ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা বৃহস্পতিবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ ৮ আশ্বিন ১৪২৭
ই-পেপার বৃহস্পতিবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০

করোনায় আক্রান্ত প্রণব মুখোপাধ্যায়
সময়ের আলো ডেস্ক
প্রকাশ: মঙ্গলবার, ১১ আগস্ট, ২০২০, ১১:৪২ পিএম আপডেট: ১১.০৮.২০২০ ১২:২৪ এএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 16

এবার করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ভারতের সবেক রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়। সোমবার এক টুইট বার্তায় এ কথা জানিয়েছেন তিনি। তার বয়স হয়েছে ৮৪ বছর। ২০১২ থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত ভারতের রাষ্ট্রপতি ছিলেন বর্ষীয়ান এই কংগ্রেস নেতা। টুইট করে প্রণব মুখোপাধ্যায় লিখেছেন, অন্য একটি প্রয়োজনে তিনি হাসপাতালে গিয়েছিলেন। তখনই তার করোনা পরীক্ষা হয়। তাতে দেখা যায়, তিনি করোনা পজিটিভ। নিজে করোনায় আক্রান্ত হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে গত এক সপ্তাহে যে বা যারা তার সংস্পর্শে এসেছেন, সবাইকে সাবধানতা অবলম্বন করার অনুরোধ জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি। সেই সঙ্গে সবাই যাতে সেলফ আইসোলেশনে চলে যায় এবং করোনা পরীক্ষা করে, সে বিষয়েও অনুরোধ জানিয়েছেন।
প্রণব মুখোপাধ্যায়ের করোনায় আক্রান্তের খবর সামনে আসতেই তার দ্রুত আরোগ্য কামনা করেছেন কংগ্রেস নেতারা। টুইট করে প্রণব মুখোপাধ্যায়ের দ্রুত আরোগ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করেছেন দিল্লি কংগ্রেসের সবেক প্রধান অজয় মাকেন।
এদিকে এর আগে ভারতের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। করোনায় আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন সিপিআইএমের বর্ষীয়ান পলিট ব্যুরো সদস্য মহম্মদ সেলিম। ড. ফুয়াদ হালিম সুস্থ হয়ে উঠলেও মারা গেছেন শ্যামল চক্রবর্তী। এ ছাড়া আক্রান্ত হয়েছেন আরও বহু রাজনীতিবিদ।
শাহীন হাওলাদার
করোনা ধাক্কায় স্থবির দেশের অর্থনীতি। কমে গেছে সরকারের রাজস্ব আহরণ। নানা শর্তে কমেছে সঞ্চয়পত্র বিক্রির পরিমাণ। ফলে অর্থবছরের শুরুতেই বাড়তি খরচ মেটাতে ব্যাংক ঋণের ওপর নির্ভরতা বাড়ছে সরকারের। চলতি (২০২০-২১) অর্থবছরের প্রথম ২৬ দিনে ব্যাংকব্যবস্থা থেকে ৬ হাজার কোটি টাকার ওপর ঋণ নিয়েছে সরকার।
অর্থনীতিবিদদের মতে, করোনাভাইরাসের কারণে আয়কর, আমদানি শুল্ক, ভ্যাটÑ কোনো খাতেই এখন কর আদায় হচ্ছে না। আমি হিসাব করে দেখেছি, অর্থবছর শেষে সংশোধিত লক্ষ্যের চেয়েও প্রায় সোয়া লাখ কোটি টাকার মতো রাজস্ব কম আদায় হবে।’ ফলে প্রতিবছর বাজেটের ঘাটতি মেটাতে অভ্যন্তরীণ ও বৈদেশিক খাত থেকে ঋণ করে সরকার। সব মিলিয়ে বাজেটের বাড়তি ব্যয় মেটাতে অতিমাত্রায় ব্যাংক ঋণনির্ভরতায় ঝুঁকে পড়েছে সরকার। এতে বেসরকারি খাত ক্ষতিগ্রস্ত হবে। গবেষণা সংস্থা পলিসি রিসার্চ ইনস্টিটিউটের (পিআরআই) নির্বাহী পরিচালক আহসান এইচ মনসুর সময়ের আলোকে বলেন, সরকারের রাজস্ব আয় কমেছে। আবার করের হার বৃদ্ধি এবং আইন-কানুন কঠোর করায় সঞ্চয়পত্র বিক্রি কমে গেছে। সরকার সঞ্চয়পত্র বিক্রির লক্ষ্যও কমিয়ে এনেছে। ফলে সরকারের এখন একটাই পথ ব্যাংক ঋণ। আর সেটাই করছে। এ ছাড়া অন্য কোনো পথ খোলা নেই। দেশ চালাতে হলে এটা করতেই হবে।
কেন্দ্রীয় ব্যাংকের প্রতিবেদন অনুযায়ী, চলতি অর্থবছরের প্রথম ২৬ দিনে (২৬ জুলাই পর্যন্ত) সরকার বেসরকারি ব্যাংক থেকে ঋণ নিয়েছে ৮ হাজার ২৮৮ কোটি টাকা। আলোচিত সময়ে বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে সরকার কোনো ঋণ না নিয়ে উল্টো আগের নেওয়া ঋণের ২ হাজার ১৩৯ কোটি টাকা পরিশোধ করেছে। ফলে ব্যাংকব্যবস্থা থেকে সরকারের নিট ব্যাংকঋণ দাঁড়িয়েছে ৬ হাজার ১৪৯ কোটি এরপর পৃষ্ঠা ১১ কলাম ১





সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, নির্বাহী সম্পাদক : শাহনেওয়াজ দুলাল, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে
প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ। নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]