ই-পেপার রোববার ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯ ১ পৌষ ১৪২৬
ই-পেপার রোববার ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯

স্বাস্থ্য পরামর্শ
কিডনি রোগীদের প্রয়োজনীয় খাবার
ডা. আলমগীর মতি
প্রকাশ: শনিবার, ২৩ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:০০ এএম আপডেট: ২৩.১১.২০১৯ ১:৩২ এএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 43

কিডনি রোগীদের প্রয়োজনীয় খাবার

কিডনি রোগীদের প্রয়োজনীয় খাবার

অনিয়ন্ত্রিত ডায়াবেটিস ও উচ্চ রক্তচাপ অস্বাস্থ্যকর ও অনিয়ন্ত্রিত খাবার দাবার, ব্যথানাশক ওষুধ সেবন ইত্যাদি থেকে কিডনি রোগ হয়ে থাকে। দীর্ঘমেয়াদি কিডনি রোগের চিকিৎসায় পণ্য নির্ধারণ করতে হয়। এই পথ্য ইউরিয়া ও ক্রিয়েটিনিনের পরিমাণ স্বাভাবিক থাকে। ফলে ইলেট্রোলাইটস বা লবণের সম্যতা এবং ইউরিক অ্যাসিডের পরিমাণ স্বাভাবিক থাকে।
কিডনি রোগীদের ক্যালরির পরিমাণ অন্য রোগীদের চেয়ে একটু বাড়াতে হয়। প্রতি কেজি ওজনের জন্য ৩৫ ক্যালরি শক্তি দরকার। এর ফলে রোগী শক্তি পায় ও কর্মকম থাকে কার্বোহাইড্রেট এই রোগীদের কার্বোহাইড্রেট গ্রহণের মাত্রা একটু বেশি হতে হয়। তবে ডায়াবেটিসের সঙ্গে কিডনি রোগ থাকলে তার পরিমাণ সতর্কতার সঙ্গে নির্ধারণ করতে হয়। ভাত, আলু, রুটি, চিঁড়া, চালের গুঁড়া আলু কিডনি রোগীদের জন্য উত্তম।
প্রোটিন নিয়ন্ত্রণ অত্যন্ত জরুরি। প্রতি কেজি ওজনের জন্য ০.৫-০.৮ গ্রাম প্রোটিন প্রয়োজন। এ হিসাব নির্ভর করে রোগীর শারীরিক অবস্থা ও বিভিন্ন পরীক্ষার রিপোর্টের ওপর। ডাল, বাদাম, ডালের ও শিমের বিচি বর্জন করতে হয়। মাছ, মুরগির মাংস, দুধ, দই, ডিমের সাদা অংশে প্রোটিন পাওয়া যায়। গরু, খাসির মাংস, কলিজা, মগজ অবশ্যই এগিয়ে চলবেন।
চর্বি বেশিরভাগ কিডনি রোগীই উচ্চ রক্তচাপের সমস্যায় ভুগেন। কিডনি রোগীদের যাতে কোলেস্টেরল বেড়ে না যায়, উচ্চ রক্তচাপ ও ওজন নিয়ন্ত্রণে তাকে সেজন্য চর্বির পরিমাণ খাবার হতে হয়। স্যানচুরেটেড ফ্যাট অর্থাৎ যে তেল জমে যায়, ভাজা পোড়া, ফাস্টফুড, ডিমের কুসুম এড়িয়ে চলতে হয়। সূর্যমুখী ও বসনোলা তেল প্রতিদিন ৪ চা চামচ খেতে হয়।

লেখক : হারবাল গবেষক ও চিকিৎসক, মর্ডান হারবাল গ্রুপ। মোবাইলÑ ০১৯১১৩৮৬৬১৭




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]