারদের সফলতার দিনে সাফল্যের চূড়ায় মোহাম্মদ শামি। ২৯ বছর বয়সি এই ডানহাতি পেসারের গতি আর সুইংয়ে ভালোই ভুগেছে টাইগার ব্যাটসম্যানরা। তবে পূরণ হতে দেয়নি শামির হ্যাটট্রিকের স্বপ্ন।
ভারতের মাটিতে স্বাগতিক বোলারদের তোপের মুখে পড়তে হবেÑ এমন চ্যালেঞ্জ সামনে রেখেই ইন্দোরে নামে বাংলাদেশ। টেস্ট শুরুর আগের দিন বুধবার সংবাদ সম্মেলনে অধিনায়ক মুমিনুল হক বলেছিলেন, চ্যালেঞ্জ নিতে প্রস্তুত তারা। কিন্তু না। কোহলির বোলারদের আগুন ঝরানো বোলিংয়ে টাইগারদের প্রথম ইনিংস গুটিয়ে যায় ১৫০ রানের কোটা স্পর্শ করতেই। শামি একাই নেন ৩ উইকেট এবং ২টি করে পান ইশান্ত শর্মা, উমেশ যাদব ও রবিচন্দ্রন অশি^ন।
তবে ৩ উইকেট শিকার করেও হ্যাটট্রিক না পাওয়ার আফসোসে পুড়ছেন শামি। যে সুযোগ ভারতীয় পেসার তৈরি করেছিলেন দ্বিতীয় সেশনের শেষ ওভারে। ওই ওভারের পঞ্চম বলে তিনি ফেরান বাংলাদেশের হয়ে সর্বোচ্চ ৪৩ রানের ইনিংস খেলা মুশফিকুর রহিমকে। পরের বলেই এলবিডব্লিউর ফাঁদে ফেলেন স্পিন অলরাইন্ডার মেহেদী হাসান মিরাজকে। তাতে হ্যাটট্রিকের স্বপ্ন আগলে চা-পানের বিরতিতে যান শামি, ‘চা-পানের বিরতিতে আমি হ্যাটট্রিক নিয়ে ভেবেছিলাম।’
কিন্তু বিরতির পর শামির সেই স্বপ্ন ভেঙে চুরমার করেন তাইজুল ইসলাম। ডানহাতি পেসারের শর্ট লেন্থের বল তাইজুল ঠেকিয়ে দেন দারুণভাবে। তাই স্বাভাবিকভাবেই আশাহত শামি। তবুও সব মিলিয়ে নিজ পারফরম্যান্সে স্বস্তির ঢেকুর তুললেন ভারতীয় ক্রিকেটার। তিনি বলেন, ‘কন্ডিশন এবং পরিস্থিতি অনুযায়ী বল করতে চেয়েছিলাম আমি। আমি আমার পরিকল্পনায় অনড় থাকতে চেয়েছি। আপনি সর্বদা আনন্দিত হবেন যখন দল এবং দেশের জন্য ভালো কিছু করতে পারবেন।’
ইন্দোর টেস্টের প্রথম দিনে শামির গতি আর সুইংয়ের সামনে রীতিমতো অসহায় আত্মসমর্পণ করেছে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা। মুশফিক আর মিরাজের আগে এই পেসারের বলে কাটা পড়েন মোহাম্মদ মিঠুন। তিনিও ফেরেন মিরাজের মতো এলবি হয়ে। শামির ইনসুইং বলটি বুঝেই উঠতে পারেননি মিঠুন। নিজের এমন বিধ্বংসী বোলিংয়ের রহস্য জানতে চাইলে ভারতীয় পেসার বলেন, ‘প্রত্যেক ব্যাটসম্যানকে (বাংলাদেশের) নিয়েই ছক কষেছিলেন তিনি।’





সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]