ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা শনিবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০ ১১ আশ্বিন ১৪২৭
ই-পেপার শনিবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০

কোতোয়ালির ওসিসহ ছয় জনের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির মামলা
আদালত প্রতিবেদক
প্রকাশ: মঙ্গলবার, ১১ আগস্ট, ২০২০, ১১:৩৩ পিএম আপডেট: ১১.০৮.২০২০ ১২:১৪ এএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 23

ক্রসফায়ারের ভয় দেখিয়ে এক ব্যবসায়ীর কাছ থেকে চাঁদাবাজির অভিযোগে রাজধানীর কোতোয়ালি থানার ওসিসহ ছয় জনের বিরুদ্ধে করা মামলাটি তদন্তের জন্য পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে অভিযোগের বিষয়ে তদন্ত করে আগামী ১৬ সেপ্টেম্বরের মধ্য প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।
সোমবার ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম (সিএমএম) আদালতে মামলার বাদী কোতোয়ালি থানাধীন কাপড় ব্যবসায়ী মো. সোহেল মীর হাজির হয়ে মামলাটি দায়ের করেন। শুনানি শেষে মহানগর হাকিম আবু সুফিয়ান মো. নোমান বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ করে এ আদেশ প্রদান করেন। মামলার অপর আসামিরা হলেনÑ কোতোয়ালি থানার এসআই পবিত্র সরকার, খালেদ শেখ ও মো. শাহিনুর, কনস্টেবল মিজান এবং পুলিশের সোর্স মোতালেব।
মামলার আরজি থেকে জানা যায়, গত ২ আগস্ট বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে বুড়িগঙ্গা নদী পার হয়ে কোতোয়ালি থানার ওয়াইজঘাট এলাকা দিয়ে মেয়ের বাসার দিকে যাচ্ছিলেন বাদী। পথে পুলিশ তাকে ঘেরাও করে। তল্লাশি করে তার পকেটে থাকা ২ হাজার ৯০০ টাকা নেয় পুলিশ। তল্লাশি শেষে পুলিশ তাকে চলে যেতে বলে। তখন বাদী সেই টাকা ফেরত চান। তখন তাকে মারধর করা হয়। সেখানে লোক সমাগম বাড়তে থাকে। লোকজন এসে জানতে চান, কী হয়েছে? তখন আসামিরা বলেন, তার পকেটে দুই প্যাকেট ২১৪ পিস ইয়াবা পাওয়া গেছে। তাকে ওয়ারেন্টভুক্ত আসামি হিসেবে ফাঁসাতে চান। তখন বাদী তাদের কাছে কাগজ দেখতে চান।
পরে আসামিরা তাকে থানায় নিয়ে যায় এবং তার পরিবারের সদস্যদের খবর দেওয়া হয়। পরিবারের সদস্যরা সেখানে গেলে আসামিরা তাদের কাছে ৫ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। না হলে ক্রসফায়ারে দেওয়ার হুমকি দেওয়া হয়। জেএমবির সদস্য বলে ফাঁসিয়ে দেওয়ার হুমকিও দেওয়া হয়। এ সময় ওসি তাদের টাকার ব্যবস্থা করতে বলেন। সোহেলের পরিবারের সদস্যরা রাতেই আসামিদের ২ লাখ টাকা দেন। পরদিন সকালে আরও ১ লাখ টাকা দেন। টাকা দেওয়ার পর সোহেলের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়, মিটফোর্ড হাসপাতালের ভেতরে তিনি মাদক সেবন এবং শিক্ষার্থীদের উত্ত্যক্ত করছিলেন। এরপর বাদীকে নন-এফআইআর মূলে আদালতে চালান করেন। হাজত থেকে বাদী বের হওয়ার পর ঘটনা প্রকাশ করলে ক্রসফায়ারের হুমকি দেন আসামিরা। এ অভিযোগে বাদী মামলা করেন।




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, নির্বাহী সম্পাদক : শাহনেওয়াজ দুলাল, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে
প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ। নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]