ই-পেপার রোববার ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯ ১ পৌষ ১৪২৬
ই-পেপার রোববার ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯

নেপালে সহজ জয়ে ফাইনালে সালমারা
ক্রীড়া প্রতিবেদক
প্রকাশ: বৃহস্পতিবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১২:০০ এএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 24

বড্ড একপেশে লড়াই হলো, এমন লড়াইও ছিল প্রত্যাশিত। একদিকে এশিয়ার চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ, অন্যদিকে অনভিজ্ঞ নেপাল, দুই দলের লড়াইয়ে বাংলাদেশের মেয়েদের ১০ উইকেটের জয়টাকে তাই খুব স্বাভাবিকই ঠেকছে। সেই জয়ে লিগপর্বের এক ম্যাচ হাতে রেখেই এসএ গেমসে সোনা জয়ের মিশনে সালমা খাতুনের দলের ফাইনালে উঠে যাওয়া, সেটাও অস্বাভাবিক কিছু নয়। সোনার পদক এখন সালমা-জাহানারাদের হাতের নাগালেই।
এবারই প্রথম এসএ গেমসে ইভেন্ট তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হয়েছে মেয়েদের ক্রিকেট। তাতেই আলো ছড়াচ্ছে বাংলাদেশ। টানা দুই জয়ে টাইগ্রেসদের পয়েন্ট হলো ৪, টেবিলের শীর্ষে অবস্থান তাদের। দুই ম্যাচে সমান একটি করে জয় শ্রীলঙ্কা আর নেপালের। লিগ পর্বে নিজেদের শেষ ম্যাচে মুখোমুখি হবে দুই দল। তাদের মধ্যে জয়ী দল খেলবে ফাইনাল। দুই ম্যাচ হেরে ইতোমধ্যেই বিদায় নিশ্চিত করেছে মালদ্বীপ। এই মালদ্বীপের বিপক্ষেই বৃহস্পতিবার মাঠে নামবে বাংলাদেশ। এই ম্যাচ হারলেও সালমাদের কোনো সমস্যা নেই। ম্যাচটি তাদের জন্য কেবলই আনুষ্ঠানিকতার। সেই ম্যাচে আরেকটি অনায়াস জয়ই প্রত্যাশা টাইগ্রেসদের।
ঘরের মাঠে নেপাল দেখেছে ক্রিকেটে বাংলাদেশের মেয়েদের দাপট। সেই দাপটে খড়কুটোর মতো ভেসে গেছে রুবিনা ছেত্রি বেলবাশির দল। আগের ম্যাচে যে বাংলাদেশ শক্তিধর শ্রীলঙ্কাকে পাত্তা দেয়নি, সেই দলটির সামনে এই নেপাল দাঁড়াতে পারবে না, সেটা জানাই ছিল। পোখারায় টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে বিপর্যয়ে পড়ে নেপাল। সনু খাদকা, বিলবাশি, ইন্দু বর্মারা কিছুটা প্রতিরোধ গড়েছিলেন। কিন্তু ৯ রানের ব্যবধানে শেষ ৭ উইকেট হারিয়ে ৫০ রানেই গুটিয়ে যায় স্বাগতিকরা। কোনো উইকেট না হারিয়ে ৭.৪ ওভারেই ওই রান টপকে যায় টাইগ্রেসরা।
দুই ওপেনার মুর্শিদা খাতুন আর আয়েশা রহমান নেপালি বোলারদের মোকাবেলা করেছেন সাবলীলভাবে। মুর্শিদা খানিকটা ধীরস্থির ছিলেন, আয়েশা ছিলেন তুলনামূলক আগ্রাসী। ২২ বলে করেছেন ২৬ রান, ৩টি চারের সঙ্গে হাঁকিয়েছেন একটি ছক্কা। মুর্শিদা ২৩ রান করেছেন ২৪ বল খেলে। কোনো ছক্কা না হাঁকালেও এই ওপেনারের ব্যাট থেকে এসেছে চারটি চারের মার। ম্যাচসেরা অবশ্য তারা কেউ নন। খেতাবটা উঠেছে রাবেয়া খাতুনের হাতে। ৮ রানে ৪ উইকেট নিয়ে তিনিই তো নেপালের ব্যাটিং লাইনআপকে ধ্বংসস্তূপে পরিণত করেন। ৩ ওভারে ২ রান দিয়ে দুটো উইকেট নেন জাহানারা আলম।
এই জাহানারার হাতেই নেপালের দুর্ভোগের শুরু। ডানহাতি এই পেসার শুরুই আঘাত হানেন। কাজল শ্রেষ্ঠ আর সীতা রানা মাগারকে বোল্ড করেন তিনি। এরপর অধিনায়ক বেলবাশি (১৩), সনু খাড়কা (১২) আর ইন্দু বর্মা (১০) কোনো রকমে দুই অঙ্কের স্কোর করে দলকে লজ্জার হাত থেকে বাঁচানোর চেষ্টা করেন। এক পর্যায়ে স্বাগতিকদের রান ছিল ৩ উইকেটে ৪১। এরপরই শুরু হয় রাবেয়ার ঝলক। টপাটপ উইকেট তুলে নেন জাতীয় দলের জার্সিতে প্রথম ম্যাচ খেলতে নামা এই বোলার। তাতে ৫০ রান পর্যন্ত যেতেই অলআউট হয়ে যায় নেপাল।
মেয়েদের ক্রিকেটে দিনের আরেক ম্যাচে মালদ্বীপকে ২৪৯ রানে হারিয়েছে শ্রীলঙ্কা। ২০ ওভারে লঙ্কানদের ২৭৯ রানের জবাবে মালদ্বীপ গুটিয়ে যায় ৩০ রানে।







সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]