ই-পেপার রোববার ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯ ১ পৌষ ১৪২৬
ই-পেপার রোববার ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯

লাগামহীন পেঁয়াজ, সবজিতেও লেগেছে তার ঝাঁজ
অরিন্দম মাহমুদ, ধামইরহাট নওগাঁ
প্রকাশ: রোববার, ১৭ নভেম্বর, ২০১৯, ১:৪৩ পিএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 212

লাগামহীন পেঁয়াজ, সবজিতেও লেগেছে তার ঝাঁজ

লাগামহীন পেঁয়াজ, সবজিতেও লেগেছে তার ঝাঁজ

রাঁধুনীর রসনা বিলাসে পেঁয়াজের বিকল্প কিছু নেই। এদেশেরে প্রায় বেশিরভাগ রান্নায় প্রথমে কড়াইয়ে তেল দেওয়ার পরপরই প্রধানত যে উপাদানটি ব্যবহৃত হয় সেটি হলো পেঁয়াজ। হঠাৎ লাগামহীন পাগলা ঘোড়ার মতো ছুটে চলেছে পেঁয়াজের দাম। অন্যদিকে লাগামহীন পেঁয়াজের দামের সাথে পাল্লা দিয়ে সবজিতেও লেগেছে তার ঝাঁজ।

ধামইরহাটে কাঁচা তরকারী বাজারে গিয়ে দেখা গেছে, দিন আনে দিন খাওয়া কিছু মানুষ আকার ভেদে একটি পেঁয়াজ ৫ থেকে ১২ টাকায় বাজার মুল্যে কিন্তে বাধ্য হচ্ছে। বাজার মনিটরিং ব্যাবস্থা না থাকায় কিছু অসাধু ব্যাবস্যায়ী সিন্ডিকেটের মাধ্যমে এলাকায় ভোক্তা সাধারণকে জিম্মিকরে ২৫ থেকে ৩০ টাকার পেঁয়াজের দাম বাড়তে বাড়তে ২৪৫ থেকে ২৮০ টাকায় বিক্রি হতে দেখা যায়। শুধু তাই নয় পেঁয়াজের সাথে পাল্লা দিয়ে বেড়ে চলেছে নিত্য প্রয়োজনীয় কাঁচা শাকসবজির দাম।

পত্রিকা বিক্রেতা জুলফিকার আলী ক্ষোভের সঙ্গে সময়ের আলোকে বলেন, এভাবে প্রতিদিন নিত্যপণ্যের দাম বেড়ে গেলে আমরা কিভাবে আমাদের সংসার চালাবো।

সবজি ব্যবসায়ী মোসলেমুদ্দিন, মতিবুল ও বজলুর রশিদ সময়ের আলোকে বলেন, বর্তমানে আমদানি কম থাকায় পেঁয়াজের সাথে সাথে সবজিতেও লেগেছে তার ঝাঁজ। গত সপ্তাহে বেগুন প্রতি কেজিতে ৩০ থেকে বেড়ে ৪০ টাকা, কাঁচা মরিচ ৩০ থেকে ৬০, আলু ৩৫ থেকে ৪০, রসুন ১৪০ থেকে ১৮০, মুলা ২৫ থেকে ৪০, শুকনা ঝাল ১৬০ থেকে বেড়ে ২৫০ এবং মিষ্টি কদু ২৫ থেকে বেড়ে বর্তমান ৪০ টাকায় এসে দারিয়েছে। আদার দাম না বেড়ে ১৮০ তেই আছে তবে এ ক্ষেত্রে সিমের দাম ৭০ থেকে কমে ৬০ টাকা হয়েছে।

পাইকারি পেঁয়াজ ব্যবসায়ী মাহানুর বলেন, পাবনা হাজির হাট পাইকারি বাজার থেকে বর্তমানে প্রতি কেজিতে আমাদের পেঁয়াজ কেনা ২১০ টাকা বিক্রি ২১৬ থেকে ২০ টাকা। বাজারে পেঁয়াজের সংকট থাকায় দাম বেশি।




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]