ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা শুক্রবার ৩ জুলাই ২০২০ ১৯ আষাঢ় ১৪২৭
ই-পেপার শুক্রবার ৩ জুলাই ২০২০

অন্যরা হাজার যাত্রী পেলেও বিমানের ভাগ্যে মাত্র ২৪
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশ: শনিবার, ৬ জুন, ২০২০, ১২:০০ এএম আপডেট: ০৬.০৬.২০২০ ২:৪৯ এএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 57

করোনার কারণে দু’মাসের বেশি সময় ধরে বন্ধ বিভিন্ন এয়ারলাইন্স। দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর গত তিন আগে বিমান চলাচল শুরু হয়েছে। এরপর দেশের বেসরকারি এয়ারলাইন্সগুলো দেশের অভ্যন্তরীণ রুটে যাত্রী পেলেও বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ভাগ্যে তেমন কোনো যাত্রী জোটেনি। গত ১ জুন থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিত পরিসরে ফ্লাইট চালু হলেও গতকাল পর্যন্ত মাত্র ২৪ জন যাত্রী বিমানে যাতায়াত
করেছেন বলে জানা গেছে। তবে ঠিকই আশানুরূপ যাত্রী পেয়েছে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স ও নভোএয়ার।
বাংলাদেশ বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক) সূত্রে জানা গেছে, বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ রুটে ফ্লাইট চালুর পর থেকে আশানুরূপ যাত্রী পেয়েছে বেসরকারি এয়ারলাইন্সগুলো। কিন্তু অবাক করার বিষয় হলো, মাত্র ২৪ জন যাত্রী বিমানে চড়েছেন। আর কেউ টিকেট বুকিং কিংবা কেনেননিও। গত কয়েকদিনে তিনটি আকাশপথে যাতায়াত করেছেন ৩ হাজার ৪৫ জন যাত্রী। এর মধ্যে ফ্লাইট চালুর প্রথম দিন ১ জুন ঢাকা থেকে সিলেট, চট্টগ্রাম ও সৈয়দপুর আসা-যাওয়া করেছেন মোট ১ হাজার ৬৪ জন। ২ জুন ৯০১ জন, ৩ জুন সর্বোচ্চ ১ হাজার ৮০ জন। বেবিচকের তথ্য মতে, তিন দিনে আসা-যাওয়া করা ৩ হাজার ৪৫ জন যাত্রীর মধ্যে মাত্র ২৪ জন বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সে যাতায়াত করেছেন। বাকি ৩ হাজার ২১ জন ইউএস-বাংলা ও নভোএয়ারে। বিমান ফ্লাইট পরিচালনা করেছে শুধু ফ্লাইট চালুর প্রথম দিন ১ জুন। পরে যাত্রী সঙ্কটের কারণ উল্লেখ করে দ্বিতীয় দিন ২ জুন থেকে ৬ জুন পর্যন্ত সব ফ্লাইট বাতিলের ঘোষণা দেয় তারা। প্রথম চালু থাকলেও পরদিন থেকে আজ পর্যন্ত বন্ধ রয়েছে বিমানের ফ্লাইট। এদিকে টিকেট বিক্রির দিক থেকে অন্য দুই এয়ারলাইন্সের ধারেকাছেও নেই বিমান বাংলাদেশ। আগের তুলনায় ফ্লাইটসংখ্যা কমানো এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে প্লেনের ভেতর এক সিটে যাত্রী ও এক সিট ফাঁকা রেখে চলাচল করায় যাত্রী চলাচলের ক্যাপাসিটি কমেছে। তাই এই সংখ্যা আপাতত অন্যদের এত যাত্রী পাওয়াটা সন্তোষজনক মনে করছে বেবিচক। বেবিচক চেয়ারম্যান এয়ারভাইস মার্শাল মো. মফিদুর রহমান জানান, বিমান সংস্থাগুলো স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে ফ্লাইট চালাচ্ছে। ফ্লাইটগুলো যাত্রীদের জন্য নিরাপদ ও ঝুঁকিমুক্ত। এজন্যই প্রথম দুদিনের তুলনায় তৃতীয়দিন যাত্রীও বেড়েছে।






সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]