ই-পেপার রোববার ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯ ১ পৌষ ১৪২৬
ই-পেপার রোববার ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯

নাটোর বিসিক : শিল্প-কারখানা স্থাপনে উদ্যোক্তা আছে জায়গা নেই
নাটোর প্রতিনিধি
প্রকাশ: শনিবার, ২৩ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:০০ এএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 21

নাটোরের বিসিকে (বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প করপোরেশন) আরও কিছু শিল্প-কারখানা স্থাপনে উদ্যোক্তাদের আগ্রহ বাড়ছে। কিন্তু দরকারি জায়গা নেই। ফলে পুরনো কারখানার কলেবর বৃদ্ধি পাচ্ছে না, গড়ে উঠছে না নতুন করে শিল্প-কারখানা। এতে এই এলাকায় বাড়ছে না নতুন কর্মসংস্থানের সুযোগ।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০১১ সালের ১১ ডিসেম্বর নাটোরের এক জনসভায় ঘোষণা দিয়েছিলেন নাটোরে একটি বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপন ও দ্রুত গ্যাস সরবরাহ করা হবে। ঘোষণা অনুযায়ী ৫০ মেগাওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন রাজলংকা বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ শেষে উৎপাদন শুরু করেছে। কিন্তু নাটোর জেলার মাঝ দিয়ে গ্যাসের পাইপ লাইন চলে গিয়ে রাজশাহীতে গ্যাস সরবরাহ অব্যাহত থাকলেও এ জেলায় গ্যাস সংযোগ দেওয়া হয়নি। প্রধানমন্ত্রীর ওই ঘোষণার পর থেকেই নাটোরে উদ্যোক্তাদের শিল্প-কারখানা গড়ে তোলার আগ্রহ আরও বেড়ে যায়। কয়েকজন উদ্যোক্তা নাটোর বিসিকে শিল্প-কারখানা স্থাপনের জন্য আবেদনও করছেন। কিন্তু প্লট বরাদ্দে কোনো সাড়া পাচ্ছেন না কর্তৃপক্ষের।
সংশ্লিষ্টরা জানান, উদ্যোক্তাদের আগ্রহ থাকলেও নতুন জায়গা অধিগ্রহণ করে বিসিকের আয়তন বৃদ্ধি না করলে আর কোনো প্লট বরাদ্দ দেওয়া সম্ভব নয়। এতে নিরাশ হয়ে খালি হাতে ফিরতে হচ্ছে উদ্যোক্তাদের।
১৯৮৭ সালে মাত্র ১৫ একর জমি নিয়ে নাটোরের বড়হরিশপুর ইউনিয়নের দত্তপাড়া এলাকায় গড়ে ওঠে বিসিক শিল্পনগরী। ২০০০ সালের মধ্যেই ১০৪টি প্লট ৪৭টি কারখানা গড়ে ওঠে। এখানে উল্লে­খযোগ্য হারে উৎপাদনে থাকা পাটকল, প্ল­াস্টিক ও অ্যালুমিনিয়াম কারখানার মালিকরাও তাদের কারখানার উৎপাদন বৃদ্ধি করতে পারছেন না জায়গার অভাবে।
উদ্যোক্তারা জানান, নিরিবিলি পরিবেশ, উন্নত যোগাযোগ ব্যবস্থা এবং স্বল্প মূল্যে শ্রমিক প্রাপ্যতার কারণে নাটোর বিসিকে শিল্প প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলার আগ্রহ সৃষ্টি হলেও প্লটের অভাবে তা সম্ভব হচ্ছে না।
বিসিক শিল্পনগরীর ব্যবসায়ী মতিয়ার রহমান, আলমগীর হোসেন ও প্রদীপ আগারওয়ালা জানান, নাটোর বিসিক শিল্প নগরীর এলাকা বৃদ্ধি করা দরকার। অনেকে প্লটের জন্য আবেদন করেছেন। কিন্তু জায়গার অভাবে বরাদ্দ পাচ্ছেন না। স্থান সংকুলানসহ গ্যাস সংযোগ অথবা নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহের ব্যবস্থা করতে পারলে নাটোরের বিসিক শিল্পনগরী এলাকায় আরও অধিক নারী-পুরুষের কর্মসংস্থান হবে বলে মনে করেন তারা।
নাটোর বিসিকের উপব্যবস্থাপক দিলরুবা দীপ্তি সমস্যার কথা স্বীকার করে জানান, শিল্প-কারখারখানা নির্মাণের জন্য উদ্যোক্তদের কাছ থেকে ৩৫টি আবেদনপত্র জমা পাওয়া গেছে। শুধু বরাদ্দের অভাবে সমস্যাগুলো সমাধান করা সম্ভব হচ্ছে না।
তিনি আরও জানান, বিসিকের সীমানা বাড়ানোর জন্য ২০০৮ সালের ৬ জানুয়ারি সংশ্লি­ষ্ট মন্ত্রণালয়ের কাছে আবেদনের প্রেক্ষিতে সীমানা বৃদ্ধির জন্য ২০০৮ সালের ২১ সেপ্টেম্বর পরিকল্পনা কমিশনের একটি দল বিসিক পরিদর্শন করলেও এখনও কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি।




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]