ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা বৃহস্পতিবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ ৮ আশ্বিন ১৪২৭
ই-পেপার বৃহস্পতিবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০

বিশ্বে গত ৫০ বছরে পরিযায়ী নদীর মাছের সংখ্যা ৭৬ শতাংশ হ্রাস
সময়ের আলো অনলাইন
প্রকাশ: বুধবার, ২৯ জুলাই, ২০২০, ৪:৩৩ পিএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 30

নদীর পরিযায়ী মাছের সংখ্যা গত ৫০ বছরে গড়ে ৭৬ শতাংশ হ্রাস পেয়েছে। মঙ্গলবার কনজাভেশন গ্রুপ এক রিপোর্টে এ কথা জানায়। এটিকে একটি ভয়ংকর বিপর্যয় উল্লেখ করে বলা হয়, এতে বিশ্বব্যাপী মানুষ ও ইকোসিস্টেমের ওপর প্রভাব পড়তে পারে।

ইন্টারন্যাশনাল ইউনিয়ন ফর দ্য কনজারভেশন অব ন্যাচার, ডব্লিউডব্লিউএফ, ওয়াল্ড ফিস মাইগ্রেশন ফাউন্ডেশন এবং জুলোজিক্যাল সোসাইটি অব লন্ডনসহ বিভিন্ন সংস্থার গবেষক গ্রুপের রিপোর্টে বলা হয়,অতিরিক্ত মৎস আহরণ এবং আবাসস্থল হারানোর কারণে মাইগ্রেটরি মাছের ওপরে এই ভয়ংকর প্রভাব পড়েছে। মিঠাপানির মাছের অন্তত তিনটি প্রজাতির একটি বিলুপ্তির হুমকিতে রয়েছে এবং মাইগ্রেটরি মাছ “অস্বাভাবিক ঝুঁকিতে” রয়েছে।

বিশ্বব্যাপী ২৪৭ প্রজাতির মাছের ওপর এই সমীক্ষা চালানো হয়, এতে দেখা যায় ১৯৭০ থেকে ২০১৬ সালের মধ্যে প্রতি বছর গড়ে মাছের সংখ্যা ৩ শতাংশ হারে কমেছে। সমীক্ষায় দেখা যায় ,আঞ্চলিকভাবে ইউরোপে পরিযায়ী নদীর মাছ সবচেয়ে বেশী ৯৩ শতাংশ হ্রাস পেয়েছে এবং লাতিন আমেরিকা ও ক্যারিবীয় অঞ্চলে গড়ে ৮৪ শতাংশ হ্রাস পেয়েছে।

ওয়াল্ড ফিস মাইগ্রেশন ফাইন্ডেশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক অ্যারিয়ান বার্কুইসেন বলেছেন, “যেভাবে পরিযায়ী মাছ হ্রাস পাচ্ছে সেটি একটি বিপর্যয়,আমরা নদী থেকে এভাবে মাছ বিলুপ্ত হতে দিতে পারিনা।” তিনি বলেন, “এতে বিশ্বব্যাপী মানুষ ও প্রকৃতির ওপর বিরূপ প্রভাব পড়বে। প্রজাতিগুলো বিলুপ্তির আগেই আমাদের এ ব্যাপারে পদক্ষেপ নিতে হবে।”

গবেষকরা বলেন, স্যালমন, ট্রাউট এবং আমাজনিয়ান ক্যাটফিস বিশ্বব্যাপী লাখ লাখ মানুষের জীবন জীবিকার অবলম্বন। উত্তর আমেরিকায় মিঠাপানির মাছ সবচেয়ে কম ২৮ শতাংশ হ্রাস পেয়েছে, এটা সম্ভব হয়েছে বাধ অপসারণ করে মাছের বিচরণ অব্যাহত রাখা এবং বাসস্থান সুরক্ষার কারণে। বড় আকারের মাছ বেলুগা, স্টজেওন অথবা জায়ান্ট মেকং ক্যাটফিস সবচেয়ে বেশী ঝুঁকিপূর্ণ, নদীতে বাধের কারণে তাদের জীবনচক্র সংকটাপন্ন।

ইউরোপে নদীতে বাধের কারণে প্রবাহ বাধাগ্রস্ত হওয়ায় মাছ ব্যাপক হ্রাস পেয়েছে, এই মহাদেশে নদী প্রবাহে এ ধরনের ১ লাখ ২০ হাজার প্রতিবন্ধক রয়েছে। এ জন্য ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন ২০৩০ সাল নাগাদ ২৫ হাজার কিলোমিটার নদীর অবাধ প্রবাহ নিশ্চিত করার পরিকল্পনা করেছে।বাসস




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, নির্বাহী সম্পাদক : শাহনেওয়াজ দুলাল, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে
প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ। নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]