ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা রোববার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ ১২ আশ্বিন ১৪২৭
ই-পেপার রোববার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০

চার আসামিকে ফের ১০ দিনের রিমান্ডে নিতে র‌্যাবের আবেদন
মেজর সিনহার সহযোগী সিফাত জামিনে মুক্ত
৩টি মামলার তদন্ত করবে র‌্যাব, শিপ্রা ও সিফাতকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশ: মঙ্গলবার, ১১ আগস্ট, ২০২০, ১১:৩৩ পিএম আপডেট: ১১.০৮.২০২০ ১২:০৬ এএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 32

কক্সবাজারের মেরিন ড্রাইভে পুলিশের চেকপোস্টে গুলিতে নিহত মেজর (অব.) সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খানের তথ্যচিত্র তৈরির সহযোগী সাহেদুল ইসলাম সিফাত জামিনে মুক্তি পেয়েছেন। সোমবার বেলা ১১টার দিকে কক্সবাজার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত তার জামিন আদেশ দেন। পরে কক্সবাজার জেলা কারাগার থেকে মুক্তি পান তিনি।
অন্যদিকে মামলার সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে সিফাতসহ মেজর সিনহার অন্য সহযোগী শিপ্রা দেবনাথকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে বলে জানিয়েছে র‌্যাব। এ ছাড়া মেজর সিনহা নিহত সংশ্লিষ্ট টেকনাফ ও রামু থানার মোট ৩টি মামলার তদন্তভার র‌্যাবের ওপর ন্যস্ত করেছেন আদালত।
র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মো. আশিক বিল্লাহ বলেছেন, কারাগারে থাকা সিনহা হত্যা মামলায় জেলগেটে চার আসামিকে ২ দিন জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। এ ৪ আসামি হলেন, সাময়িক বরখাস্তকৃত পুলিশের এএসআই লিটন মিয়া, কনস্টেবল সাফানুর করিম, কনস্টেবল কামাল হোসেন ও কনস্টেবল আবদুল্লাহ আল মামুন। এ চার আসামির কাছ থেকে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাওয়া গেছে। এ কারণে র‌্যাবের হেফাজতে তাদের ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ১০ দিনের রিমান্ডের আবেদন করা হয়েছে। এ রিমান্ডের আবেদনের শুনানির দিন আগামীকাল বুধবার ধার্য্য করেছেন আদালত।
অন্যদিকে গতকাল বেলা পৌনে ১১টার দিকে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে উপস্থিত হয়ে সিফাতের জামিন আবেদন করেন কক্সবাজারের সিনিয়র আইনজীবী মোহাম্মদ মোস্তফা। শুনানি শেষে আদালতের বিচারক তামান্না ফারাহ জামিন আবেদন মঞ্জুর করেন। একই সঙ্গে পুলিশের করা মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা (আইও) পরিবর্তন করে র‌্যাবের হাতে ন্যস্ত করার আবেদনও মঞ্জুর করেন আদালত। আদালতের নথি কক্সবাজার কারাগারে পৌঁছলে দুপুরের দিকেই মুক্তি পান সিফাত। মুক্ত হয়ে কারাফটকে হেঁটে বের হলেই অপেক্ষমাণ স্বজনসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সহায়তায় তাকে দ্রুত একটি মাইক্রোবাসে উঠিয়ে নিয়ে স্থান ত্যাগ করা হয়। মেজর সিনহা হত্যা মামলার প্রত্যক্ষদর্শী সাক্ষী হওয়ায় সিফাতের নিরাপত্তা নিয়ে এরই মধ্যে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন তার স্বজনরা।
সিফাতের আইনজীবী ও জেলা জজ আদালতের সিনিয়র আইনজীবী মোহাম্মদ মোস্তফা বলেন, আমরা সিফাতের মুক্তি এবং ন্যায়বিচারের স্বার্থে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পরিবর্তন করে র‌্যাবের কাছে হস্তান্তরের আবেদন জানিয়েছিলাম। আদালত পাঁচ হাজার টাকা জিম্মায় সিফাতকে জামিন দিয়েছেন। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পরিবর্তন করে র‌্যাবকে ন্যস্ত করেছেন।’ এর মাধ্যমে মেজর সিনহা নিহতের ঘটনা সংশ্লিষ্ট ৩টি মামলায় এলিটফোর্স র‌্যাব তদন্তের দায়িত্ব পেল।
রোববার দুপুরে জামিনে মুক্তি পান মেজর সিনহার তথ্যচিত্র তৈরির দলে থাকা আরেক সদস্য শিপ্রা দেবনাথ। সিফাত ও শিপ্রা স্ট্যামফোর্ড ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থী ও চলচ্চিত্রকর্মী। মেজর (অব.) সিনহা প্রামাণ্যচিত্র  তৈরির জন্য ৩ জুলাই কক্সবাজার এসেছিলেন। এই কাজে তার সহযোগী ছিলেন সিফাত, শিপ্রা ও তাদের সহপাঠী তাহসিন রিফাত নুর। প্রামাণ্যচিত্রের প্রযোজক ছিলেন সিনহা। তারা সবাই উঠেছিলেন হিমছড়ি  সৈকত তীরের নীলিমা রিসোর্টে।
গত ৩১ জুলাই রাতে টেকনাফের মারিষবুনিয়া পাহাড়ে ভিডিওচিত্র ধারণ করে মেরিন ড্রাইভ দিয়ে রিসোর্টে ফেরার পথে শামলাপুর তল্লাশিচৌকিতে পুলিশের গুলিতে নিহত হন মেজর (অব.) সিনহা। এ সময় পুলিশ সিনহার সঙ্গে থাকা সিফাতকে আটক করে কারাগারে পাঠায়। মেজর (অব.) সিনহা নিহত হওয়ার ঘটনায় পুলিশের পক্ষ থেকে ২টি মামলা হয়। একটি মামলা হয় টেকনাফে আরেকটি হয় রামু থানায়। এ মামলায় সরকারি কাজে বাধা ও গুলিতে নিহত হওয়ার অভিযোগ আনা হয়। সেই মামলার আসামি করা হয় সিফাতকে। আর মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে রামু থানায় করা মামলায় আসামি করা হয় শিপ্রাকে।








সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, নির্বাহী সম্পাদক : শাহনেওয়াজ দুলাল, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে
প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ। নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]