ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা মঙ্গলবার ১১ আগস্ট ২০২০ ২৭ শ্রাবণ ১৪২৭
ই-পেপার মঙ্গলবার ১১ আগস্ট ২০২০

ক্রেস্ট সিকিউরিটিজের পরিচালকদের ব্যাংক হিসাব অবরুদ্ধ করার নির্দেশ
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশ: বৃহস্পতিবার, ৯ জুলাই, ২০২০, ৪:৫৯ পিএম আপডেট: ০৯.০৭.২০২০ ৫:০৬ পিএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 17

ক্রেস্ট সিকিউরিটিজের পরিচালক ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মো. শহীদ উল্লাহসহ প্রতিষ্ঠানটির অন্যান্য পরিচালকদের ব্যাংক হিসাব অবরুদ্ধ করার নির্দেশ দিয়েছে বাংলাদেশ ফাইন্যান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিট (বিএফআইইউ)। বুধবার বিএফআইইউ থেকে পাঠানো এক চিঠিতে ব্যাংকগুলোকে এ নির্দেশ দেয়া হয়।

তদন্তের স্বার্থে আগামী ৩০ দিন এসব হিসাবের সব ধরনের লেনদেন অবরুদ্ধ থাকবে।

জানা গেছে, বিনিয়োগকারীদের ১৮ কোটি টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ রয়েছে প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে। ইতিমধ্যে লক্ষীপুর ও নোয়াখালী সীমান্ত থেকে শহীদ উল্লাহ এবং তার স্ত্রীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বিএফআইইউর নির্দেশনায় বলা হয়, ক্রেস্ট সিকিউরিটিজ লিমিটেডের পরিচালক এবং ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. শহীদ উল্লাহর নিজ নামে অথবা স্বার্থসংশ্লিষ্ট অন্য কোনো নামে পরিচালিত সব হিসাব মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ আইনের আওতায় অবরুদ্ধ করার নির্দেশ দেয়া হলো।

চিঠিতে ক্রেস্ট সিকিউরিটিজ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. শহীদ উল্লাহ, পরিচালক নিপা সুলতানা নুপুর এবং অপর পরিচালক ওয়াহিদুজ্জামানের নাম উল্লেখ করে তাদের ব্যাংক হিসাব অবরুদ্ধ করার নির্দেশ দেয়া হয়।

প্রসঙ্গত, দেশের পুঁজিবাজারে কেলেঙ্কারির জন্মদাতা ক্রেস্ট সিকিউরিটিজ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মো. শহীদ উল্লাহ প্রতিষ্ঠানটির গ্রাহকদের জমাকৃত ১৮ কোটি টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে।

ওই প্রতিষ্ঠানে গ্রাহকদের টাকার পরিমাণ ছিল আরও বেশি। এর পরিমাণ প্রায় ১০০ কোটি টাকা বলে জানা গেছে।

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) এই সদস্য প্রতিষ্ঠানটিতে ২২ হাজার গ্রাহক রয়েছে। সময়-সুযোগ পেলে হয়তো আরও টাকা সরিয়ে নিতেন তিনি এবং তার স্ত্রী। কিন্তু নানা কারণে সেটি করতে সক্ষম হননি।

সোমবার পুলিশের গোয়েন্দা শাখা-ডিবি’র হাতে গ্রেফতার হওয়ার পর জিজ্ঞাসাবাদে মো. শহীদ উল্লাহ এই টাকা আত্মসাতের কথা স্বীকার করেছেন।

লক্ষ্মীপুর ও নোয়াখালীর সীমান্ত এলাকা থেকে স্ত্রী নিপা সুলতানসহ তাকে গ্রেফতার করেছে ডিবি পুলিশ। শহীদ উল্লাহর স্ত্রী প্রতিষ্ঠানটির একজন পরিচালক।

মঙ্গলবার এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা জানিয়েছেন ঢাকা মেট্রপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ডিবি) মো. আবদুল বাতেন।

এদিকে করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) নমুনা পরীক্ষা না করেই সনদ প্রদানসহ বিভিন্ন অপরাধে অভিযুক্ত রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান মো. সাহেদের ব্যাংক হিসাব খতিয়ে দেখার উদ্যোগ নিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

শিগগিরই তার ব্যাংক হিসাবের তথ্য চেয়ে ব্যাংকগুলোতে চিঠি দেবে বাংলাদেশ ফাইন্যান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিট (বিএফআইইউ)।

বিএফআইইউর প্রধান আবু হেনা মোহা. রাজী হাসান বলেন , এখনও চিঠি দেয়নি। তবে এ ব্যাপারে কিছু করার আছে। মানি লন্ডারিংয়ের কোনো ঘটনা আছে কি-না শিগগিরই তা খতিয়ে দেখবে বিএফআইইউ।




এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]