ই-পেপার রোববার ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯ ১ পৌষ ১৪২৬
ই-পেপার রোববার ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯

মিয়ানমারের বৌদ্ধ মন্দিরগুলো এখন জিহাদি মন্দির : শাহরিয়ার কবির
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশ: শনিবার, ২৩ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:০০ এএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 19

সাংবাদিক ও মানবাধিকারকর্মী শাহরিয়ার কবির বলেছেন, মিয়ানমারের বৌদ্ধদের কাছে তাদের ধর্ম অত্যন্ত মানবতার। কিন্তু অধিকাংশ বৌদ্ধ মন্দির এখন জিহাদি মন্দিরে পরিণত হয়েছে। এ জন্যই রোহিঙ্গাদের সমস্যা প্রকট আকার ধারণ করেছে এবং তা সমাধান না করলে বাংলাদেশেও এর গুরুতর প্রভাব পড়বে। শুক্রবার দুপুরে রাজধানীর বাংলা একাডেমিতে ‘১৯৭১-এর গণহত্যা, বাংলাদেশের সুবর্ণজয়ন্তী ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী’ শীর্ষক আন্তর্জাতিক সম্মেলনের এক অধিবেশনে তিনি এ মন্তব্য করেন। শাহরিয়ার কবির বলেন, মুক্তিযুদ্ধের সময় পাকিস্তান গণহত্যা চালাতে গিয়ে ইসলামকে যেভাবে ব্যবহার করেছে, ঠিক তেমনি বৌদ্ধ ধর্মকে ব্যবহার করেছে মিয়ানমার। তাদের কাছে ধর্ম এখন দাঙ্গা-হাঙ্গামা, মৌলবাদের মতো বিষয়। তিনি বলেন, মুক্তিযুদ্ধের সময় বাংলাদেশের অসংখ্য মানুষ ভারতে রিফিউজি হিসেবে আশ্রয় নিলেও যুদ্ধ শেষে তারা পুনরায় দেশে ফিরে গেছে এবং সরকার তাদের জন্য যথাযথ পদক্ষেপ নিয়েছে। কিন্তু মিয়ানমারের রোহিঙ্গারা এখন আমাদের জন্য একটি বোঝার মতো হয়ে উঠেছে। তাদের জন্য আমাদের একার পক্ষে জায়গা দেওয়া সম্ভব না। এটি অনেকটা ‘থার্ড কান্ট্রি পজিশন’-এর মতো হয়ে উঠেছে। অধিবেশনে আরও বক্তব্য রাখেন ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের সাবেক অধ্যাপক ড. সৈয়দ আনোয়ার হোসেন, ভারতের বিশিষ্ট সাংবাদিক ও লেখক হিরণ¥য় কার্লেকার, জওহরলাল নেহরু বিশ^বিদ্যালযের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক ও রাজনীতি বিষয়ের অধ্যাপক ড. জয়তি শ্রীবাস্তব, তুরস্কের লেখক ও চিত্রনির্মাতা ফেরহাত আতিক এবং মিয়ানমারের চিকিৎসক ও গবেষক ড. খিন জ উইন।
বাংলা একাডেমিতে দুই দিনব্যাপী এই আন্তর্জাতিক সম্মেলনে সাত দেশের প্রতিনিধিরা আলোচনা ও প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন। ভারত, ইতালি, তুরস্ক, কম্বোডিয়া, বাংলাদেশ, মিয়ানমার, যুক্তরাজ্য থেকে ৫০ জন বিশেষজ্ঞ গবেষক এতে যোগ দিয়েছেন।




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]