ই-পেপার রোববার ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯ ১ পৌষ ১৪২৬
ই-পেপার রোববার ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯

কনের বাড়িতে পৌঁছার আগেই সব শেষ
মুন্সীগঞ্জে বাস-মাইক্রো সংঘর্ষে এক পরিবারের আটজনসহ নিহত ১০
মুন্সীগঞ্জ ও লৌহজং প্রতিনিধি
প্রকাশ: শনিবার, ২৩ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:০০ এএম আপডেট: ২৩.১১.২০১৯ ১:১৫ এএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 54

মুন্সীগঞ্জে বাস-মাইক্রো সংঘর্ষে এক পরিবারের আটজনসহ নিহত ১০

মুন্সীগঞ্জে বাস-মাইক্রো সংঘর্ষে এক পরিবারের আটজনসহ নিহত ১০

কনের বাড়িতে যাওয়া হলো না তাদের। তার আগেই সব শেষ। শুক্রবার ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কে বাস ও বরযাত্রী বহনকারী মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে একই পরিবারের আটজনসহ ১০ জন নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছে আরও ১২ জন। দুপুর পৌনে ২টার দিকে মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর উপজেলার ষোলোঘর এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, ঢাকা থেকে মাওয়ামুখী স্বাধীন পরিবহনের একটি বাসের সঙ্গে বিপরীতমুখী মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। নিহত ১০ জনই মাইক্রোবাসের যাত্রী। মাইক্রোবাস যাত্রীদের সবাই পাশের উপজেলা লৌহজংয়ের কনকসার গ্রাম থেকে ঢাকা কামরাঙ্গীরচর এলাকায় বিয়ের বরযাত্রী হিসেবে যাচ্ছিল।

শ্রীনগর ফায়ার সার্ভিস স্টেশন সূত্রে জানা গেছে, ঘটনার পরপরই স্থানীয় লোকজন, পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসকর্মীরা মাইক্রোবাসের ভেতরে আটকে পড়া নিহত ও আহতদের উদ্ধার করে। নিহতরা হচ্ছেনÑ বর রুবেলের বাবা আব্দুর রশিদ বেপারি (৬০), বোন লিজা (১৫), চাচা আব্দুল মফিজ (৫৮), ভাবি রুনা (২৫), ভাতিজা তাহসান (৩), ভাগ্নি তাবাসুস অবনী (৫), মামাতো বোন রেনু (১০), ফুফাতো ভাই জাহাঙ্গীর (৪৫), প্রতিবেশী কেরামত বেপারি (৬০) ও মাইক্রোচালক বিল্লাল (৪০)। তাদের বাড়ি জেলার লৌহজং উপজেলার কনকসার ইউনিয়নের কনকসার বটতলা গ্রামে। আহতদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় আহত ১০ জনকে শ্রীনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। বিকাল ৪টার দিকে ঘটনাস্থল পরিদর্শনে আসেন মুন্সীগঞ্জের জেলা প্রশাসক মো. মনিরুজ্জামান তালুকদার। তিনি জানান, কেউ বাদী হয়ে মামলা না করলেও পুলিশ বাদী হয়ে মামলা করবে।

বরের চাচাতো ভাই আবু সাঈদ জানান, কনকসার বটতলা গ্রামের আব্দুর রশিদ বেপারির ছেলে রুবেল ইসলাম বেপারির (২৮) সঙ্গে ঢাকার কামরাঙ্গীচরের মিশা আক্তারের কাবিন হওয়ার কথা ছিল। এ উপলক্ষে নিজ বাড়ি থেকে পৃথক দুটি মাইক্রোযোগে বরযাত্রীরা কামরাঙ্গীরচরের কনের বাড়ির উদ্দেশে রওনা হয়। এর মধ্যে বরযাত্রীবাহী একটি মাইক্রো দুর্ঘটনাকবলিত হয়ে হতাহতের ঘটনা ঘটে। তবে বর রুবেল ইসলাম বেপারি অন্য মাইক্রোতে ছিলেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, ঢাকা থেকে মাওয়াগামী স্বাধীন পরিবহনের একটি বাসের সঙ্গে মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে এই হতাহতের ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থলেই ছয়জন মারা যায়। ঘটনার পরপরই স্থানীয় লোকজন, পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসকর্মীরা মাইক্রোর ভেতরে আটকে পড়া নিহত ও আহতদের উদ্ধার করে।

হাষাড়া হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ওসি আব্দুল বাসেদ জানান, দুপুর পৌনে ২টার দিকে ষোলোঘর বাসস্ট্যান্ডে ঢাকামুখী বরযাত্রীবাহী মাইক্রো ও মাওয়াগামী স্বাধীন পরিবহনের যাত্রীবোঝাই বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে মাইক্রোবাস পুরোপুরি ও বাসের সামনের অংশ দুমড়ে-মুচড়ে যায়। তাৎক্ষণিক হাইওয়ে পুলিশ ও শ্রীনগর ফায়ার সার্ভিস ঘটনাস্থলে পৌঁছে উদ্ধার তৎপরতা শুরু করে। ঘটনাস্থলেই ছয়জন মারা যায়। আহতদের মধ্যে শ্রীনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে দুজন ও ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আরও দুজন মারা যায়।

শ্রীনগর থানার ওসি মো. হেদায়তুল ইসলাম ভূঞা জানান, বেপরোয়া গতির স্বাধীন পরিবহনের বাসটি ওভারট্রেকিং করলে মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। বাসের ড্রাইভার ও হেলপার পলাতক। বাসটি আটক করা হয়েছে।

শ্রীনগর নির্বাহী অফিসার রহিমা আক্তার জানান, ঘটনার পরপরই স্থানীয় লোকজন, পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসকর্মীরা মাইক্রোবাসের ভেতরে আটকে পড়া নিহত ও আহতদের উদ্ধার করে।

এদিকে সন্ধ্যায় অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আসমা শাহীনকে প্রধান করে পাঁচ সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে।




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]