ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা বৃহস্পতিবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ ৮ আশ্বিন ১৪২৭
ই-পেপার বৃহস্পতিবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০

সাংবাদিককে হয়রানিমূলকভাবে কারাদণ্ড,  কুড়িগ্রামের সেই আরডিসি নাজিম বরখাস্ত
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশ: মঙ্গলবার, ১১ আগস্ট, ২০২০, ১১:৪২ পিএম আপডেট: ১১.০৮.২০২০ ১২:২৫ এএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 21

কুড়িগ্রামের জেলা প্রশাসক (ডিসি) কার্যালয়ের সাবেক সিনিয়র সহকারী কমিশনার (আরডিসি-রাজস্ব) নাজিম উদ্দিনকে সাময়িক বরখাস্ত করেছে সরকার। মধ্যরাতে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে একজন সাংবাদিককে হয়রানিমূলকভাবে কারাদণ্ড দেওয়ার ঘটনায় সমালোচিত নাজিমকে বরখাস্ত করে গত ৬ আগস্ট আদেশ জারি করে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। উল্লেখ্য, চলতি বছরের ১৩ মার্চের রাতের ঘটনায় ১৫ মার্চ তাকে পরবর্তী পদায়নের জন্য জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে ন্যস্ত করা হয়। এর প্রায় পাঁচ মাস পর তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হলো। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে জারি করা প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, নাজিম উদ্দিনের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগগুলো গুরুতর। তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা চলমান। তাকে কোথাও পদায়ন করা হলে তিনি আরও অনেক ঘটনা ঘটাতে পারেন। প্রশাসন তার কাজে আরও বিব্রতকর অবস্থায় পড়তে পারে।
জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সচিব শেখ ইউসুফ হারুন জানান, অন্যদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা চলমান। মামলা শেষে অপরাধী সাব্যস্ত হলে তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তিনি জানান, আরডিসি নাজিম উদ্দিন কুড়িগ্রামের আগেও যেসব স্টেশনে সরকারি দায়িত্ব পালন করেছেন, সেখানেও কোনো না কোনো ঝামেলা সৃষ্টি করেছেন। এমন সব কর্মকাণ্ড করেছেন তাতে সরকার তথা প্রশাসনের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হয়েছে।
গত ১৩ মার্চ মধ্যরাতে কুড়িগ্রামের সাংবাদিক আরিফুল ইসলামকে বাড়ির দরজা ভেঙে তুলে নিয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে এক বছরের জেল দেওয়ার ঘটনায় ১৫ মার্চ ডিসি সুলতানা পারভীনসহ চারজনকে জনপ্রশাসনে ওএসডি করা হয়। অন্য তিন কর্মকর্তা হলেনÑ সহকারী সচিব নাজিম উদ্দিন, রিন্টু বিকাশ চাকমা ও এসএম রাহাতুল ইসলাম। এরপর গত ১৬ মার্চ নাজিম উদ্দিন, রিন্টু বিকাশ চাকমা ও এসএম রাহাতুল ইসলামকে পরবর্তী পদায়নের জন্য জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে ন্যস্ত করে আদেশ জারি করা হয়েছিল। নাজিম উদ্দিনকে আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগ দেওয়া এবং তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ ও বিচার-বিশ্লেষণ করে বরখাস্তের পর তাকে বরখাস্তের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এখন তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলাসহ পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়ার প্রক্রিয়া চলছে বলে জনপ্রশাসন সূত্রে জানা গেছে।
সাংবাদিককে মধ্যরাতে তুলে নিয়ে সাজা দেওয়ার ওই ঘটনার পর ব্যাপক সমালোচনার সৃষ্টি হয়। ডিসি সুলতানা পারভীনকে সেখান থেকে সরিয়ে নেওয়া ছাড়াও সাংবাদিক আরিফুল ইসলামকেও মুক্তি দেওয়া হয়। এ অভিযান পরিচালনাকারী নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ছিলেন রিন্টু বিকাশ চাকমা। আরও ছিলেন নাজিম উদ্দিন ও রাহাতুল ইসলাম।ধী






সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, নির্বাহী সম্পাদক : শাহনেওয়াজ দুলাল, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে
প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ। নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]