ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা  বুধবার ৫ আগস্ট ২০২০ ২১ শ্রাবণ ১৪২৭
ই-পেপার  বুধবার ৫ আগস্ট ২০২০

চট্টগ্রামে ফি আরোপের পর কমেছে টেস্ট
ম্যাক্স হাসপাতালে ভুতুড়ে বিলে লাশ ছাড়ে বিড়ম্বনা
জসীম চৌধুরী সবুজ চট্টগ্রাম
প্রকাশ: রোববার, ৫ জুলাই, ২০২০, ১২:০০ এএম আপডেট: ০৫.০৭.২০২০ ২:০৪ এএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 22

চট্টগ্রামে করোনা টেস্টে ২০০ টাকা ফি আরোপের পর নমুনা দেওয়ার জন্য ভিড় কমেছে। স্বাস্থ্য বিভাগ এতে সন্তুষ্ট হয়ে বলছে এবার নমুনার জট কমবে। অন্যদিকে সাধারণ মানুষ এই ফি আরোপের বিষয়টি ভালো চোখে দেখছে না। ক্যাব ফি আরোপের প্রতিবাদ জানিয়ে বলেছে, সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী করোনা আক্রান্ত হলে যেখানে ৮-১০ লাখ টাকার সরকারি অনুদান পাবে সেখানে সাধারণ মানুষের ন্যূনতম টেস্ট সুবিধা না পাওয়াটা সংবিধান পরিপন্থি। চট্টগ্রামে করোনার টেস্ট ও চিকিৎসায় হয়রানি ও দুর্ভোগ কোনটাই কমছে না। পাঁচটি কেন্দ্রে নমুনা টেস্টে যে জট লেগছিল তা কমতে শুরু করেছে ফি আরোপের  পর থেকে। শনিবার এখানে আরও ২৬৩ জন আক্রান্ত হয়েছে সরকারি রিপোর্টে। এ নিয়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ৯ হাজার ৬৬৮ জনে। টেস্টের বিড়ম্বনা এড়াতে করোনার উপসর্গ নিয়ে যারা টেস্ট ছাড়াই বাসায় চিকিৎসা নিচ্ছেন তারা হিসেবের বাইরে থেকে যাচ্ছেন।
এই দুর্যোগকালে নগরীর প্রাইভেট হাসপাতালগুলোর আচরণ শুরু থেকেই ছিল প্রশ্নবিদ্ধ। হাইকোর্টের নির্দেশের পর তারা রোগী ভর্তি করলেও তাদের মুনাফালোভী আগ্রাসী মনোভাবে রোগী এবং স্বজনদের নাভিশ্বাস হওয়ার উপক্রম হয়েছে। শনিবার নগরীর বহুল আলোচিত ম্যাক্স হাসপাতালে ৭৫ বছর বয়সি চিকিৎসাধীন এক করোনা রোগী মারা গেলে ভুতুড়ে বিল দিয়ে আটকে রাখা হয় লাশ। এ ঘটনায় নগর জুড়ে ক্ষোভ সৃষ্টি হয়েছে। সাইফুদ্দৌলা খান নামে নগরীর কদমতলী এলাকার এ বাসিন্দা শ্বাসকষ্ট নিয়ে গত ২৯ জুন ম্যাক্স হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন। তার করোনা পজিটিভ ছিল। চিকিৎসাকালে তাকে হাই ফ্লো নাসাল কনোলার মাধ্যমে অক্সিজেন দেওয়া হবে বলে জানালেও তা দেওয়া হয়নি। শনিবার সকালে তিনি মারা যান। স্বজনরা লাশ আনতে গেলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তাদের হাতে ১ লাখ ৯৩ হাজার ৯৪ টাকার একটি বিল ধরিয়ে দেন। এতে হাই ফ্লো কনোলার বিল ২৬ হাজার টাকা এবং অক্সিজেন বিল ৪২ হাজার টাকা ধরা হয়। স্বজনরা বিল নিয়ে আপত্তি জানালে শুরু হয় বাকবিতÐা। কনোলা এবং অক্সিজেন না দিয়েও বিল করার কথা জানালে বিলটি আবার সংশোধন করে কনোলার ২৬ হাজার বাদ দেওয়া হয়। অক্সিজেন বিল কমিয়ে ৩৩ হাজার টাকা করা হয়।
বিল পরিশোধ না করা পর্যন্ত আটকে রাখা হয় লাশ। এই রোগী ভর্তি হয়েছিলেন হাসপাতালের ভূমি মালিকের রেফারেন্সে। স্বজনরা এবার বিষয়টি তাকে অবহিত করেন। তিনি হস্তক্ষেপ করা পর অক্সিজেনের ভুতুড়ে বিলটিও বাদ দিয়ে ১ লাখ ১০ হাজার টাকার সংশোধিত বিল দেওয়া হয়। এ বিল পরিশোধ করে লাশ ছাড় করাতে বয়ে যায় চার ঘণ্টা সময়। সকাল ৯টায় মারা যাওয়া রোগীর লাশ এভাবে আটকে রেখে বেলা ১টার সময় ছাড়া হয়। রোগীর স্বজনরা সংবাদমাধ্যমে তুলে ধরেন ম্যাক্স হাসপাতালের এ অমানবিক আচরণের কথা।
ক্যাব নেতারা শনিবার এক বিবৃতিতে চট্টগ্রামে করোনা টেস্ট ও চিকিৎসায় দুর্ভোগের কথা উল্লেখ করে বলেছেন, এ কঠিন সময়ে যেখানে মানুষ একদিকে কর্মহীন। আয় রোজগার হারিয়ে জীবন জীবিকা নির্বাহে হিমশিম খাচ্ছে। সেখানে করোনার টেস্ট ফি ২০০ টাকা ধার্য করা ‘মরার উপর খারার ঘা’। এতে করোনা পীড়িত মানুষের দুর্ভোগ আরও বাড়িয়েছে। ক্যাব কেন্দ্রীয় সহসভাপতি এসএম নাজের হোসাইন, চট্টগ্রাম বিভাগীয় সাধারণ সম্পাদক ইকবাল বাহার ছাবেরী, নগর সভাপতি জেসমিন সুলতানা পারু বিবৃতিতে টেস্ট ফি প্রত্যাহারের দাবি জানিয়ে বলেন, এটি সংবিধানের সঙ্গে সাংঘর্ষিক। সংবিধানের ১৭নং অনুচ্ছেদে রাষ্ট্রের নাগরিকের চিকিৎসা ও মহামারিকালে সব সুবিধা রাষ্ট্র নিশ্চিত করার কথা বলা হয়েছে।
করোনা টেস্টে ফি আদায় করা হচ্ছে ১ জুলাই থেকে। তারপর থেকে বিভিন্ন কেন্দ্রে নমুনা দেওয়ার জন্য ভিড় কমে গেছে। কিন্তু নমুনা জট খুলতে আরও কয়েকদিন লেগে যাবে। শনিবার যে রিপোর্ট প্রকাশ করা হয়েছে তা ২২-২৩ জুনে সংগৃহীত।
জেলা সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বী জানান, আগে মানুষ বিনা প্রয়োজনে টেস্ট করিয়েছেন। যে কারণে নমুনার জট লেগে গিয়েছিল। এখন নমুনা দিতে সেই ভিড় আর নেই। তাই জটও কমে আসছে। কদিন পর আর জট থাকবে না।






সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]